ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা মঙ্গলবার ৩০ নভেম্বর ২০২১ ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
ই-পেপার মঙ্গলবার ৩০ নভেম্বর ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

শাড়ি ভালো রাখতে
জীবন যখন যেমন ডেস্ক
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ৫ অক্টোবর, ২০২১, ১:৪৩ পিএম আপডেট: ০৫.১০.২০২১ ২:৩৮ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 604

যে শাড়ি নারীকে সুন্দরভাবে ফুটিয়ে তোলে সেই শাড়িরও বিশেষ যত্ন নেওয়া প্রয়োজন। অনেকের আলমারি শাড়িতে ভরা, কিন্তু দেখা যায় সঠিক যত্নের অভাবে নতুন শাড়ি নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। শাড়ি রাখার তাকে যেমন থাকে প্রতিদিনের ব্যবহারের শাড়ি, তেমনি জামদানি-মসলিনের মতো শাড়িগুলোও থাকে। কাপড় অনুযায়ী একেক ধরনের শাড়ির যত্ন একেক রকম। জেনে নিন দীর্ঘদিন শাড়ি ভালো রাখতে চাইলে কোন শাড়ির কীভাবে যত্ন নেবেন।

কাপড় রাখার স্থানটি যথেষ্ট শুকনো হতে হবে, নাহলে ছত্রাকের সংক্রমণের কারণে শাড়ি নষ্ট হয়ে যাবে। তাঁত, কটন ও লিনেনের শাড়ি প্রথমবার ধোয়ার আগে খনিজ লবণ মিশ্রিত পানিতে কিছুক্ষণ ভিজিয়ে রাখুন। এতে রঙ ভালো থাকবে ও দীর্ঘস্থায়ী হবে। লিনেন, জর্জেট বা শিফনের শাড়ি নরম ডিটারজেন্টে শ্যাম্পু মিশিয়ে হাতে কাচুন। নিংড়ে পানি ঝরাবেন না। রোদে না দিয়ে ছায়ায় এ ধরনের শাড়ি শুকান। সুতি ও লিনেন শাড়ি হালকা ভাঁজ করে কাঠের হ্যাঙারে ঝুলিয়ে রাখা ভালো। শিফন ও জর্জেট শাড়িতে কখনও সেফটিপিন আটকাবেন না।

জামদানি শাড়ি একই ভাঁজে দীর্ঘদিন রাখবেন না। কারণ ভাঁজের অংশ ফেটে যেতে পারে। কাপড় প্যাঁচানোর রোলারে প্যাঁচিয়ে রাখুন জামদানি শাড়ি। জামদানি শাড়ি ড্রাই ওয়াশ করান। অনেকদিন ব্যবহারে যদি শাড়ি নরম হয়ে যায় তাহলে কাটা করিয়ে নিন।

সিল্কের শাড়ির ঔজ্জ্বল্য ফেরাতে পাঁচ লিটার পানিতে পাঁচ চামচ সাদা ভিনিগার মিশিয়ে তাতে শাড়ি কিছুক্ষণ ভিজিয়ে রাখুন। তারপর পানি দিয়ে হালকা করে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিন। তোয়ালেতে শাড়িটা চেপে পানি শুষে ছায়ায় মেলে দিন।

টাঙ্গাইলের সুতির শাড়ি আয়তাকারে ছোট ছোট ভাঁজ করে রাখতে পারেন। মাঝেমধ্যে ওপরের শাড়ি নিচে এবং নিচের শাড়ি ওপরে- এভাবে উল্টেপাল্টে দেবেন। পোকার হাত থেকে রক্ষার জন্য শাড়ির ভাঁজে ন্যাপথালিন, কালোজিরা, নিমপাতা ইত্যাদি দিয়ে রাখুন। 

শাড়ির ওপর সরাসরি সুগন্ধি স্প্রে করবেন না। শাড়ির ওপর নরম সুতির কাপড় রেখে মাঝারি তাপে ইস্ত্রি করুন এবং অবশ্যই উল্টো দিক থেকে। সুতির শাড়ি হালকা মাড় দিয়ে ইস্ত্রি করে রাখলে ভালো থাকবে। ব্যবহৃত শাড়ি ৩ মাস পরপর ও অব্যবহৃত শাড়ি ৬ মাস পর বের করে ধুতে হবে।

আলমারি বা ট্রাঙ্ক যেখানেই শাড়ি রাখুন না কেন, খেয়াল রাখুন যেন ফুটো না হয় নতুবা তেলাপোকা বা ইঁদুরে কাটতে পারে শাড়ি। স্টিলের আলমারিতে মরিচা পড়ছে কি না খেয়াল রাখুন, মরিচায় শাড়ি নষ্ট হয়। কাঠের আলমারি ঘুণে ধরেছে কি না, সেদিকেও নজর রাখুন। বাইরে থেকে এসে কিছুক্ষণ বাতাসে রেখে শাড়ির ঘাম শুকিয়ে নিতে হবে, নতুবা দাগ পড়তে পারে।


আরও সংবাদ   বিষয়:  রুবাইয়া রীতি   শাড়ির যত্ন   শাড়ি  




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]