ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা সোমবার ৬ ডিসেম্বর ২০২১ ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
ই-পেপার সোমবার ৬ ডিসেম্বর ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

রাজবাড়ীতে প্রকৌশলীর গলা চেপে ধরলেন অপর প্রকৌশলী
সময়ের আলো অনলাইন
প্রকাশ: বুধবার, ২৪ নভেম্বর, ২০২১, ১০:৪৭ পিএম আপডেট: ২৪.১১.২০২১ ১১:৩৪ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 183

রাজবাড়ী পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) নির্বাহী প্রকৌশলী আবদুল আহাদ তার অধস্তন উপসহকারী প্রকৌশলীর গলা চেপে ধরার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। গত মঙ্গলবার বিকেলে রাজবাড়ী পাউবো নির্বাহী প্রকৌশলীর কক্ষে এই ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আক্রান্ত উপসহকারী প্রকৌশলী মো. রনি অভিযোগ দায়েরের পর অভিযুক্ত নির্বাহী প্রকৌশলীকে আজ বুধবার বিকেলে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

এর আগে একইদিন দুপুরে পাউবোর মহাপরিচালকের কাছে লিখিত অভিযোগ দেন এবং এর সুষ্ঠু বিচার চান আক্রান্ত রনি। তিনি ঘটনার সিসি ক্যামেরার ফুটেজসহ অভিযোগ করেন।

ভিডিওতে দেখা যায়, উপসহকারী প্রকৌশলী মো. রনিকে চেয়ারসহ মেঝেতে ফেলে গলা চেপে ধরেছেন রাজবাড়ী পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আবদুল আহাদ। তখন অপর এক কর্মকর্তা নির্বাহী প্রকৌশলীকে নিবৃত্ত করেন এবং আক্রান্ত কর্মকর্তাকে কক্ষ থেকে সরিয়ে দেন।

পাউবো সূত্র জানায়, বুধবার বিকেলে নির্বাহী প্রকৌশলী আবদুল আহাদকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। উপসচিব (প্রশাসন) সৈয়দ মাহবুবুল হকের সই করা এ-সংক্রান্ত দফতরাদেশে বলা হয়, অসদাচরণ ও চাকরি শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগে আবদুল আহাদকে সাময়িক বরখাস্ত করে প্রশিক্ষণ ও মানবসম্পদ উন্নয়ন বিভাগের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলীর দফতরে সংযুক্ত করা হয়েছে।

ঘটনা সম্পর্কে পাউবোর উপসচিব (প্রশাসন) সৈয়দ মাহবুবুল হক একটি গণমাধ্যমকে বলেন, ‘এ ঘটনায় কর্তৃপক্ষ ভিশন অ্যানয়েড। এ বিষয়ে তদন্ত হবে।’

সিসি ক্যামেরার ফুটেজে দেখা যায়, নির্বাহী প্রকৌশলী আবদুল আহাদের কক্ষে আগে থেকেই অবস্থান করছেন রাজবাড়ী পাউবোর সহকারী প্রকৌশলী মো. আশরাফুল আলম। এক পর্যায়ে ওই কক্ষে প্রবেশ করে চেয়ারে বসেন উপসহকারী প্রকৌশলী মো. রনি। কথা বলার একপর্যায়ে রনির ওপর খেপে যান নির্বাহী প্রকৌশলী। তিনি নিজের চেয়ার থেকে উঠে গিয়ে রনির গলা চেপে ধরেন এবং ধাক্কা দিয়ে মেঝেতে ফেলে দেন। নির্বাহী প্রকৌশলীকে নিবৃত্ত করেন আশরাফুল আলম। এরপর আবদুল আহাদ নিজের চেয়ারের কাছে ফেরত এসে একটি ‘অ্যান্টি কাটার’ হাতে নিয়ে শাসাতে থাকেন রনিকে। এ পর্যায়ে রনিকে ওই কক্ষ থেকে সরিয়ে দেন আশরাফুল আলম।

এই ঘটনা সম্পর্কে জানতে নির্বাহী প্রকৌশলী আবদুল আহাদের দুটি মুঠোফোন নম্বরে ফোন করা হয়। তিনি সাড়া দেননি।

মহাপরিচালকের কাছে দেওয়া অভিযোগে রনি বলেছেন, মঙ্গলবার বেলা একটার সময় তাকে ও গোয়ালন্দ পশুর শাখার উপসহকারী প্রকৌশলী মো. ইকবাল সরদারকে কিছু নথিপত্রসহ দাফতরিক কাজে প্রধান প্রকৌশলীর দফতরে যেতে বলেন নির্বাহী প্রকৌশলী আবদুল আহাদ। দফতরের একটি গাড়ি নিয়ে যেতে বললেও ওই দিন তারা কোনো গাড়ি পাননি। গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্র হওয়ায় এগুলো নিয়ে বাসে না গিয়ে পরদিন (বুধবার) দফতরের গাড়িতে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন তারা।

বিষয়টি জানতে পেরে রনিকে সহকারী প্রকৌশলী আশরাফুল আলমের মাধ্যমে মঙ্গলবার বিকেলে ডেকে পাঠান নির্বাহী প্রকৌশলী আবদুল আহাদ। রনি মঙ্গলবার বিকেল ৫টা ২০ মিনিটের দিকে নির্বাহী প্রকৌশলীর কক্ষে যান। সেখানে যাওয়ার পর নির্বাহী প্রকৌশলী আবদুল আহাদ ‘তুই-তোকারি’ করে রনিকে ধাক্কা দিয়ে চেয়ার থেকে ফেলে দেন। এরপর বুকের ওপর পা দিয়ে চেপে ধরেন এবং গলা টিপে ধরে শ্বাসরোধে হত্যার চেষ্টা করেন। একই সঙ্গে জবাই করার হুমকি দেন বলেও লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করেন রনি।





সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]