ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা রোববার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১১ আশ্বিন ১৪২৮
ই-পেপার রোববার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

গোপনে ট্রাম্পের ক্ষমতায় লাগাম টেনেছিলেন মার্কিন জেনারেল!
সময়ের আলো ডেস্ক
প্রকাশ: বুধবার, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১০:০৫ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 76

ক্যাপিটল হিলে আক্রমণের পর প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কি-না-কি করে বসেন, সেই শঙ্কা থেকে নজিরবিহীন এক তৎপরতায় প্রেসিডেন্টের ক্ষমতার রাশ টেনে ধরেছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ সামরিক কর্মকর্তা। ওয়াটারগেট কেলেঙ্কারি ফাঁস করে জীবন্ত কিংবদন্তি বনে যাওয়া সাংবাদিক বব উডওয়ার্ড এবং ওয়াশিংটন পোস্টের খ্যাতনামা সাংবাদিক রবার্ট কস্টা তাদের সাম্প্রতিক বইয়ে এমন দাবি করেছেন। 

সিএনএন জানিয়েছে, ট্রাম্প সেনা অভিযান চালানো কিংবা পরমাণু অস্ত্র ব্যবহারের নির্দেশ দিয়ে দিতে পারেন, এমন শঙ্কা থেকে নিজের এখতিয়ারের বাইরে গিয়ে ওই পদক্ষেপ নিয়েছিলেন প্রেসিডেন্টের সামরিক উপদেষ্টা ও সামরিক বাহিনীর কমান্ডার জেনারেল মার্ক মিলে।

২০২০ সালের নির্বাচনে রিপাবলিকান প্রার্থী ট্রাম্প হেরে যাওয়ার পরও কারচুপির অভিযোগ তুলে ফল মেনে নিতে অস্বীকার করেছিলেন। এরই এক পর্যায়ে ট্রাম্প সমর্থকরা ২০২১ সালের ৬ জানুয়ারি যুক্তরাষ্ট্রের পার্লামেন্ট ক্যাপিটল ভবনে হামলা চালায়। যুক্তরাষ্ট্রের রাজনৈতিক ইতিহাসে কালো অধ্যায় হিসেবে বিবেচিত ওই হামলায় ট্রাম্পের উসকানি ছিল বলে অভিযোগ রয়েছে। পেরিল শিরোনামের ওই বইয়ে উডওয়ার্ড ও কস্টা লিখেছেন, ভোটে হেরে যাওয়ার পর ট্রাম্প উন্মাদ হয়ে পড়েন বলেই মনে করছিলেন মিলে।

ওই হামলার দুদিন পর যুক্তরাষ্ট্রের সেনাপ্রধান জেনারেল মার্ক মিলে গোপনে পদক্ষেপ নেন প্রেসিডেন্টের ওপর ছড়ি ঘোরানোর, এমনটাই বলছেন উডওয়ার্ড ও কস্টা। তারা লিখেছেন, ক্যাপিটল ভবনে হামলায় জেনারেল মিলে বড় ঝাঁকুনি খেয়েছিলেন। মিলের উদ্বেগ ছিল, ট্রাম্প এখন যেকোনো কিছু করে বসতে পারেন। তা ঠেকাতে তিনি ৮ জানুয়ারি পেন্টাগনে তার অফিসে গোপন এক বৈঠকে শীর্ষ সামরিক কর্মকর্তাদের ডাকেন বলে ‘পেরিল’ বইয়ে লেখা হয়েছে।

লেখকদ্বয়ের বক্তব্য অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা দফতরের ‘ওয়ার রুম’ এর ওই বৈঠকে জেনারেল মিলে সহকর্মীদের বলেন, সেনা অভিযান কিংবা পরমাণু অস্ত্র ব্যবহারের বিষয়ে তাকে না জানিয়ে যেন কিছু করা না হয়, এমনকি প্রেসিডেন্টের নির্দেশ এলেও। ‘আপনারদের কে কী বলল, সেটা গুরুত্বপূর্ণ নয়, আপনাদের নিয়মের মধ্যে থেকে প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে চলতে হবে। আর আমি এই প্রক্রিয়ার একটি অংশ।’ বলেছিলেন তিনি।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]