ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা রোববার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১১ আশ্বিন ১৪২৮
ই-পেপার রোববার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

বেসরকারি খাতে ঋণ বাড়াতে নতুন মুদ্রানীতি ঘোষণা
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: শুক্রবার, ৩০ জুলাই, ২০২১, ১২:৩২ এএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 121

বেসরকারি খাতে ঋণ বাড়ানোর লক্ষ্য নিয়ে নতুন মুদ্রানীতি ঘোষণা করা হয়েছে। নতুন মুদ্রানীতিতে বেসরকারি খাতে ঋণ বাড়ানোর প্রাক্কলন করা হয়েছে ১৪ দশমিক ৮০ শতাংশ। তবে এবারের মুদ্রানীতিতে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে প্রণোদনা প্যাকেজের ওপর। বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ব্যাংক নতুন এই মুদ্রানীতি ঘোষণা করে। তবে গত বছরের মতো এবারও সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে ঘোষণা না দিয়ে ব্যাংকের সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়েছে।

ঘোষণা করা নতুন মুদ্রানীতিতে সরকারের লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী ৭৬ হাজার ৫০০ কোটি টাকা ঋণ যোগান দেওয়া হবে। মোট অভ্যন্তরীণ ঋণের প্রবৃদ্ধি ধরা হয়েছে ১৭ দশমিক ৮০ শতাংশ। বিদ্যমান করোনা পরিস্থিতি বিবেচনাকে গুরুত্ব দিয়ে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডকে গতি সঞ্চার করার লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে।

নতুন মুদ্রানীতি ঘোষণাকালে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির বলেছেন, এই নতুন মুদ্রানীতিতে একটি সম্প্রসারণমূলক ও সংকুলানমুখী বিষয়ে অত্যন্ত গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। চলতি অর্থবছরের সামনের দিনগুলোর কথা চিন্তাভাবনা করে ব্যাংকিং খাতের সার্বিক তারল্য পরিস্থিতির গতি-প্রকৃতির দিকটি বিবেচনায় আনা হয়েছে। একই সঙ্গে বিশ্ব পরিস্থিতি ও আমাদের অভ্যন্তরীণ অর্থনীতির গতি-প্রকৃতির বিষয়টি আমলে নেওয়া হয়েছে। তবে মুদ্রানীতি ও এর হাতিয়ারগুলোর যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ ব্যাংক সবসময় প্রস্তুত থাকবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর আরও উল্লেখ করেছেন, ব্যাংকিং খাতে ইতোমধ্যে উদ্বৃত্ত তারল্য উৎপাদনশীল খাতে ব্যবহার না হয়ে অনুৎপাদনশীল খাতে ব্যবহার হয়েছে যা কখনও কাম্য হতে পারে না। তবে সার্বিক মূল্য পরিস্থিতি ও আর্থিক স্থিতিশীলতার বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের নজরদারি থাকবে। চলমান করোনা পরিস্থিতিতে সরেজমিনে নিরীক্ষা কার্যক্রম বেশ কিছুটা শিথিলতার সুযোগে অনেকে প্রণোদনা প্যাকেজের অপব্যবহার করেছে বলে গণমাধ্যমে প্রকাশ পেয়েছে। যা মোটেই কাম্য হতে পারে না।

তিনি অবশ্য স্বীকার করেন, করোনা মহামারির কারণে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড প্রত্যাশা অনুযায়ী উজ্জীবিত হচ্ছে না। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে এখনও অর্থনীতিতে অনিশ্চয়তাময় পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। এ অবস্থায় মুদ্রানীতিতে এর আগে যে শিথিলতা আনা হয়েছিল, তা এখন আর আগের অবস্থায় ফিরিয়ে নেওয়ার সময় এখনও আসেনি।

মুদ্রানীতিতে তারল্যের মাত্রিক সম্প্রসারণ না ঘটিয়ে সরকারের সম্প্রসারণমূলক রাজস্ব নীতির সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে একটি সম্প্রসারণমূলক ও সংকুলানমুখী বিষয়টিতে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। অনুৎপাদনশীল খাতে ঋণের প্রসার না ঘটিয়ে বেশি উৎপাদনশীল ও কর্মসংস্থান সহায়ক খাতে প্রয়োজনীয় অর্থায়নের ওপর বিশেষ গুরুত্বারোপ করা হয়েছে।

গভর্নর ফজলে কবির বলেন, অর্থনীতিতে মানসম্মত কর্মসংস্থান সৃষ্টির পাশাপাশি আর্থিক অন্তর্ভুক্তি বাড়ানোর লক্ষ্যে গ্রামাঞ্চলের প্রত্যন্ত এলাকায় ব্যাংকগুলোর ন্যূনতম সংখ্যক নিজস্ব জনবল দিয়ে প্রযুক্তিনির্ভর উপশাখা খোলার ওপর বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। করোনার কারণে অনিশ্চয়তার পরিস্থিতির কারণে বছরব্যাপী বেসরকারি খাতে ঋণের প্রবৃদ্ধি শ্লথ থাকায় এই খাতে ২০২০-২১ অর্থবছরের মুদ্রানীতিতে নির্ধারিত ১৪ দশমিক ৮ শতাংশ ঋণ বৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে প্রকৃতিপক্ষে তা ৮ দশমিক ৪ শতাংশ বৃদ্ধি পায়।

তিনি নতুন মুদ্রানীতিতে আরও বেশ কিছু বিষয় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে কৃষি, বৃহৎ শিল্প, রফতানিমুখী শিল্প, সেবা খাতের জন্য পুনঃঅর্থায়নের স্কিম বাড়ানো ও করোনার কারণে ক্ষতিগ্রস্ত অপ্রাতিষ্ঠানিক খাতগুলোর জন্য বিশেষ পুনঃঅর্থায়ন স্কিম চালু করা। এ ছাড়াও কর্মসংস্থান সৃষ্টির জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকের গঠিত ৫০০ কোটি টাকার তহবিল সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা করা হবে।

/টিএম/




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]