ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা সোমবার ৬ ডিসেম্বর ২০২১ ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
ই-পেপার সোমবার ৬ ডিসেম্বর ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

চ্যালেঞ্জ নিতে তৈরি যুব বিশ্বকাপজয়ী দলের রাজা-জয়
ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ২৫ নভেম্বর, ২০২১, ৩:৪৩ এএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 93

যুব বিশ্বকাপজয়ী দলের সদস্য ছিলেন। সেই সুবাদে বাংলাদেশের ক্রিকেটে মাহমুদুল হাসান জয় পরিচিত মুখই। তবে ঘরোয়া ক্রিকেটে শীর্ষ পর্যায়ে খেলার অভিজ্ঞতা ২১ বছর বয়সি এই তরুণের সামান্যই। ২২ বছর বয়সি রেজাউর রহমান রাজাও শীর্ষ পর্যায়ে অনভিজ্ঞ। পাকিস্তানের বিপক্ষে প্রথম টেস্টের দলে এই যুগলের ডাক পাওয়া তাই বড়সড় চমকই। তবে অল্প বয়সেই টেস্টের কঠিন জগতে পা রাখলেও ভড়কে যাচ্ছেন না রাজা আর জয়। দৃঢ় কণ্ঠে দুজনই জানিয়ে দিলেন, কঠিন চ্যালেঞ্জ নেওয়ার জন্য তারা প্রস্তুত।

কয়েকদিন ধরেই জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে চলছে টেস্ট দলে থাকা ক্রিকেটারদের অনুশীলন। তবে পুরো দল নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে তা শুরু হয়েছে বুধবার। এদিন নেটে দীর্ঘ সময় ব্যাটিং অনুশীলনে ঘাম ঝরিয়েছেন জয়, বোলিংয়ে রাজা। নতুন বলে তাদের দিকে বাড়তি নজর ছিল কোচিং স্টাফের সদস্যদের। সতীর্থরাও নজরে রেখেছিলেন তাদের। দিয়েছেন নানান পরামর্শ। তাতে ধীরে ধীরে আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠছেন জয় আর রাজা। প্রথম টেস্টের একাদশে ঢুকে পড়ার আশায় এখন তারা।

সিলেট থেকে উঠে আসা ডানহাতি পেসার রাজা এ পর্যন্ত প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলেছেন ১০টি। তাতে নিয়েছেন ৩৩ উইকেট। অফুরান প্রাণশক্তির এই পেসার দিনের শুরুতে যেমন, তেমনিভাবে দিনের শেষবেলায়ও একই গতিতে বল করে যেতে পারেন। মূলত এই দিকটাই অন্যদের থেকে আলাদা করেছে তাকে। তার মধ্যে টেস্টের আদর্শ পেসারের ছবিই দেখতে পাচ্ছে টিম ম্যানেজমেন্ট। রাজা নিজেও দীর্ঘ পরিসরের ক্রিকেটে স্বচ্ছন্দ্য। তাই বলে দিলেন, ‘টেস্ট খেলা আমি উপভোগ করি।’

এর সঙ্গে নিজের সামর্থ্যরে কথাও জানিয়ে রাখলেন রাজা, ‘চার দিনের খেলায় ডে বাই ডে কয়েকটা স্পেলে বোলিং করতে পারি। আমার শক্তির জায়গা ধরে রাখতে পারি। আমার নিজের যেটা মনে হয়, এক জায়গায় টানা বল করতে পারি। বলে কিছু মুভমেন্ট করাতে পারি। একই ছন্দে টানা বল করতে পারি। দিনের শুরুতে যে গতিতে বোলিং করি, দিনের শেষে তার চেয়ে একটু বেশি গতিতে বল করতে পারি।’ এরপর নিজের সামর্থ্যে আস্থা রেখে বললেন আসল কথা, ‘আসলে চ্যালেঞ্জ নেওয়া পছন্দ করি।’ 

নিজের সামর্থ্যে আস্থা আছে জয়েরও। অনূর্ধ্ব-১৯ দলের হয়ে দুর্দান্ত পারফর্ম করা এই তরুণ ছন্দটা অব্যাহত রেখেছেন সিনিয়র পর্যায়েও। এইচপি স্কোয়াডে জায়গা পেয়ে নিজেকে শাণিত করেছেন আরও। সেই ছাপ থাকছে তার পারফরম্যান্সে। গত বছর বিসিবি প্রেসিডেন্ট কাপে আলো ছড়ানোর পর আয়ারল্যান্ড ‘এ’ দলের বিপক্ষে সিরিজ আর প্রিমিয়ার লিগ টি-টোয়েন্টিতে রানের ফোয়ারা ছুটিয়েছেন তিনি। সদ্য শেষ হওয়া জাতীয় লিগে করেছেন দুই সেঞ্চুরি, সবশেষ ম্যাচে খেলেছেন ৮৩ রানের ইনিংস। 

এমন ছন্দময় ব্যাটিং আরও বেশি আত্মবিশ্বাস দিচ্ছে জয়কে। বললেন, ‘জাতীয় লিগে বেশ কয়েকটি ভালো ইনিংস খেলেছি। আমার আত্মবিশ্বাস এখন ভালো। তার আগে এইচপি ও ‘এ’ দলের প্রস্তুতি ম্যাচেও ভালো ইনিংস খেলেছি। সামনের ম্যাচগুলোতে ভালো করার জন্যও আমি প্রস্তুত।’ প্রথমবার টেস্ট দলে ডাক পাওয়ার রোমাঞ্চও ছুঁয়ে যাচ্ছে এই তরুণকে, ‘সবারই স্বপ্ন থাকে টেস্ট স্কোয়াডে সুযোগ পাওয়ার, জাতীয় দলে জায়গা পাওয়ার। প্রথমবার টেস্ট দলে জায়গা পেয়েছি, আমি অনেক খুশি।’

যে আশায় তাকে এবং রাজাকে দলে নিয়েছেন নির্বাচকরা, এই যুগল এখন পারফরম্যান্স দিয়ে খুশি করতে পারলেই হয়।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]