ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা  বুধবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১ ৭ আশ্বিন ১৪২৮
ই-পেপার  বুধবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

অবশেষে ফক্সের মুখে সোনালি হাসি
ক্রীড়া ডেস্ক
প্রকাশ: শুক্রবার, ৩০ জুলাই, ২০২১, ৭:৩৪ এএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 41

পদক জয় নতুন কিছু নয় জেসিকা ফক্সের কাছে। বহুবার সোনার পদক ঝুলেছে তার গলায়। এক কথায়, পোডিয়ামে (পদক গ্রহণের মঞ্চ) উঠতে অভ্যস্ত তিনি। তবে বৃহস্পতিবারের দিনটা তার জন্য ছিল ভিন্ন। এদিন রীতিমতো কিশোরী বনে গেলেন ২৭ বছর বয়সি অস্ট্রেলিয়ান প্যাডলার। আনন্দে লাফিয়ে উঠে ভেসেছেন শূন্যে, ছুটেছেন এদিক-ওদিক। কেননা, অলিম্পিকের মঞ্চে সেরা সাফল্য এবারই যে প্রথম পেয়েছেন ফক্স। অনেক অপেক্ষার পর তার মুখে অলিম্পিক সোনার হাসি।

টোকিও অলিম্পিকের শুরুতেই আক্ষেপ ফক্সের সঙ্গী। কে-ওয়ান ক্লাস ইভেন্টে ব্রোঞ্জ জোটে তার ভাগ্যে। সেই আক্ষেপ ঘুচিয়ে প্রথম অলিম্পিক সোনা হাতিয়ে নিলেন ‘আইকন’ প্যাডলার। গেমসের ষষ্ঠ দিনে মেয়েদের সি-ওয়ান ক্যানো সøালমে প্রথম হয়েছেন তিনি। ১০৫ দশমিক ০৪ সেকেন্ডে সোনালি হাসি হেসেছেন ফক্স। তার থেকে ৩ দশমিক ৬৪ সেকেন্ড বেশি নিয়ে রৌপ্য পদক পেয়েছেন গ্রেট ব্রিটেনের ম্যালরি ফ্রাঙ্কলিন। ১১১.১৩ সেকেন্ড টাইমিংয়ে জার্মানির ঝুলিতে ব্রোঞ্জ জমা করেছেন আন্দ্রেয়া হার্জোগ।

প্যাডলিক জগতে সেরা ফক্স। ক্যানো সøালম ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়নশিপে তার নামের পাশে আছে ১৫টি মেডেল (১০ স্বর্ণ, তিন রৌপ্য ও ২ ব্রোঞ্জ)। চ্যাম্পিয়নশিপ ইতিহাসে ব্যক্তিগত ইভেন্টে সর্বোচ্চ সাতবারের সোনাজয়ী তারকা তিনি। ২০১০ সালে সামার ইয়ুথ অলিম্পিকে কে-ওয়ান ইভেন্টেও সেরা হন এই অস্ট্রেলিয়ান। কিন্তু অজানা এক অভিশাপে সবচেয়ে বড় মঞ্চে তার হাতে ধরা দিচ্ছিল না সোনা! ২০১২ সালে অলিম্পিকে অভিষেকের পর থেকেই তাই আক্ষেপ সঙ্গী করে এগিয়েছেন ফক্স।

লন্ডনে অভিষেক অলিম্পিকে কে-ওয়ান ইভেন্টে রৌপ্য পান ফক্স। চার বছর পর রিও ডি জেনিরোতে এবং চলমান গেমসে একই ইভেন্টে তিনি পান ব্রোঞ্জ। এই প্যাডলার অবশেষে ব্যর্থতার গণ্ডি পেরুলেন অলিম্পিকে প্রথম যোগ হওয়া ক্যানো সøালম ইভেন্টে। লড়াইয়ে নামার আগে অসুস্থতা বোধ করলেও শেষতক সোনা জয়ের আনন্দে আত্মহারা হন অজি ললনা, ‘ফাইনাল শুরু হওয়ার ২০ মিনিট পূর্বে আমি ভালো অনুভব করেছি। তবে প্রতিযোগিতার আগে আমি কখনই স্নায়ুচাপ অনুভব করিনি।’

অলিম্পিক চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় অদ্ভুত অনুভূতি কাজ করছে ফক্সের মাঝে, ‘অনেক আবেগ, আনন্দ এই মুহূর্তটা বিশেষ করে তোলে। এটা কেবল অবিশ্বাস্য। যারা আমাকে এই মুহূর্তে পৌঁছাতে সহায়তা করেছেন তাদের প্রত্যেকের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ। সত্যিই এটা বিশেষ একই মুহূর্ত।’






সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]