ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা রোববার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১১ আশ্বিন ১৪২৮
ই-পেপার রোববার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

করোনায় চিকিৎসা বিপাকে আবাসিকরা
আদিল সরকার ইবি
প্রকাশ: বুধবার, ১৪ জুলাই, ২০২১, ৯:২০ এএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 82

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) ক্যাম্পাস পার্শ্ববর্তী কুষ্টিয়া-ঝিনাইদহ জেলায় প্রতিনিয়ত বেড়ে চলছে করোনার প্রকোপ। ভয়াবহ এই সময়ে করোনার প্রাথমিক চিকিৎসাও মিলছে না ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেলে। পর্যাপ্ত চিকিৎসা সামগ্রী ও লোকবল সঙ্কটে বেহাল দশা মেডিকেলটির। ফলে করোনার চিকিৎসা নিতে এসে হতাশ হচ্ছেন আবাসিক শিক্ষক ও কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করছেন তারা। তাদের অভিযোগÑ মেডিকেলের এসব সঙ্কট উত্তরণে প্রশাসনের সুনজর নেই।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, গত ১১ জুলাই বিশ^বিদ্যালয়ের একজন আবাসিক শিক্ষক তার পরিবারসহ করোনায় আক্রান্ত হয়ে বিশ^বিদ্যালয়ের চিকিৎসাকেন্দ্রে যান। সেখানে কোনো চিকিৎসা পাননি বলে অভিযোগ করেছেন তিনি। পরবর্তীতে কুষ্টিয়া সদর হাসপাতাল থেকে প্রয়োজনীয় ওষুধ ও ইনজেকশন নিয়ে আসেন। তবে ক্যাম্পাসে এসে ইনজেকশনটি সময়মতো দিতে বিশ^বিদ্যালয় মেডিকেলে গেলে লোকজন না থাকায় সেটিও দিতে ব্যর্থ হন তিনি।

বিশ^বিদ্যালয়ের আবাসিক এলাকায় পাঁচ শতাধিক শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারী পরিবারসহ অবস্থান করেন। তারা মেডিকেলে করোনা রোগীদের জন্য চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে দুই দফায় দাবি জানালেও বিষয়টি কর্তৃপক্ষের নজরে আসেনি। বিশ^বিদ্যালয়টি শহর থেকে দূরে হওয়ায় চরম ঝুঁকিতে দিনাতিপাত করছেন বলে জানান তারা। বিশ^বিদ্যালয়ের চিকিৎসাকেন্দ্রে ১১ জন চিকিৎসক, ২ জন সাময়িক চিকিৎসক, নার্স, কর্মকর্তাসহ মোট ২১ জন কর্মকর্তা রয়েছেন বলে জানা গেছে। তবে করোনাকালীন এই সময়ে বৃহৎ চিকিৎসাকেন্দ্রটি চলছে একজন নার্স, একজন পিওন ও একজন ফার্মাসিস্ট দিয়ে। ফলে করোনার এই সময়ে জরুরি চিকিৎসার জন্য মেডিকেলে গেলে যথাযথ চিকিৎসা নিতে পারছেন না আবাসিক লোকজন।

চিকিৎসাকেন্দ্রটিকে করোনা চিকিৎসার উপযোগী করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের প্রতি দাবি জানিয়েছেন শিক্ষক সমিতি। করোনা আক্রান্তদের আইসোলেশনে থাকার ব্যবস্থা, আক্রান্তদের চিকিৎসাসেবার জন্য বেড প্রস্তুত, প্রয়োজনীয় সংখ্যক অক্সিজেন সিলিন্ডার এবং একটি অ্যাম্বুলেন্সকে আইসিইউ অ্যাম্বুলেন্সে রূপান্তরের দাবি জানান তারা। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. কাজী আখতার হোসেন বলেন, এসব দাবি পূরণে এখনও প্রশাসনের কোনো কার্যক্রম দেখা মেলেনি। তবে মেডিকেল সংশ্লিষ্টদের দাবি, চিকিৎসাকেন্দ্রে পর্যাপ্ত লোকবল ও চিকিৎসা সামগ্রীর সঙ্কটের কারণে পরিপূর্ণ চিকিৎসাসেবা দিতে পারছেন না তারা। 

বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেলের প্রধান অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) ড. নজরুল ইসলাম জানান, ‘মেডিকেলে পর্যাপ্ত লোকবল না থাকায় এবং করোনা রোগীদের জন্য পর্যাপ্ত চিকিৎসা সামগ্রী না থাকায় আমরা পরিপূর্ণ সেবা দিতে পারছি না। এ বিষয়ে বিশ^বিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম সময়ের আলোকে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেলে আমরা করোনা রোগীদের চিকিৎসা করতে পারব না। তবে ডাক্তারদের পরমর্শ অনুযায়ী করোনা রোগীদের জন্য সর্বোচ্চ সহযোগিতার চেষ্টা করব।


/এমএইচ/




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]