ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা সোমবার ৬ ডিসেম্বর ২০২১ ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
ই-পেপার সোমবার ৬ ডিসেম্বর ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

ধর্ষণ মামলা
মামুনুল হকের বিরুদ্ধে জবানবন্দিতে যা জানালো ঝর্ণা
নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ২৫ নভেম্বর, ২০২১, ১২:২৮ এএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 217

হেফাজতে ইসলামের সাবেক যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হকের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলার বাদী জান্নাত আরা ঝর্ণা আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন। বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টা থেকো ২টা পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের আদালতের বিচারক নাজমুল হাসান শ্যামলের আদালতে আসামি মামুনুল হকের উপস্থিতিতে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কোথায় কোথায় নিয়ে ধর্ষণ করা হয়েছে তার বিশদ বর্ণনা তুলে ধরে আদালতে জবানবন্দি প্রদান করেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী (পিপি) রাকিবুদ্দিন। তিনি বলেন, ঝর্ণার প্রথম স্বামীর ঘনিষ্ঠ বন্ধু ছিলেন মাওলানা মামুনুল হক।

স্বামীর বন্ধু হওয়ার সুবাদে তার সঙ্গে পরিচয় ঘটেছিল। তাদের সংসার সুখেই চলছিল। ওই সংসারে তাদের দুটি সন্তানও রয়েছে। কিন্তু মাঝেমধ্যে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ছোটখাটো বিষয় নিয়ে মনোমালিন্য বা ঝগড়াঝাঁটি হলে স্বামী-স্ত্রী দুজনেই মামুনুল হকের শরণাপন্ন হতেন। তিনি তাদের বুঝিয়ে-শুনিয়ে মিলমিশ করে দিতেন। এতে করে তিনি (মামুনুল হক) ওই পরিবারের ঘনিষ্ঠজন হয়ে ওঠেন। এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে মামুনুল হক স্বামীর অনুপস্থিতিতে প্রায়ই ফোন দিয়ে খোশগল্প করতেন ঝর্ণার সঙ্গে। এক পর্যায়ে স্বামীর মধ্যে ঝগড়া-ঝাঁটি নিয়ে দূরত্ব সৃষ্টি হলে স্বামীর সঙ্গে তার বিচ্ছেদ ঘটে। পরে মামুনুল হকের পরামর্শেই তিনি খুলনা থেকে ঢাকায় চলে আসেন। মামুনুল হকই ঢাকায় তার থাকার ব্যবস্থা করেন। এ সময় মামুনুল হক বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বেড়ানোর কথা বলে বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে শারীরিক সম্পর্কে জড়াতেন (ধর্ষণ) করতেন।

আদালতে জান্নাত আরা ঝর্ণা মামুনুল হক কখন, কোথায় নিয়ে ধর্ষণ করেছেন তার বর্ণনা তুলে ধরেন। একইভাবে গত ৩ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয় রয়্যাল রিসোর্টে নিয়ে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তাকে ধর্ষণ করেন। পরে স্থানীয় লোকজন হোটেল কক্ষে তাদের দুজনকে আটক করে। ঝর্ণার জবানবন্দি (সাক্ষ্য) শেষে আসামিপক্ষের আইনজীবীরা তাকে জেরা করেছেন। মামুনুল হকের আইনজীবীদের করা বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন জান্নাত আরা ঝর্ণা। 

এর আগে সকাল ৯টায় কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্য দিয়ে কাশিমপুর কারাগার থেকে মামুনুল হককে নারায়ণগঞ্জ আদালতে আনা হয়। এ সময় মামুনুল হকের অনুসারীরা আদালত চত্বরে অবস্থান নেয়। মামুনুলকে আদালত তোলার সময় অনুসারীরা পিছু পিছু ছুটতে থাকে, পরে পুলিশ পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে। পরে সাক্ষ্য প্রদান শেষে তাকে প্রিজন ভ্যানে তোলার সময় হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীরা বিভিন্ন স্লোগান দেয়। পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে দ্রুত তাকে নিয়ে কাশিমপুর কারাগারের উদ্দেশে রওনা হয়। এদিকে মামুনুল হকের আইনজীবী জয়নুল আবেদীন মেসবাহ জানান, ভারতের প্রধানমন্ত্রীর বাংলাদেশে আগমন নিয়ে কথা বলায় মামুনুল হকের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে এ মামলা করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ৩ এপ্রিল সোনারগাঁ রয়্যাল রিসোর্টে স্ত্রী পরিচয় দিয়ে জান্নাত আরা ঝর্ণাকে নিয়ে ধর্ষণ করেন মামুনুল হক। বিষয়টি স্থানীয় লোকজন টের পেয়ে হোটেল কক্ষে তাদের দুজনকে আটক করে। পরে হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীরা রাত ৮টার দিকে রিসোর্টে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করে মামুনুল হক ও জান্নাত আরা ঝর্ণাকে তুলে নিয়ে যায়। ৩০ এপ্রিল ঝর্ণা সোনারগাঁ থানায় বাদী হয়ে মামুনুল হকের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা করেন। ওই মামলায় তিনি উল্লেখ করেন, দুবছর ধরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তাকে ধর্ষণ করা হয়েছে।




এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ


সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]