ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শুক্রবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ ২ আশ্বিন ১৪২৮
ই-পেপার শুক্রবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

সিঙ্গাপুরে টিকা গ্রহণকারীদের ৭৫ শতাংশই করোনা আক্রান্ত
সময়ের আলো ডেস্ক
প্রকাশ: শনিবার, ২৪ জুলাই, ২০২১, ৯:১৯ পিএম আপডেট: ২৫.০৭.২০২১ ৫:৩৭ এএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 169

করোনা শুরুর পর থেকে গত দেড় বছর বেশ ভালোভাবেই পরিস্থিতি সামাল দিয়েছে সিঙ্গাপুর। তবে গত চার সপ্তাহ ধরে বাড়ছে প্রাণঘাতী এই রোগে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। আক্রান্তদের মধ্যে ৭৫ শতাংশই অন্তত একবার ভ্যাকসিন নিয়েছেন। তবে সিঙ্গাপুর বলছে, এই পরিসংখ্যানের মানেই যে টিকা কর্মসূচি ব্যর্থ তা নয়। কেননা আক্রান্তদের মধ্যে যারা ভ্যাকসিন নিয়েছেন, তাদের অধিকাংশই মৃদু উপসর্গে ভুগছেন।

বর্তমানে সিঙ্গাপুরে করোনায় আক্রান্ত নতুন রোগীর সংখ্যা ১ হাজার ৯৬ জন।  দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, নতুন আক্রান্ত এই রোগীদের ৪৪ শতাংশই করোনা টিকার দুই ডোজ সম্পূর্ণ করেছেন এবং টিকার অন্তত একটি ডোজ নিয়েছেন ৩০ শতাংশ। বাদবাকি মাত্র ২৫ শতাংশের কিছু বেশি রোগী এখন পর্যন্ত টিকার কোনো ডোজ গ্রহণ করেননি।

নতুন আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে মাত্র ৭ জনকে অক্সিজেন দিতে হচ্ছে এবং একজনের অবস্থা গুরুতর হওয়া তাকে হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে। এই আটজনই করোনা টিকার একটি ডোজ নিয়েছিলেন বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

শুক্রবার এক বিবৃতিতে এ সম্পর্কে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘নতুন আক্রান্ত করোনা রোগীদের অধিকাংশই করোনা টিকা নিয়েছিলেন- তার মানে কিন্তু এই নয় যে করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে টিকার কার্যকারিতা কম। সিঙ্গাপুরে যদি ব্যাপকভাবে টিকাদান না করা হতো, তাহলে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা অনেকগুণ বেশি হতো এবং গুরুতর অসুস্থ ও মৃত্যুর হারও থাকত অনেক ওপরে।’

সিঙ্গাপুরের জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরাও জানিয়েছেন, সম্প্রতি দেশটিতে করোনা সংক্রমণ বাড়লেও তা যে ব্যাপকমাত্রায় ছড়িয়ে পড়ছে না এবং আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে হাতে গোনা কয়েকজন মাত্র গুরুতর অসুস্থ হয়েছেন – তার প্রধান কারণ, ইতোমধ্যে দেশটির প্রাপ্তবয়স্ক জনগণের অধিকাংশকেই টিকার আওতায় আনা গেছে।

ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব সিঙ্গাপুরের জনস্বাস্থ্য বিভাগের বিভাগীয় প্রধান তিও ইক ইং বার্তাসংস্থা রয়টার্সকে এ সম্পর্কে বলেন, ‘টিকাদান কর্মসূচি অব্যাহত রাখা উচিত। অন্তত যতদিন পর্যন্ত দেশের সব প্রাপ্তবয়স্ককে টিকার আওতায় আনা সম্ভব না হয়। সরকার যদি দেশের শতভাগ প্রাপ্তবয়স্ক জনগণকে টিকার আওতায় আনতে পারে তাহলে সংক্রমণ এমনিতেই হ্রাস পাবে। তারপরও যারা আক্রান্ত হবেন তাদের শারীরিক অবস্থা বিশ্লেষণ করে আমরা জানতে পারব, টিকা নেওয়া ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে এই ভাইরাসটি ঠিক কতখানি বিপজ্জনক হতে পারে।’

/জেডও/




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]