ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১ ৩ কার্তিক ১৪২৮
ই-পেপার সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

মিরপুরে ড্রামে লাশ: টাকা আত্মসাৎ করতেই খুন
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১০:১৬ এএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 52

রাজধানীর মিরপুরে লাভ রোড এলাকায় ড্রাম থেকে উদ্ধার  লাশের পরিচয় শনাক্তসহ হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটনের দাবি করেছে পুলিশ।

বাহিনীটি জানিয়েছে, নিহত যুবকের নাম জুয়েল রানা। তিনি একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের বিক্রয়কর্মী ছিলেন। পণ্য ডেলিভারির টাকা আত্মসাৎ করতেই  তাকে হত্যা করা হয়েছে।

এর আগে বৃহস্পতিবার রাত ২টার দিকে অজ্ঞাতপরিচয় হিসেবে জুয়েলের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে ইতোমধ্যে জুয়েলের বন্ধুসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে বাহিনীটি। পুলিশ বলছে, নিহতের গেঞ্জিতে থাকা একটি লেখার সূত্র ধরে হত্যারহস্য উদঘাটন করা হয়েছে। 

রোববার বিকেলে রাজধানীর মিরপুর উপপুলিশ কমিশনার কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান উপপুলিশ কমিশনার এএসএম মাহাতাব উদ্দিন। 

তিনি বলেন, ‘লাশ উদ্ধারের পর কোনো ক্লু পাওয়া যাচ্ছিল না। পরে জুয়েলের পরনের গেঞ্জিতে থাকা একটি লেখা ‘সাফল্যের পথে একসাথে’ সূত্র ধরে তার পরিচয় পাওয়া যায়। তদন্তে নেমে হত্যাকাণ্ডে জড়িত তিনজনকে শনাক্ত ও গ্রেপ্তার করা হয়। এদের কাছ থেকে সাত হাজার টাকা ও একটি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়।’

তিনি বলেন, ‘দুটি আলাদা প্রতিষ্ঠানে ডেলিভারিম্যান হিসেবে চাকরি করতেন জুয়েল ও মিরাজ। তারা আগে থেকেই পরিচিত ও বন্ধু ছিলেন। মিরাজের টাকার প্রয়োজন হলে লোভে পড়ে বন্ধু জুয়েলের পণ্য ডেলিভারির টাকা আত্মসাতের ফাঁদ পাতেন তিনি। জুয়েলের কাছে থাকা প্রতিদিনের ডেলিভারির প্রায় ৭০ থেকে ৮০ হাজার টাকা নেয়ার জন্যই তাকে হত্যা করা হয়।’

ডিসি বলেন, ‘মিরাজ নিজে সাহস না পাওয়ায় তার পরিচিত সাইফুল সোহাগ ও রাসেলকে সঙ্গে নেয়। তারা তিনজন জুয়েলকে তাদের প্রতিষ্ঠানের একটি কাভার্ড ভ্যানে ওঠায়। একপর্যায়ে টাকা ছিনিয়ে নিতে গেলে ধস্তাধস্তি শুরু হয়। 

‘তখন পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী সঙ্গে থাকা রশি জুয়েলের গলায় পেঁচিয়ে হত্যা করে তারা। লাশের পরিচয় যেন শনাক্ত না হয়, সেজন্য ড্রামে ভরে লাভ রোডের হাউজিং স্টেটের সরকারি অফিসের উল্টো দিকের একটি জায়গায় ফেলে যায়। জুয়েলের কাছ থেকে নেয়া টাকা ফেরত না দিতেই তাকে হত্যা করেছে বলে প্রাথমিকভাবে পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে আসামিরা।’


আরও সংবাদ   বিষয়:  মরদেহ   ড্রাম  




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]