ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শুক্রবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ ২ আশ্বিন ১৪২৮
ই-পেপার শুক্রবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

তরুণদের অভিনয় শেখাতে চাইতেন সাদেক বাচ্চু
গাজী আনিস
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৭:৫৫ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 67

বর্ষীয়ান অভিনেতা সাদেক বাচ্চুর প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর)। ২০২০ সালের এই দিনে তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৬৬ বছর বয়সে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

কয়েক দশকের ক্যারিয়ারে অভিনয়ের সুবাদে সাদেক বাচ্চু চলচ্চিত্র অভিনেতা হিসেবে জনপ্রিয়তা অর্জন করেন। ইতিবাচক চরিত্রের চেয়ে নেতিবাচক চরিত্র দিয়েই তিনি দর্শকদের মনে জায়গা করে নেন। ক্যারিয়ারে শুরুর দিকে টেলিভিশন ও মঞ্চে অভিনয় করেও সুনাম কুড়িয়েছিলেন সাদেক বাচ্চু।

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রাপ্ত এই অভিনেতার বিভিন্ন বিষয় নিয়ে মঙ্গলবার সময়ের আলোর সঙ্গে কথা বলেছেন তার স্ত্রী শাহনাজ জাহান।

অভিনেতা, নাটক রচয়িতা, নাট্য নির্দেশক ও ডাক বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ছিলেন সাদেক বাচ্চু। প্রায় ৫০০ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। অথচ অভিনেতার মৃত্যু দিবসে তার অবদানের কথা তেমনভাবে কোথাও প্রকাশ করা হয়নি উল্লেখ করে শাহনাজ জাহান বলেন, আজ তেমন কেউ ফোনকল করেনি। পারিবারিকভাবে ঝিলপাড় কবরস্থানের পাশে একটা এতিমখানা আছে সেখানে এতিমদের খাওয়ানো হয়েছে।এছাড়া কিছু ফকির-মিসকিনদেরও খাওয়ানো হয়েছে। আর গত ৬ তারিখ শিল্পী সমিতি এফডিসিতে সালমান শাহ, সাদেক বাচ্চুসহ অন্যান্য শিল্পীদের জন্য দোয়া মাহফিলের আয়োজন করেছিল।

বর্তমান পারিবারিক অবস্থা নিয়ে তিনি বলেন, আমার দুই মেয়ে এবং এক ছেলে। তারা সবাই পড়াশোনা করেন। বড় মেয়ে আগামী বছর উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা দেবে। ছোট দুজন মাধ্যমিক পরীক্ষা দেবে। ছেলেটা ক্লাস সেভেনে পড়ে। তিনি যেহেতু ডাক বিভাগের কর্মকর্তা ছিলেন যা রেখে গেছেন তা দিয়ে চলছে।

সাদেক বাচ্চুর স্বপ্ন নিয়ে তিনি বলেন, তার  ‘মতিঝিল থিয়েটার’ নামে একটি মঞ্চ নাটকের দল ছিল। তিনি চাইতেন সবাই অভিনয় শিখে সিনেমায় আসুক। তরুণদের  তিনি অভিনয় শেখাতে চাইতেন। এখন তো অনেকে রাতারাতি তারকা হয়ে যায়।  

সাদেক বাচ্চুকে প্রজন্মের কাছে পৌঁছে দেওয়ার কথা উল্লেখ করে শাহনাজ জাহান বলেন, সাদেক বাচ্চুর বিস্তার ছিল সবখানে। তাকে স্মরণ করা, গুরুত্ব দিয়ে দেখা সবার উচিত। এই প্রজন্মের অনেকে তাকে ভুলে যেতে শুরু করেছেন। তাকে ভুলে গেলে নতুন প্রজন্ম এগোতে পারবে না। তাকে যেন শিল্পী হিসেবে স্মরণ করা হয়। দেশের চলচ্চিত্রের অবস্থা ভালো না, অতীতের সে দিন আর নেই। নতুন প্রজন্ম পুরনোদের অনুসরণ করতে চায়, তাদের সে সুযোগ দিতে হবে।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]