ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা  বুধবার ৮ ডিসেম্বর ২০২১ ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
ই-পেপার  বুধবার ৮ ডিসেম্বর ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

সুপার টুয়েল্ভ
আমার বিশ্বাস শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জিতব: অলক কাপালি
প্রকাশ: রোববার, ২৪ অক্টোবর, ২০২১, ৯:০৫ এএম আপডেট: ২৪.১০.২০২১ ৩:২৬ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 132

গ্রুপ বদলে যাওয়াতে একদিক থেকে কিন্তু ভালোই হয়েছে। যদিও দুই নম্বর গ্রুপে নামিবিয়া ও আফগানিস্তান আছে। কিন্তু ভারত, পাকিস্তান ও নিউজিল্যান্ডের মতো দল আছে এখানে। গত এক বছরের পারফরম্যান্স মূল্যায়ন করলে এটা স্পষ্ট যে, এই তিনটি দলই দুর্দান্ত খেলছে। আমাদের মনে রাখতে হবে, এই বিশ্বকাপে একটা লক্ষ্য, একটা স্বপ্ন নিয়েই কিন্তু আমরা অংশ নিচ্ছি। সেমিফাইনাল খেলার আশা করছে দল। তাই সম্ভাবনার জায়গা থেকে দেখলে এক নম্বর গ্রুপে থাকাটা ভালো হয়েছে।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সাম্প্রতিক সময়ে দলটির পারফরম্যান্স ততটা উজ্জ্বল নয়। মূলত দলটি তরুণদের নিয়ে গড়া। লঙ্কানদের একটা ব্যাপার দেখা যায়, মাঠে সামর্থ্যের সর্বোচ্চ সেরাটাই তারা দিতে পারে।

বাছাইপর্বে দারুণ খেলেছে লঙ্কানরা। বোলিংয়ে তাদের মূল শক্তি স্পিন। বাংলাদেশ আর শ্রীলঙ্কা স্পিন শক্তিতে সমান সমান বলা যেতে পারে। তবে পেস বোলিংয়ে বাংলাদেশ এগিয়ে। আজকের ম্যাচে ট্রাম্পকার্ড হতে পারে মোস্তাফিজুর রহমান। এ ছাড়া আমাদের পেস আক্রমণে আছে সাইফউদ্দিন ও তাসকিন। ভালো কিছু করার সামর্থ্য আছে সবারই। 

অভিজ্ঞতার দিক থেকে লঙ্কানদের চেয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ। একটা সময় মনে করা হতো, টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট তরুণদের। কিন্তু বাস্তবে দেখা যাচ্ছে, এই ফরম্যাটেও অভিজ্ঞতার বিকল্প নেই। চাপের মধ্যে অভিজ্ঞতা খুবই কাজ দেয়। আর এই জায়গাটিতে লঙ্কানদের চেয়ে বাংলাদেশ এগিয়ে। 

বাছাইপর্বে শ্রীলঙ্কা খেলেছে দুবাইয়ে। আর বাংলাদেশ ওমানে। অনেকেই মনে করছেন এটা লঙ্কানদের সুবিধা এনে দেবে। আমি কিন্তু সেটা মনে করছি না। কেননা ওমান দুবাইয়ের কন্ডিশন একইরকম। দিনের খেলা হওয়ায় একদিক থেকে সুবিধাই হয়েছে। রাতের খেলায় শিশির একটা ফ্যাক্টর। বিশেষ করে রাতে বোলারদের স্বাভাবিক বোলিং করাটা কঠিন হয়ে পড়ে।

প্রতিপক্ষকে ১৪০ রানের মধ্যে বেঁধে রাখার মতো বোলিং সামর্থ্য আমাদের আছে। আবার বিপক্ষ দলের ১৬০ বা তার চেয়েও বেশি রান তাড়া করার সামর্থ্যও রাখে আমাদের ব্যাটসম্যানরা। বাছাইপর্বের ব্যাটিংয়ে প্রথম দুটো ম্যাচে আমাদের টপ অর্ডার ভালো করতে পারেনি। শেষ ম্যাচটিতে শুরুটা ভালো হয়েছে। সাকিব ভালো ব্যাট করছে। আগের ম্যাচে চমৎকার ইনিংস খেলেছে মাহমুদউল্লাহ। এখন লিটন আর মুশফিক যদি ক্লিক করে, তাহলে বড় স্কোর আসবেই। আমাদের শক্তির জায়গা মিডল অর্ডার। অনেকেই বলে থাকেন, আমাদের পাওয়ার হিটারের ঘাটতি আছে। আমি সেটা মনে করি না। মাহমুদউল্লাহ ভালো স্ট্রোক খেলতে পারে। আফিফ, সাইফউদ্দিন সবাই প্রমাণিত বিগ হিটার। সোহান হয়তো এখনও ভালো করতে পারেনি। তবে তার হাতেও যথেষ্ট মার আছে। পাওয়ার প্লেতে যদি ৪০-৪৫ রান ওঠে, তাহলে ১৮০ রানের আশা করাই যায়।

দলে সাকিবের মতো একজন থাকাটা প্লাস পয়েন্ট। তিনে ব্যাট করছে। শুরুর ধাক্কা সামলে নিতে পারছে। আবার বল হাতেও দুর্দান্ত করছে। সাকিব বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। ঘাটতিগুলো পুষিয়ে দিচ্ছে। মেহেদী কিন্তু বেশ ভালো সাপোর্ট করছে। মেহেদীর বৈশিষ্ট্য হলো সে খুবই আত্মবিশ্বাসী। 

সাধারণত অফস্পিনাররা, বাঁহাতিদের বিপক্ষে ভালো বোলিং করে। মেহেদী বাঁহাতি ও ডানহাতি দুই ধরনের ব্যাটসম্যানদের বিপক্ষে ভালো বোলিং করে। আমাদের ব্যাটসম্যানরা স্পিন খেলে অভ্যস্ত। মুশফিক, সাকিব, রিয়াদ (মাহমুদউল্লাহ), লিটন সবাই স্পিনের বিপক্ষে খুবই স্বচ্ছন্দ। তাই ভালো কিছু আশা করাই যায়। 

লেখক: আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বাংলাদেশের প্রথম হ্যাটট্রিক ম্যান


আরও সংবাদ   বিষয়:  টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপ   সুপার টুয়েল্ভ   বাংলাদেশ   শ্রীলঙ্কা  




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]