ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১ ৩ কার্তিক ১৪২৮
ই-পেপার সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

গল্পের ধরন বদলেছে, পরিবারনির্ভর নাটক কমে গেছে
গাজী আনিস
প্রকাশ: বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৭:৩৩ এএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 87

আজিজুল হাকিম। চার দশক ধরে অভিনয়ে যুক্ত তিনি। মঞ্চ, টেলিভিশন নাটক ও সিনেমায় তার অনন্য অবস্থান। দীর্ঘদিন পর মঞ্চনাটকে ফিরছেন তিনি, পাশাপাশি যুক্ত হয়েছেন নতুন সিনেমায়। নাটক ও সিনেমা নিয়ে কথা বলেছেন সময়ের আলোর সঙ্গে। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন গাজী আনিস

বর্তমান ব্যস্ততা কী নিয়ে চলছে?
নির্মাতা এসএ হক অলিকের ‘গলুই’ চলচ্চিত্র নিয়ে ব্যস্ত আছি। ২৫ সেপ্টেম্বর কাজ শুরু হবে। এ ছাড়া বিভিন্ন চ্যানেলে কিছু ধারাবাহিক নাটক প্রচার হচ্ছে। সেগুলো হলোÑ ‘গোলমাল’, ‘বকুলপুর’, ‘দেনা পাওনা’ ইত্যাদি। আর মুজিববর্ষের একটা মঞ্চনাটকে কাজ করা হচ্ছে। নাটকটির নাম ‘জনকের অনন্তযাত্রা’। যেখানে আমাকে মুখ্য চরিত্রে দেখা যাবে।
‘জনকের অনন্তযাত্রা’ নিয়ে এরই মধ্যে আলোচনা চলছে। এ নিয়ে জানতে চাই।
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার পর তার মরদেহ যখন টুঙ্গিপাড়ায় নিয়ে যাওয়া হয়, তখনকার কিছু ঘটনা নিয়ে নাটকটি। ৩ থেকে ১০ ডিসেম্বর ৭ দিন শিল্পকলা একাডেমিতে প্রদর্শনী হবে। আমি অভিনয় করব মাওলানা আব্দুল হালিমের চরিত্র। যিনি বঙ্গবন্ধুকে গোসল করিয়েছিলেন ও জানাজা পড়িয়েছিলেন। ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুকে গোসল ছাড়া দাফন দিতে চাচ্ছিলেন কেউ কেউ। মাওলানা আব্দুল হালিম প্রতিবাদ করে শরিয়তসম্মতভাবে বঙ্গবন্ধুকে দাফন-কাফন করেন।
‘গলুই’ চলচ্চিত্রে আপনার ভূমিকা কী থাকবে?
আমি মাঝির চরিত্রে অভিনয় করছি। আমার ছেলের চরিত্রে অভিনয় করবে শাকিব খান। আমার সঙ্গে শাকিবের শৈশবের ঘটনাগুলো পর্দায় দেখা যাবে। ছবির মাঝামাঝি সময়ে মাঝি মারা যাবে। যে কারণে শাকিবের সঙ্গে চলচ্চিত্রে আমার সাক্ষাৎ হবে না।
সিনেমায় আপনার উপস্থিতি কম কেন?
আমি চলচ্চিত্র অভিনেতা হতে চাইনি, এমন নয়। কিন্তু নাটকে একসময় আমার তুমুল ব্যস্ত সময় কেটেছে। তাই নাটকের জনপ্রিয়তা ছেড়ে সিনেমায় নিয়মিত হতে চাইনি। অনেক প্রস্তাব পেলেও তখন আর এগোইনি।
আমাদের মঞ্চনাটক দেশ-বিদেশে এখন সুনাম কুড়াচ্ছে। তবু একজন শিল্পী সেখানে ক্যারিয়ার গড়তে পারছেন না। কারণগুলো কী মনে করেন?
মঞ্চে আমরা এখনও পেশাদারিত্বের জায়গায় পৌঁছতে পারিনি। নাটকে আমরা যারা চর্চা শুরু করেছিলাম, তারা একেবারেই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। ঘরের খেয়ে বনের মোষ তাড়ানোর মতো অবস্থা। এখানে পেশা গড়ার কোনো সুযোগ ছিল না। এ ছাড়া মঞ্চকে আজ আমরা যে অবস্থানে নিয়ে এসেছি, সেখানেও পেশা গড়ার সুযোগ নেই। যদি দেশজুড়ে সারা বছর মঞ্চনাটকের কাজ করার সুযোগ হয়, তখন হয়তো সম্ভব। তবে আমাদের সংস্কৃতি জগতের সার্বিক যে অবস্থা, আমার মনে হয় না মঞ্চনাটককে পেশা হিসেবে নেওয়ার সুযোগ আছে।
দেশের টিভি নাটকের অবস্থা কেমন দেখছেন?
টেলিভিশন নাটক এখন ইউটিউবনির্ভর হয়ে গেছে। কনটেন্ট ছোট হয়ে গেছে। তার পরও স্পন্সরের মাধ্যমে টেলিভিশন নাটক হচ্ছে। চ্যানেলগুলোর এখন মূল অনুষ্ঠান কিন্তু টেলিভিশন নাটক। তবে এখানে চরিত্রের সংখ্যা কমে গেছে। গল্পের ধরন বদলে গেছে, পরিবারনির্ভর নাটক কমে গেছে। এখন বয়স্ক শিল্পী যারা আছেন সময়ের সঙ্গে নিজেকে রূপান্তর করতে না পারলে হারিয়ে যাবেন। পাশের দেশ ভারতে বয়স্ক শিল্পীদের কেন্দ্র করে গল্প লেখা হয়, নাটক নির্মাণ করা হয়, আমাদের দেশে বাজেটের কারণে কেউ সে রিস্ক নিতে চাচ্ছেন না। চ্যানেলগুলো যদি বাজেটের বিষয় চিন্তা না করে ভালো গল্পের নাটক চান আমার মনে হয় ভালো নাটক উপহার দেওয়া যাবে।
নাটকের প্রতি মানুষের আগের সেই অপেক্ষা দেখা যাচ্ছে না, এ নিয়ে কী বলবেন?
এখন সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে ধারাবাহিক নাটকও পরিবর্তন হচ্ছে। আগে বিটিভির নাটকের জন্য মানুষ অপেক্ষা করত, এখন ইউটিউব, ওটিটি কত কী আছে। মানুষের টেস্ট পরিবর্তন হচ্ছে; তবে আমাদের ইতিবাচকভাবে এগোতে হবে। এখন যে ভালো নাটক হচ্ছে না, এমন নয়Ñ আমি এমন গড় মন্তব্য করতে চাই না। ভালো নাটক হচ্ছে, হয়তো আমরা দেখার সুযোগ পাই না।
নাটকের শব্দচয়ন ও বাক্যগঠন নিয়েও বিতর্ক হচ্ছেÑ এক্ষেত্রে কী বলবেন?
নাটকের প্রয়োজনে বিভিন্ন শব্দ-বাক্য আসে। দর্শক না দেখতে চাইলে দর্শক পরিহার করবেন। এটা যদি ধারাবাহিকভাবে হতে থাকে তাহলে মেনে নেওয়া যাবে না।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]