ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা মঙ্গলবার ৩০ নভেম্বর ২০২১ ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
ই-পেপার মঙ্গলবার ৩০ নভেম্বর ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

সাম্প্রদায়িক হামলায় জড়িতদের দ্রুত বিচার দাবি ঢাবি শিক্ষক সমিতির
ঢাবি প্রতিবিধি
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর, ২০২১, ৩:১১ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 91

সারাদেশে সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি। এ সময় সাম্প্রদায়িক হামলায় জড়িতদের দ্রুত সময়ের মধ্যে বিচারের দাবি জানানো হয়।

মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) সকাল ১১টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা ভবনের সামনে অপরাজেয় বাংলা ভাস্কর্যের পাদদেশে শিক্ষক সমিতির আয়োজনে এ মানববন্ধনটি অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. মো আখতারুজ্জামান বলেন, মাঝেমধ্যেই বাংলাদেশের মতো অসাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশে অপশক্তি মাথা চাড়া দিয়ে ওঠে। এতে বিভিন্ন ঘটনা সৃষ্টি হয়, যা আমাদের জাতির জন্য খুবই দুর্ভাগ্য ও দুঃখজনক। দুঃখজনক হলেও সত্যি এ ধরনের অপশক্তি বিভিন্ন সময় সুযোগ নিয়ে আমরা যে সম্প্রীতির বন্ধনে আমরা থাকি তা বিনষ্ট করে, যা কোনোভাবেই কাম্য নয়।

তিনি আরও বলেন, সরকারসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তদন্ত করে এই ঘটনাগুলো কারা ঘটিয়েছে, তা চিহ্নিত করে তাদের শাস্তি দেওয়া এখন জরুরি কাজ। এটি যদি না করা হয়, তাহলে ভবিষ্যতেও নানা সময়ে নানা সুযোগে এই অপশক্তি আমাদের অসাম্প্রদায়িক, সম্প্রীতির বন্ধনকে নষ্ট করার অপতৎপরতায় লিপ্ত হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রাব্বানী বলেন, মণ্ডপে যারা আক্রমণ করেছে, তারা কোরআনকে অবমাননার পাশাপাশি হিন্দু ধর্মের গ্রন্থগুলোকে অবমাননা করেছে। এতে বোঝা যায়, তাদের কোনো ধর্মগ্রন্থের প্রতি সম্মান নাই। আমার মনে হয়, ১৯৭১ সালেও এত নির্বিঘ্নে অন্য সম্প্রদায়ের মানুষকে আক্রমণ করা হয়নি। কুমিল্লার ঘটনা কিছু মানুষ প্রতিহত করেছে। কিন্তু নোয়াখালীর ঘটনা আমাদের অবাক করেছে। নোয়াখালীর ঘটনায় কৌশলগত পরিবর্তন আনা হয়েছে। এ সময় তিনি যারা প্রকৃত দোষী, তারা সংখ্যায় যত বেশিই হোক তাদের বিচারের দাবি জানান।

সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. সাদেকা হালিম বলেন, এসব সাম্প্রদায়িক হামলায় আমরা শুধু মাদরাসা শিক্ষার্থীদের দিকে নজর দিয়েছি, অন্যদের দিকে নজর কমিয়ে দিয়েছি। কিন্তু গবেষণায় এটাও উঠে এসেছে যে, জেনারেল শিক্ষায় শিক্ষিত ছেলেরাও আজকে এসব ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্ত হচ্ছে। সুতরাং এটা স্পষ্ট যে সামনের নির্বাচনকে কেন্দ্র করে একটা স্পেসিফিক স্ট্যাটেজি নেওয়া হয়েছে সাম্প্রদায়িকতাকে উস্কে দেওয়ার।  

ক্রিমিনোলজি বিভাগের অধ্যাপক ড. জিয়াউর রহমান বলেন, নোয়াখালীর ইসকন মন্দিরে দুইজন মানুষকে হত্যা করা হয়েছে। তাদের মধ্যে একজন বিশ বছরের তরুণ, যাকে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। বীভৎস দৃশ্য, আমরা জানি কোনো ধর্মই খাবার গ্রহণের সময় এভাবে ধ্বংসযজ্ঞ চালানোকে সমর্থন করে না। কিন্তু এখানে তাই-ই হয়েছে। এমন ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও দ্রুত সময়ের মধ্যে বিচার হওয়া উচিত।

মানববন্ধন শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের নাট্যকলা বিভাগের পরিবেশনায় সাম্প্রদায়িক হামলার বিরুদ্ধে নাটক পরিবেশন করা হয়।

/জেডও/




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]