ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা  বুধবার ৮ ডিসেম্বর ২০২১ ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
ই-পেপার  বুধবার ৮ ডিসেম্বর ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

নতুন শুরুতে লঙ্কা চ্যালেঞ্জ
রাজু আহাম্মেদ, শারজা থেকে
প্রকাশ: রোববার, ২৪ অক্টোবর, ২০২১, ৮:৫১ এএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 148

ভরদুপুর। তপ্ত মরু তখন আরও উত্তপ্ত। এমন উত্তাপের মধ্যেই দুবাই প্রবাসী বাংলাদেশি ট্যাক্সিচালক ভুল করে নামিয়ে দিলেন শারজা স্টেডিয়ামের পেছন দিকে। সেখানকার গেট দিয়ে ঢুকতেই নিরাপত্তারক্ষী পথ রুদ্ধ করে হিন্দিতে বললেন, ‘আপলোগ কাহা রুখি। ইধারসে স্টেডিয়াম কা মূল গেট তো বহুত দূর’-এই বলে তিনি পথ দেখিয়ে দিলেন। সেই পথেই হাঁটা শুরু তড়িঘড়ি করে। কিন্তু গন্তব্য আর নাগালে আসে না। প্রায় আধ ঘণ্টা গায়ের চামড়া পোড়ানো রোদের মধ্যে হেঁটে অবশেষ পৌঁছালাম মূল ফটকের সামনে। সেটি পেরিয়ে ভেতরে যাওয়ার আগ পর্যন্ত শারজাজুড়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আমেজ কোনোভাবেই টের পাওয়া গেল না।

আবহ যখন এমন তখন ঘেমে-নেয়ে একাকার হয়ে প্রেসবক্সে (গ্যালারির একটা অংশ, যেখানে আসন সংখ্যা ৩০) প্রবেশ করে খেলাম আরেক ধাক্কা- কোনো আসন ফাঁকা নেই। সব আসন অবশ্য বাংলাদেশ থেকে আইসিসির এই মেগা ইভেন্ট কাভার করতে আসা সংবাদকর্মীদেরই দখলে। তবু কাজ শুরুর প্রস্তুতি নিলাম। কিন্তু সেখানে উপস্থিত আইসিসির দুজন মিডিয়া ম্যানেজার জানালেন, আজ (শনিবার) আর এখানে কাজ করা যাবে না। বাংলাদেশ দল যখন অনুশীলন করে চলে গেছে, এখন তোমরাও বিদায় হও বাছা! ভাবখানা এর থেকেও বেশি অশালীন! বাধ্য হয়েই বেরিয়ে আসা, পরে বাইরে জায়গা খুঁজে নিয়ে বিশ্বকাপের খবরাখবর পাঠকের কাছে পৌঁছে দেওয়ার এই প্রয়াস।

এরপর বুঝতে আর কারও বাকি থাকার কথা নয়, মরুর বুকে এদিন কতটা চড়াই-উতরাই পার হতে হয়েছে এই প্রতিবেদককে। এর সঙ্গে চাইলে বাংলাদেশ দলের এই বিশ্বকাপ অভিযানটাকেও মিলিয়ে নিতে পারেন। নিরঙ্কুশ ফেবারিট হয়ে প্রথম পর্বের মোড়কে বাছাইপর্ব খেলতে ওমান গিয়েছিল টাইগাররা। কিন্তু প্রথম ম্যাচে স্কটল্যান্ডের কাছে অপ্রত্যাশিত হারে তাদের টিকে থাকাটাই পড়ে যায় শঙ্কার মুখে। পরের দুই ম্যাচে অবশ্য দাপট দেখিয়ে জয় তুলে নিয়েই বাছাইয়ের গণ্ডি পেরিয়েছে মাহমুদউল্লাহর দল। তবে গ্রুপসেরা হয়ে নয়, গ্রুপ রানার্সআপ হয়ে। যে কারণে তাদের জায়গা হয়েছে সুপার টুয়েলভ পর্বের এক নম্বর গ্রুপে, যেখানে তাদের প্রথম ম্যাচ আজ। শারজায়, প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা।

অনেক ঝড়-ঝাপ্টা আর খনাখন্দ পেরিয়ে টিম বাংলাদেশ এখন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মূলমঞ্চে, নতুন চ্যালেঞ্জের সামনে দাঁড়িয়ে। সেই চ্যালেঞ্জ আরও কঠিন হয়ে উঠেছে অনুশীলনের অপ্রতুলতায়। শুক্রবার ওমান থেকে আরব আমিরাতে পাড়ি জমানো টাইগাররা শনিবারই কেবল এক সেশন অনুশীলন করতে পেরেছে। সেখানেও অবশ্য দলের সব সদস্যকে দেখা যায়নি। সাকিব আল হাসান, লিটন দাস আর মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন অনুশীলনে হাজির না হয়ে বিশ্রামকেই প্রাধান্য দিয়েছেন। তপ্ত মরুতে এটুকু পথ চলাতেই তারা ক্লান্ত! এখনও যে আরও অনেক পথ বাকি, তাহলে সেই পথ তারা পাড়ি দেবেন কীভাবে? নতুন মিশনে বরং আরও কঠিন কঠিন দেয়াল টপকানোর চ্যালেঞ্জ নিতে হবে, সাকিবরা কি তা ভুলে গেলেন নাকি?

হয়তো আজকের প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা খুব চেনা বলেই টাইগারদের ঢিলেঢালা অনুশীলন। দুপুরের প্রখর রোদও এর আরেকটি অন্যতম কারণ হতে পারে। কিন্তু শারজায় ম্যাচটা তো আজ শুরু হবে দুপুর ২টায়। ফলে এমন গা জ্বালানো রোদের মধ্যেই খেলতে হবে টাইগারদের। অবশ্য বিগত কদিনে এতে অভ্যস্ত হয়ে যাওয়ার কথা তাদের। তবে এবারের মধ্যপ্রাচ্য যাত্রায় আজই প্রথম শারজা-দর্শন হয়েছে মাহমুদউল্লাহর দলের। নতুন মিশন শুরুর আগে তাই তাদের পুঁজি বলতে শনিবারের ঘণ্টাদুয়েকের অনুশীলন সেশনটাই। অন্যদিকে শ্রীলঙ্কা দল বেশ আগে থেকেই আছে আরব আমিরাতে। প্রথম পর্বের ম্যাচগুলো তারা এখানেই খেলেছে। তাদের শেষ ম্যাচটা তো আবার ছিল শারজাতেই।

সব মিলে প্রস্তুতির দিক থেকে শ্রীলঙ্কা অনেকটাই এগিয়ে। পারফরম্যান্সেও তাদের ধারাবাহিকতা বেশি। টানা তিন ম্যাচ জিতে বাছাইয়ের গণ্ডি পেরিয়েছে দাসুন শানাকার দল। বাংলাদেশের সেখানে পিঠ ঠেকে গিয়েছিল দেয়ালে। তবে শক্তি আর সামর্থ্যরে বিচারে কোনোভাবেই টাইগারদের থেকে এখন আর এগিয়ে নয় লঙ্কানরা। দুই দলের সবশেষ পাঁচটি টি-টোয়েন্টিতে তো ৩-২ ব্যবধানে মাহমুদউল্লাহর দলই এগিয়ে। সবশেষ দুই ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে তাদেরই মাটিতে হারিয়ে এসেছে টাইগাররা, এবার তাহলে মরুর বুকে জয় নয় কেন? 

প্রস্তুতির দিক থেকে শ্রীলঙ্কা যদি এগিয়েও থাকে, শারজার উইকেট কিন্তু টাইগারদের পক্ষে। এখানে স্পিনাররা বাড়তি সুবিধা পাবেন বলেই ধারণা। আর বাংলাদেশের মূল শক্তি কিন্তু স্পিনই। লঙ্কানরা কিন্তু তা ভালোভাবেই জানে। এমন কন্ডিশনে পেসার মোস্তাফিজুর রহমানও বেশ কার্যকর। তাই সকালে অনুশীলন শেষে দলটির অধিনায়ক শানাকা বললেন, ‘ফিজ আর সাকিবকে নিয়ে আমরা ভাবছি। অন্য যে স্পিনাররা আছে তাদের কথাও ভুলে গেলে চলবে না। তবে আমাদের ভালো পরিকল্পনা আছে। আশা করছি কাল (আজ) ভালো একটি ম্যাচ হবে।’ 

প্রায় সমশক্তির দুই দলের মধ্যে ভালো এবং প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ম্যাচ হবে, এটা মানছেন টাইগার কোচ রাসেল ডমিঙ্গোও। তবে শারজার ছোট বাউন্ডারি পাওয়ার-হিটারহীন বাংলাদেশকে বাড়তি সুবিধা দেবে বলেই মনে করছেন এই প্রোটিয়া। অনুশীলন শুরুর আগে দলের প্রতিনিধি হয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেছেন, ‘যদি উইকেট টু উইকেট বল করা যায়, এখানে স্পিন গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠতে পারে। এলবিডব্লিউ আর বোল্ড দেখা যাবে এখানে। আমরা পাওয়ার-হিটিং সাইড হিসেবে পরিগণিত নই। তাই ছোট বাউন্ডারি আমাদের সুবিধাই দেবে।’

লঙ্কানরা এখানে সম্প্রতি খেলেছে বলেই বাড়তি সুবিধা পাবে, ডমিঙ্গো এমনটা মানতেও নারাজ, ‘আমার মনে হয় না, প্রথম রাউন্ডে যা ঘটেছে, মূলপর্বে সেটা সেভাবে হিসাবে আসবে। আগামীকাল থেকে দুই দলই নতুন করে পথচলা শুরু করবে।’ সেই শুরুটা বাংলাদেশের জয় দিয়েই হোক না। 


আরও সংবাদ   বিষয়:  টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ   বাংলাদেশ ক্রিকেট দল  




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]