ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শুক্রবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ ২ আশ্বিন ১৪২৮
ই-পেপার শুক্রবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

‘গানের টানে শিক্ষকতা ছেড়েছি’
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১:২২ পিএম আপডেট: ১৪.০৯.২০২১ ১:২৪ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 174

এ প্রজন্মের সঙ্গীতশিল্পী অবন্তী দেব সিঁথি। ২০১৮ সালে ভারতীয় রিয়েলিটি শো সারেগামাপা দিয়েই মূলত জনপ্রিয়তা পান তিনি। গানে নিজস্ব আবহ তৈরি করে সঙ্গীতপ্রেমীদের কাছে শিসকন্যা হিসেবেও পরিচিত সিঁথি। বর্তমানে নতুন গান নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন এই শিল্পী। সঙ্গীত ও অন্যান্য বিষয় নিয়ে কথা বলেছেন সময়ের আলোর সঙ্গে। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন গাজী আনিস

বর্তমান ব্যস্ততা নিয়ে বলুন।
সঙ্গীতপ্রেমীদের জন্য শিগগিরই আমার দুটি গান আসছে। আগামী ১৬ সেপ্টেম্বর একটি গান রিলিজ দেওয়া হবে। এ ছাড়া পূজা উপলক্ষে কিছু কাজ করা হয়েছে। আমার নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেল অবন্তী সিঁথিতে ‘উড়ি উড়ি পাখির মতো’ একটি গান প্রকাশ করা হবে। এটি আমার নিজের মৌলিক গান। এ ছাড়া প্রতি সপ্তাহে আমার ইউটিউব চ্যানেলে কনটেন্ট প্রকাশ করছি।
 
নেটওয়ার্কের বাইরে সিনেমায় ‘রূপকথার জগতে’ গানটি বেশ প্রশংসিত হয়েছে...
এটা গুণী মানুষদের কাজ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ প্রশংসা পেয়েছি। সারেগামাপা থেকে আসার পর এটিই ছিল আমার প্রথম প্লেব্যাক কাজ। আগেও কয়েকটা প্লেব্যাক করেছি, সেগুলো উল্লেখযোগ্য নয়।

সিনেমার দিকে যেহেতু এগোচ্ছেন, অভিনয়ে যাওয়ার ইচ্ছে আছে কি?
না না, অভিনয় একদমই পারি না। কিছু জিনিস ভেতরে থাকে, অভিনয় জিনিসটা আমার ভেতরে নেই।

সঙ্গীতজীবনে আসার পর কী পরিবর্তন হয়েছে?
আমি এখনও সাধারণ জীবনযাপনে আছি। শিক্ষাজীবনে যেমন ছিলাম তেমনি ইচ্ছেমতো ঘুরে বেড়াই। আগের থেকে একটু পরিচিতি বেড়েছে। এখন দশটা মানুষ চেনেন। অনেকেই সেলফি তুলতে চান, আমি বিষয়টা উপভোগ করি। মানুষের এত ভালোবাসা পেয়েছি, নিজেকে ভাগ্যবান মনে করি।

আপনার মৌলিক গানের সংখ্যা কত হলো?
গত দুই বছরে ৫০টি গান গাওয়া হয়েছে। যৌথ গানের সংখ্যা মনে পড়ছে না।

গানের জন্য আপনি শিক্ষকতা পেশা ছেড়ে দিয়েছেন!
২০১৬ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত আমি একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করেছি। টেক্সটাইল ডিপার্টমেন্টের শিক্ষার্থীদের রসায়ন পড়াতাম। পরবর্তীতে গানের ভালোবাসায় শিক্ষকতা পেশা ছেড়েছি। গান আমার ভালোবাসা ও পেশা।

গান নিয়ে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কী?
ছোট থেকে কখনও ভেবে কিছু করিনি। কাজ করতে করতে যখন দেখেছি কাজটা ভালো হচ্ছে, তখন সে কাজে মনোনিবেশ করেছি। ভালোবাসা থেকে শেষ পর্যন্ত গান করে যাব। আর আমার দুটি স্বপ্ন আছে।
আমি যেটা জানি সেটা ছড়িয়ে দিতে চাই। ইচ্ছে আছে আমার একটা গানের স্কুল হবে, যারা গান শিখতে খুব বেশি সুযোগ পান না তাদের শেখাব। আর আমার একটা গানের দল আছে। নাম ‘ইচ্ছে গান’। এই দলে ৪ জন মেয়ে, সবাই গাইতে ও বাজাতে পারে। ইচ্ছে আছে গানের এই দলকে প্রতিষ্ঠিত করা।

বিয়ে করছেন কবে?
প্রেম তো মানুষের জীবনে আসতেই থাকে। আমার জীবনে গানের সঙ্গে বেশি প্রেম হয়েছে। আর বিয়েটা নির্ভর করছে পরিবারের ওপর। আমি মনের মতো মানুষের অপেক্ষায় আছি। উপযুক্ত মানুষের জন্য অপেক্ষা করছি। আমার মতো কেউ একজন হলেই হবে, সে যে সঙ্গীত জগতের হতে হবে, এমন নয়।

/জেডও/




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]