ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা সোমবার ৬ ডিসেম্বর ২০২১ ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
ই-পেপার সোমবার ৬ ডিসেম্বর ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

তামান্নাদের ভর্তিযুদ্ধে পাশে দাঁড়াল তিতুমীর কলেজ ছাত্রলীগ
মামুন সোহাগ
প্রকাশ: শনিবার, ২৩ অক্টোবর, ২০২১, ৬:৪৮ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 923

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষের স্নাতকের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় তামান্না, মামুনসহ মোট তিনজনের সিট পড়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উদয়ন স্কুল এন্ড কলেজে। তখন ১০ টা বেজে ৪০ মিনিট। পরীক্ষা শুরু হতে আর ২০ মিনিট বাকি। কিন্তু ভুলক্রমে কেন্দ্র ভুলে তারা চলে এসে রাজধানীর সরকারি তিতুমীর কলেজে। চোখেমুখে একরাশ হতাশা নিয়ে তিতুমীর কলেজ ছাত্রলীগের সঙ্গে যোগাযোগ করে তারা। মুহুর্তেই যেন মিটে গেল সমস্যা! 

শনিবার (২৩ অক্টোবর) ঘটনাটি শোনার পরপরই তিতুমীর কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. রিপন মিয়া ও সাধারণ সম্পাদক মোটরসাইকেলে করে দ্রুত শিক্ষার্থীদেরকে নির্দিষ্ট পরীক্ষার কেন্দ্রে পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করেন। 

পরিক্ষার্থী তামান্নার বাবা হাজের আলী রাজধানীর ক্যান্টনমেন্টে থাকেন। তিনি সময়ের আলোকে বলেন, যারা আমার মেয়েকে এমন বিপদের মুহুর্ত থেকে বাঁচালো আমি তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই। সত্যি খুব বড় ঝামেলা হয়ে যেতো আমার মেয়ের জন্য। ঢাবিতে পড়ার স্বপ্নটা সত্যি হতো না হয়তো।

বাইকযোগে শিক্ষার্থীদের তিতুমীর কলেজ থেকে উদয়ন স্কুল এন্ড কলেজে পৌঁছে দেন শুভ আহমেদ ও আবদুল্লাহ আছিম। এমন দুঃসসয়ে শিক্ষার্থীদেরকে সহযোগিতা করতে পেরে শুভ আহমেদ সময়ের আলোকে জানান, ভুলকরে তিতুমীর কলেজে কেন্দ্রে এসেছিল দুইজন মেয়ে ও একজন ছেলে। আমরা শোনামাত্রই তাদেরকে সহযোগিতা করেছি। রাস্তায় অনেক ঝুঁকি নিয়ে দ্রুত গিয়েছি। কারওয়ান বাজারের গলি দিয়ে যাওয়ার সময় একবার মনে হচ্ছিলো ঠিকমতো তাদের পৌঁছে দিতে পারবো কিনা। যখন ঢাবিতে পৌঁছুলাম তখন দশ মিনিট পার হয়েছে পরীক্ষা শুরুর। 

তিনি আরও বলেন, তিতুমীর কলেজ ছাত্রলীগের জুয়েল ভাই আর রিপন ভাই যেমন সহযোগিতা করেছেন তেমনই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সঞ্জিত দাদা ও সাদ্দাম ভাইও বেশ সহযোগিতা করেন। পরে তিনজন শিক্ষার্থীকেই হলে প্রবেশ করাতে পেরেছি। অনেক বেশি ভালো লাগা কাজ করছিলো তখন! 

এ বিষয়ে সরকারি তিতুমীর কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি মো. রিপন মিয়া বলেন, অন্যান্য দিনের মতো আজও আমরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় শিক্ষার্থীদের মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিয়ে সহযোগিতা করছিলাম। তখন দেখলাম তিনজন শিক্ষার্থী কান্নাকাটি করছেন। তারা ভুল করে সরকারি তিতুমীর কলেজ কেন্দ্রে চলে এসেছেন। পরীক্ষা শুরুর তখন মাত্র বিশ মিনিট বাকি। তখন আমার ও সেক্রেটারির মোটরসাইকেলে করে আমাদের দুজন কর্মীর মাধ্যমে তাদেরকে উদয়ন স্কুল কেন্দ্রে পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করি। পরে তারা পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পেরেছে। 

এবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) ছাড়াও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি), রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি), খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় (খুবি), শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (শাবিপ্রবি), বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় (বেরোবি), বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় (ববি) ও বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

/আরএ/




এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ


সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]