ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা মঙ্গলবার ৩০ নভেম্বর ২০২১ ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
ই-পেপার মঙ্গলবার ৩০ নভেম্বর ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

শৃঙ্খলা ভঙ্গ : চবি ছাত্রলীগের ১২ নেতাকর্মী বহিষ্কার
চবি প্রতিনিধি
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর, ২০২১, ৪:৫৬ এএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 94

কয়েক দফা সংঘর্ষের পর চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয় (চবি) শাখা ছাত্রলীগের ১২ নেতাকর্মীকে বহিষ্কার করেছে কর্তৃপক্ষ। এদের মধ্যে ১০ জনকে ৬ মাস এবং বাকি দুজনের এক বছরের জন্য ক্লাস, পরীক্ষা ও ক্যাম্পাসে অবস্থান নিষিদ্ধ করা হয়েছে। গত রোববার রাতে বিশ^বিদ্যালয়ের বোর্ড অব হেলথ, রেসিডেন্স অ্যান্ড ডিসিপ্লিনারি কমিটি এই সিদ্ধান্ত নেয়। 

এর আগে শাখা ছাত্রলীগের বিবদমান দুপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে সমাধানের চেষ্টা করলেও সফল হননি প্রশাসন।

সংঘর্ষে জড়িত থাকায় এক বছরের জন্য বহিষ্কৃত হয়েছেন আইন বিভাগের ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের মির্জা কবির সাদাফ। ছয় মাসের জন্য বহিষ্কৃত হয়েছেন- লোকপ্রশাসন বিভাগের ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের অহিদুজামান সরকার, সমাজতত্ত্ব বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের আরিফুল ইসলাম, আইন বিভাগের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের খালেদ মাসুদ, কম্পিউটার সায়েন্স বিভাগের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের তানজিল হোসেন ও আরবি বিভাগের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের তৌহিদ ইসলাম। এদের সবাই শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল হক রুবেলের অনুসারী।

অন্যদিকে সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন টিপুর অনুসারীদের মধ্যে এক বছরের জন্য বহিষ্কৃত হয়েছেন রসায়ন বিভাগের ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের আশরাফুল আলম নায়েম। ছয় মাসের জন্য বহিষ্কৃত হয়েছেন- অর্থনীতি বিভাগের ২০১১-১২ শিক্ষাবর্ষের ফরহাদ, ইতিহাস বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের জুনায়েদ হোসেন জয়, পরিসংখ্যান বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের আকিব জাভেদ, আধুনিক ভাষা শিক্ষা ইনস্টিটিউটের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের মো. নাঈম ও বাংলা বিভাগের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের সাইফুল ইসলাম।

বিষয়টি নিশ্চিত করে প্রক্টর ড. রবিউল হাসান ভূঁইয়া বলেন, গত বৃহস্পতিবার থেকে বিবদমান দুপক্ষের কর্মীরা জড়িত থাকার বিষয়ে আমরা তথ্য পেয়েছি। তাদের কেউই আর বহিষ্কারের মেয়াদকালে ক্যাম্পাসে অবস্থান কিংবা ক্লাস, পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবে না। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার পরিবেশ এবং শৃঙ্খলা রক্ষার স্বার্থে আমরা উপযুক্ত সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য।

উল্লেখ্য, গত ১৪ অক্টোবর সন্ধ্যায় বাংলা বিভাগের ১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের শিহাব আরমান মনির নামে সিক্সটি নাইন পক্ষের এক কর্মীকে মারধর করে চুজ ফ্রেন্ডস উইথ কেয়ার (সিএফসি) পক্ষের কর্মীরা। এর জের ধরে শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে সিএফসির কর্মীরা আমানত হলে প্রবেশ করতে গেলে সিক্সটি নাইন পক্ষের কর্মীরা তাদের ওপর হামলা করে। পরে উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে দুই ছাত্রলীগ কর্মী আহত হন। সর্বশেষ রোববার রাতে সাবেক সহসভাপতি এবং সিএফসি পক্ষের নেতা আল আমিন রিমনকে মারধর করার সময় পুলিশ এসে উদ্ধার করে। পরবর্তীতে শাহজালাল ও শাহ আমানত হলে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এরপর রাতে ডিসিপ্লিনারি কমিটির মিটিংয়ে ঘটনায় জড়িতদের বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত জানানো হয়।


আরও সংবাদ   বিষয়:  চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়   ছাত্রলীগ  




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]