ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা বৃহস্পতিবার ২১ অক্টোবর ২০২১ ৬ কার্তিক ১৪২৮
ই-পেপার বৃহস্পতিবার ২১ অক্টোবর ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

স্টেডিয়াম যেন পুকুর মাঠে ভাসছে কচুরিপানা
আরাফাত ইসলাম মির্জাপুর (টাঙ্গাইল)
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৩:০৫ এএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 54

মির্জাপুর উপজেলা সদরের শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম যেন মাছ চাষের পুকুরে পরিণত হয়েছে। মাঠে পানি জমে সৃষ্ট জলাবদ্ধতা থেকে এমন বেহাল। নামে মিনি স্টেডিয়াম হলেও বছরের অর্ধেক সময়ই কাদা পানিতে অযত্নে-অবহেলায় পড়ে থাকে মাঠটি। বর্ষা মৌসুম এলেই মাঠটি পানিতে ডুবে যায়। 

সূত্র জানায়, ১৯৭৯ সালের ২ এপ্রিল ঢাকা বিভাগীয় উন্নয়ন বোর্ডের অর্থায়নে মির্জাপুর সদরের প্রাণকেন্দ্রে উপজেলা ক্রীড়া ভবন ও খেলার মাঠের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়। এরপর আর কোনো ভবন নির্মাণ ও মাঠের সংস্কার কাজ হয়নি। পরবর্তী সময়ে ২০১৭ সালে মির্জাপুর সদয় কৃষ্ণ মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠটিকে ‘শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম’ নামকরণ করে ক্রীড়া মন্ত্রণালয়। এজন্য স্টেডিয়ামের পশ্চিম পাশে একটি আধুনিক ক্রীড়া ভবন ও দর্শকদের বসার জন্য মাঠের চারপাশে কংক্রিটের বেঞ্চ নির্মাণ করা হয়। সেই সময় অপরিকল্পিতভাবে মাঠে কিছু মাটি ফেলে উঁচু করা হলেও সমস্যার সমাধান হয়নি। সোমবার সরেজমিনে দেখা যায়, স্টেডিয়াম মাঠে হাঁটুপানি। এসব নোংরা পানিতে বিভিন্ন ময়লা-আবর্জনাসহ মাঠে কচুরিপানা ভাসতে দেখা গেছে। দীর্ঘ সময় পানি জমে থাকায় সেখান থেকে মশার উৎপত্তি হচ্ছে। এই স্টেডিয়ামের পূর্ব পাশে রয়েছে মির্জাপুর এসকে পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়, পশ্চিমে ক্রীড়া ভবনের পেছনে ডোবা, উত্তরে কলেজ রোড এবং দক্ষিণে পুরাতন ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক। 

এ ছাড়াও মির্জাপুর পৌরসভার ড্রেনের পানি ও মির্জাপুর বাজারের বিভিন্ন হোটেল ও দোকানের নোংরা পানি মাঠের পাশের ওই ডোবায় গিয়ে পড়ে। যার ফলে বর্ষাকাল এলেই কচুরিপানায় ভর্তি আশপাশের ডোবা-নর্দমার পানি উপচে গিয়ে মাঠে প্রবেশ করে।

মির্জাপুর বাজার একাদশের সাবেক অধিনায়ক কাউছার আহমেদ চপল বলেন, ‘আমি এই মাঠের একজন নিয়মিত ক্রিকেট খেলোয়াড়। ছোটবেলা থেকেই এই মাঠে খেলাধুলা করে বড় হয়েছি। যুব সমাজকে নেশার জগৎ থেকে দূরে রাখতে খেলাধুলার কোনো বিকল্প নেই। কিন্তু এই মাঠটি এভাবে দিনের পর দিন অবহেলায় আর অযত্মে পড়ে থাকায় আমরা খেলাধুলা থেকে বঞ্চিত হচ্ছি। আমি দ্রুত মাঠটি সংস্কার কাজের অনুরোধ করছি।’
 
উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক খেলোয়াড় মো. মনিরুজ্জামান মনির বলেন, স্থানীয় এমপির সার্বিক সহযোগিতায় খেলার মাঠটি বর্তমানে শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম নামকরণ করে কিছু অবকাঠামো নির্মাণ করা হয়েছে। তবে স্টেডিয়ামটির কিছু উন্নয়ন করা হলেও তা প্রয়োজনের তুলনায় কম হওয়ায় একটু বৃষ্টি হলেই সৃষ্টি হচ্ছে জলাবদ্ধতা। আমরা আশা করছি এ বিষয়ে সংশ্লিষ্টরা পদক্ষেপ নিলে এই সমস্যার সমাধান হবে। 

মির্জাপুর ইউএনও ও উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি মো. হাফিজুর রহমান বলেন, মাদকমুক্ত সমাজ গঠন এবং তরুণ ও যুব সমাজকে খেলাধুলার প্রতি আগ্রহী করে গড়ে তুলতে সুষ্ঠু পরিবেশে খেলার মাঠের কোনো বিকল্প নেই। আমি শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম এবং ক্রীড়া সংস্থার ভবন পরিদর্শন করেছি। স্থানীয় সংসদ সদস্য ও ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে পরামর্শ করে তাদের সার্বিক সহযোগিতায় স্টেডিয়াম ও ক্রীড়া সংস্থা ভবনটির দ্রুত উন্নয়ন করা হবে।

সময়ের আলো// এসএ


আরও সংবাদ   বিষয়:  মির্জাপুর   টাঙ্গাইল  




এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ


সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]