ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা সোমবার ৬ ডিসেম্বর ২০২১ ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
ই-পেপার সোমবার ৬ ডিসেম্বর ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

অল্প পোশাকে শীতের প্রস্তুতি
জীবন যখন যেমন ডেস্ক
প্রকাশ: সোমবার, ২৫ অক্টোবর, ২০২১, ১২:২৯ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 172

ষড়ঋতুর বাংলায় চলছে হেমন্তকাল। গ্রামের দিকে শীতের দেখা মিলেছে বেশ। শহরের শেষ রাতেও কাঁথা মুড়ে ঘুমাতে হয়। এই সময় অল্প পোশাকে নিতে হচ্ছে শীতের প্রস্তুতি। কিছুদিন পরেই হয়তো দেখা মিলবে বেশি শীতের। আর শীত মানেই ফ্যাশনেবল পোশাক পরা। বাজারে ইতোমধ্যে দেখা মিলেছে শীতের আকর্ষণীয় পোশাকের। তবে শীতের শুরুতে এমন পোশাক বাছাই করুন যাতে অল্প শীত থেকে রক্ষা মিলবে আবার ফ্যাশনের দিক থেকেও এগিয়ে থাকতে পারবেন।

মূলত গ্রামের দিকে রাত থেকে সকাল পর্যন্ত শীতের দেখা মিলছে। শহরে ভোর রাত থেকে সকাল পর্যন্ত শীত অনুভব করা যাচ্ছে। তবে পাহাড়ি অঞ্চলে শীতের সঙ্গে কুয়াশাও বেশ। যারা ভ্রমণের জন্য দেশের উত্তরাঞ্চলে কিংবা পাহাড়ি অঞ্চলগুলো ঘুরছেন তাদের শীতের অভিজ্ঞতা বেশ।
 
ছেলেদের জন্য
ছেলেদের জন্য এই সময় সুতি, চামড়া, রেক্সিন, উলের কাপড়ের পোশাক পাওয়া যাচ্ছে। তবে অল্প শীতের জন্য উপযুক্ত হতে পারে পাতলা সোয়েটার অথবা হুডি। বেশি আঁটসাঁট গলার কিছু পরলে গরমে ঘাম ঝরতে পারে। ছেলেরা জিন্স, গ্যাবাডিং ও অন্যান্য সাধারণ প্যান্টের সঙ্গে এখন মানানসই শীতের হালকা পোশাক পরলেই ঠান্ডা থেকে
রক্ষা পাবেন।

গলার সুরক্ষার জন্য ঝোলাতে পারেন মাফলার কিংবা হালকা চাদর। এতে শীত থেকে রক্ষার পাশাপাশি স্টাইলেও পরিবর্তন আসবে। নিজের সংগ্রহে শীতের হুডি, সোয়েটার না থাকলে বাজার থেকে সহজেই কিনতে পারবেন। ২০০ থেকে ২৫০ টাকার মধ্যে হাতাকাটা সোয়েটার ও ৩০০ থেকে ৬০০ টাকায় পাবেন জ্যাকেট ও হুডি। রঙিন মাফলারগুলো পেতে পারেন ১৫০ থেকে ২৫০ টাকায় মধ্যে। শীতের জন্য নকশার টুপিও কিনতে পারবেন। দাম পড়বে ২০০ থেকে ৫০০ টাকার মধ্যে। রাজধানীসহ দেশের আঞ্চলিক প্রায় সব শহরেই মিলছে এসব পোশাক।

মেয়েদের জন্য
হালকা শীত ফ্যাশনের জন্য মেয়েরা স্টাইলিশ হালকা পোশাকের ওপর ভরসা রাখতে পারেন। সাধারণ অন্যান্য পোশাকের সঙ্গে একটি চাদর হতে পারে মেয়েদের শেষ ভরসা। পোশাকের সঙ্গে মিল রেখে কিনুন বিভিন্ন ডিজাইনের চাদর। যারা শাড়ি পরেন এ সময় চাদর তাদের জন্য মানানসই হবে, সাজে আসবে নতুন মাত্রা। এ ছাড়া মেয়েরা এই সময় গেঞ্জি কাপড়ের বা জিন্সের পাতলা সোয়েটার পরতে পারেন। থ্রি-পিসের সঙ্গে এই ধরনের পোশাক মানাবে। জিন্স অথবা কাপড়ের প্যান্টের সঙ্গে লম্বা কটিও পরতে পারেন। সাধারণ কামিজের ক্ষেত্রে পোশাকের রঙের সাথে মিলিয়ে রঙিন শীতের পোশাক মানাবে। ইন করে প্যান্ট পরলে ব্লেজার বা জিন্সের কাপড়ের পাতলা জ্যাকেট বেছে নিতে পারেন। ঠান্ডা হাওয়া থেকে বাঁচতে স্কার্ফ পরতে পারেন। বাজারে অনেক স্টাইলিশ স্কার্ফ পাওয়া যায়। গলায় জড়িয়ে নিলে স্টাইলটা বদলে যাবে। এ ছাড়াও নানারকম ফ্যাশনেবল টুপিও এই সময় সঙ্গে নিতে পারেন। বাজারে সব ধরনের পোশাক মিলছে। ছেলেদের শীতের পোশাকের মতোই নাগালের ভেতর মেয়েদের এই ধরনের পোশাকগুলো।

তবে সংগ্রহে শীতের পোশাক থাকলে তো চিন্তা নেই। বাড়তি খরচ করে পোশাক না কিনে সেগুলো পরিষ্কার করেই ব্যবহার করুন। গত বছরের ব্যবহৃত শীতের পোশাকগুলোর যথাযথ যতœ নিয়ে গায়ে জড়িয়ে নিন। তুলে রাখা কাপড়ে অনেক সময় ফাঙ্গাস পড়ে আবার ভ্যাপসা গন্ধ হয়। ডিটারজেন্ট পাউডার বা শ্যাম্পু ব্যবহার করা করে শীতের কাপড় ধুয়ে ফেলুন। শীতের পোশাক রোদে দিন, এরপর ব্যবহার করুন। বাসায় শীতের প্রকোপ থেকে রক্ষা পেতে পোশাক পরার পাশাপাশি ঘরের মেঝেতে শতরঞ্জি অথবা ফ্লোর ম্যাট বিছিয়ে ফেলুন।


আরও সংবাদ   বিষয়:  শীতের প্রস্তুতি   শীতের পোশাক  




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]