ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা রোববার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১১ আশ্বিন ১৪২৮
ই-পেপার রোববার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

বিএনপির বৈঠক
নির্বাচন নিয়ে অংশগ্রহণমূলক সিদ্ধান্ত নেওয়ার পরামর্শ
সাব্বির আহমেদ
প্রকাশ: বুধবার, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৪:২২ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 77

প্রায় চার ঘণ্টাব্যাপী বৈঠক রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেছে বিএনপি। যেখানে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য, ভাইস চেয়ারম্যান ও চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মিলে প্রায় ৪০ জন নেতা উপস্থিত ছিলেন। লন্ডন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। বৈঠক সবার মতামত নেওয়া হয়। সিদ্ধান্ত হয় ৬৪ জেলায় সাংগঠনিক সফরের। বৈঠকে শেষে অন্তত দশজন নেতার সঙ্গে কথা হয় সময়ের আলোর। দুয়েকজন বাদে কেউই কথা বলতে চাননি। তাদের ভাষ্য, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ফোরামের অভ্যন্তরীণ আলোচনা গণমাধ্যম না জানাতে কড়া বারণ করেছেন। মহাসচিব নিজেই গণমাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে জানাবেন। 

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার রফিকুল হকের সহধর্মিণী ও চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা শাহিদা রফিক জানান, তিনি বৈঠক শেষ হওয়ার বেশ কিছুক্ষণ আগে বের হয়ে যান ব্যক্তিগত কারণে। সব সিদ্ধান্ত জানতে না পারলেও বৈঠকে নির্বাচনের আগে দেশের সব জেলায় সাংগঠনিক সফরের কথা চূড়ান্ত হয়েছে। এজন্য নেতাদের দায়িত্বও ভাগ করে দেওয়া হয়েছে। চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা সুকোমল বড়ুয়া সময়ের আলোকে বলেন, বিস্তারিত বলা যাবে না। এটা অভ্যন্তরীণ বৈঠক। প্রথমে সবাই মতামত দিয়েছেন।  

ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান সবার কথা শুনে কিছু দিকনির্দেশনা ও পরামর্শ দিয়েছেন। দলের ভবিষ্যৎ করণীয় নিয়েই আলোচনা হয়েছে। 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক নেতা জানান, বৈঠকে সিনিয়র কয়েকজন ভাইস চেয়ারম্যান বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের উদ্দেশে বলেছেন, সামনে নির্বাচনকালীন সময়ে সব সিদ্ধান্ত হতে হবে অংশগ্রহণমূলক। বৈঠকে যা মতামত নেওয়া হচ্ছে, তা যেন কাজে ও মাঠে বাস্তবায়ন হয়। এতে দলের মধ্যে তুষ্টি আসবে। বৈঠকে স্বল্পসময়ের জন্য ছিলেন উপদেষ্টা গাজী মাজহারুল আনোয়ার। তিনি বলেন, রাজনৈতিক ও দলের কর্মপন্থা নিয়েই আলোচনা হয়েছে। ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান বলেছেন কম, শুনেছেন বেশি। আর উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার সময়ের আলোকে বলেন, সবাইকে আরও সংযত ও সতর্ক থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। সবাইকে দলের জন্য কাজ করতে বলা হয়েছে। এর চেয়ে বেশি কিছু বলতে চাননি এই নেতা। 

বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, শুরুতেই বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার রোগমুক্তি ও প্রয়াত নেতাদের শান্তি কামনায় দোয়া হয়। পরে সবার সঙ্গে কুশল বিনিময় শেষে মতামত নেন তারেক রহমান। সভা পরিচালনা করেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। যথাক্রমে চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা, দলের ভাইস চেয়ারম্যান ও স্থায়ী কমিটির সদস্যদের বক্তব্য শোনেন ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান। সবশেষ তিনি বক্তব্য রাখেন। সবাইকে এলাকামুখী হওয়ার তাগিদ ছিল তার বক্তব্যে।

এদিকে অনেকদিন পর এমন বৈঠকে সরগরম হয়ে উঠেছে গুলশান রাজনৈতিক কার্যালয়। বৈঠককে কেন্দ্র করে দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। পরিপাটি করে গোছানো হয়েছে পুরো কার্যালয়। ভবনের নিচতলার হলরুমে নেতাদের সাদা কাপড়ে মোড়ানো আসন দেওয়া হয়েছে। ফুল দিয়ে সাজানো মঞ্চের সারিতে বসেন স্থায়ী কমিটির সদস্যরা। স্ক্রিনে অনলাইনে যুক্ত হন ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান।
রোববার দুপুর থেকে ২টা থেকেই বৈঠকে অংশ নিতে একে একে উপস্থিত হন বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির উপদেষ্টা ও ভাইস চেয়ারম্যানরা। দলের স্থায়ী কমিটির সদস্যরাও বৈঠকে অংশ নেন। করোনার কারণে দীর্ঘদিন সাংগঠনিক কার্যক্রম বন্ধ থাকার পর বৈঠকে এসে নেতারা একে-অপরের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন।
বৈঠকের শুরুতে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাংবাদিকদের বলেন, দেশের সার্বিক রাজনৈতিক পরিস্থিতি পর্যালোচনা এবং গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার আন্দোলনে আমাদের কী করণীয় সেসব বিষয়ে নেতাদের মতামত নিতে এই বৈঠক ডাকা হয়েছে।
মঙ্গলবার বিকাল পৌনে ৪টার দিকে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয় এ বৈঠক শুরু হয়। চলে রাত ৯টা পর্যন্ত। বৈঠকে ৭৩ সদস্যের উপদেষ্টা কাউন্সিল ও ৩২ জন ভাইস চেয়ারম্যানের মধ্যে প্রায় ৩৫-৩৬ জন অংশগ্রহণ করেন। এতে সভাপতিত্ব করেন দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান; মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ স্থায়ী কমিটির সদস্যরা উপস্থিত রয়েছেন। 

বৈঠকে স্থায়ী কমিটির সদস্যদের মধ্যে খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার জমিরউদ্দীন সরকার, গয়েশ^র চন্দ্র রায়, ড. আব্দুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু। ভাইস চেয়ারম্যানদের মধ্যে মীর নাসির, হাফিজ উদ্দিন আহমেদ, অ্যাডভোকেট জয়নাল আবদিন, শামসুজ্জামান দুদু, নিতাই রায়চৌধুরী, শওকত মাহমুদ, মাহমুদুল হাসান, অধ্যাপক শাহজাহান মিয়া, আলতাফ হোসেন চৌধুরী, বরকতউল্লা বুলু, শাহজাহান উমর ও আবদুল আউয়াল মিন্টু। উপদেষ্টাদের মধ্যে নাজমুল হক নান্নু, আবদুল হাই শিকদার, ভিপি জয়নাল, শাহজাদা মিয়া, মাহবুব তালুকদার, আতাউর রহমান ঢালী, মশিউর রহমান, শাহিদা রফিক, শামসুল হক, গোলাম আকবর খন্দকার, ডা. মো. আবদুল কুদ্দুস, সাবেক আইজিপি আবদুল কাইয়ুম, ইসমাঈল জবিউল্লাহ, আমানউল্লাহ আমান, গাজী মাজহারুল আনোয়ার, এসএম ফজলুল হক, সুকোমল বড়ুয়া, অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম, একরামুজ্জামান, তৈমূর আলম খন্দকার, ফজলুর রহমান, মনিরুল হক চৌধুরী, আবদুল লতিফ, মিজানুর রহমান মিনু বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

আজ বুধবার দ্বিতীয় দিনের বৈঠকে দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব, যুগ্ম মহাসচিব, সাংগঠনিক সম্পাদক, সম্পাদক ও সহসম্পাদকরা থাকবেন। বৃহস্পতিবার তৃতীয় দিনে বিএনপির অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের কেন্দ্রীয় নেতাদের নিয়ে বসবেন তারেক রহমান। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কারাবন্দি হওয়ার আগে ২০১৮ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি দলের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সর্বশেষ বৈঠক হয়েছিল। তারেক রহমান ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব নেওয়ার পর দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে আনুষ্ঠানিকভাবে এটি প্রথম সিরিজ বৈঠক।

/এমএইচ/




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]