ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা সোমবার ৬ ডিসেম্বর ২০২১ ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
ই-পেপার সোমবার ৬ ডিসেম্বর ২০২১
http://www.shomoyeralo.com/ad/amg-728x90.jpg

মধ্যমগতির আন্দোলন চালিয়ে যাবে বিএনপি
সাব্বির আহমেদ
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ২৫ নভেম্বর, ২০২১, ১১:৫৪ এএম আপডেট: ২৫.১১.২০২১ ১১:৫৫ এএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 94

ঢাকায় গণঅনশন ও সমাবেশের কর্মসূচি নির্বিঘ্নে শেষ হলেও বাইরে অনেক জায়গায় বেশকিছু সংঘর্ষ হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে বিএনপির নেতাকর্মীদের ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনাও ঘটেছে। অনেক জায়গায় তাৎক্ষণিকভাবে আটক ও মামলা রুজু হয়েছে। দলের চেয়ারপারসন অসুস্থ খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বিদেশে চিকিৎসার দাবিতে বুধবারও বিএনপি স্মারকলিপি পেশ করেছে। আপাতত কঠিন আন্দোলনে না গিয়ে মাঝারি মানের কর্মসূচি অব্যাহত রাখবে বিএনপি। তবে আন্দোলনে লম্বা বিরতি দেবে না দলটি।

বিএনপির নেতারা বলছেন, সরকারের প্রতিক্রিয়া দেখে আন্দোলনের ধরন ঠিক করা হচ্ছে। সরকারের প্রতিক্রিয়া কিছুটা নমনীয় হলে আন্দোলনেও শিথিলতা আসবে। পরিস্থিতি বেগতিক হলে আন্দোলনের গতি বাড়াবে হাইকমান্ড। তবে নানাভাবে আন্দোলন ধরে  রাখবে। কোনোভাবে নেতাকর্মীদের ঝিমিয়ে পড়ার সুযোগ দেওয়া হবে না। গণঅনশন থেকে যে আন্দোলন শুরু হয়েছে তার তাপ ধরে রাখবে অনেক দিন পর রাজপথে নামা বিএনপি।

বিএনপির একটি সূত্রে জানা গেছে, সরকারের উচ্চ মহলের মনোভাব বুঝে কর্মসূচির রদবদল করা হচ্ছে। তবে সব ধরনের কর্মসূচির রোডম্যাপ ঠিক করা আছে। সরকার খালেদা জিয়ার বিদেশে চিকিৎসার বিষয়ে কড়া মনোভাব দেখানোয় গণঅনশনের ডাক দেওয়া হয়। এরপর সরকারের দুজন মন্ত্রীর কাছে বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোটের ও দলের আইনজীবীরা দেখা করেন। সেখান থেকে বেরিয়ে নমনীয় আচরণের কথাই বলেন তারা। খালেদা জিয়ার চিকিৎসার বিষয়টিকে রাজনীতির পরিবর্তে মানবিক বিবেচনায় দেখার অনুরোধ জানান বিএনপির প্রতিনিধিরা। মন্ত্রীরাও প্রধানমন্ত্রীর কাছে বিএনপির এই বার্তা তুলে ধরবেন বলে আশ্বস্ত করেছেন।

এর মধ্যে সরকারের আইনমন্ত্রী বিএনপিকে পরামর্শ দেন খালেদা জিয়ার জন্য বিদেশ থেকে দেশে চিকিৎসক আনার। এরপরই বিএনপিদলীয় এক এমপি সরকারের কাছে আবেদন করেন ফ্লাইং হাসপাতালের। যেখানে বিদেশের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা অন্য দেশের অত্যাধুনিক সরঞ্জামাদির সহায়তায় চিকিৎসা দিতে সক্ষম হবেন। যদিও সরকার নির্দিষ্ট করে এ বিষয়ে এখনও কোনো কথা বলেনি। যদিও বিএনপি তাদের আন্দোলনে পরিবর্তন এনেছে। সমাবেশের পর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে স্মারকলিপি পেশ করার কর্মসূচি দিয়েছে।

বিএনপি নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, এবার আন্দোলন নিয়ে সতর্ক আছে বিএনপি। কর্মীদের চাওয়া থাকলেও হুট করেই জোরাল কর্মসূচি দেবে না বিএনপি। এবার আন্দোলন সফল করার পেছনে তিন চ্যালেঞ্জ দেখছেন নেতারা। এক. আন্দোলনের ভেতরে যাতে হঠকারিতা না হয় সে বিষয়ে সতর্ক থাকা। দুই. মামলা-হামলা মোকাবিলায় দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা করা। তিন. কর্মীদের রাজপথে দীর্ঘ সময় ধরে রাখা। দুদিন আগেই সমাবেশে অতীতের আন্দোলনের প্রসঙ্গ ধরে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর দলের নেতাকর্মীদের বলেন, হঠকারিতা করবেন না। অতীতে অনেক হঠকারিতার জন্য আমাদের অনেক মূল্য দিতে হয়েছে। আমরা শান্তিপূর্ণভাবে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে আন্দোলন করে যাব।

অন্যদিকে বিএনপির দাবি, তাদের নেতাকর্মীদের নামে ১ লাখ মামলায় প্রায় ৫০ লাখকে আসামি করা হয়েছে। গণঅনশনের ঘটনায় খুলনায় পুলিশের ওপর হামলার অভিযোগে বিএনপির ৪২ নেতাকর্মীর নাম উল্লেখসহ ৩৫০ জনের বিরুদ্ধে দুটি মামলা করেছে পুলিশ। এ ছাড়া নাটোরে পাঁচ শতাধিক নেতাকর্মীর নামে মামলা করা হয়েছে। এসব মামলাই এখন দীর্ঘমেয়াদি আন্দোলনের ‘বড় বিষফোঁড়া’ বলছেন নেতারা। এই মামলা মোকাবিলায় দলের সিনিয়র আইনজীবীদের নিয়ে একটি প্যানেলও করা হয়েছে। যারা এসব মামলায় আইনি সহায়তা দেবেন।

খালেদা জিয়ার বিষয়ে সরকার মানবিক দিক বিবেচনা করছে বলেই কি বিএনপি নমনীয় আন্দোলনে মধ্যে আছে, এমন প্রশ্নে বিএনপি মহাসচিব সময়ের আলোকে বলেন, আন্দোলনের বিভিন্ন ফর্মুলা থাকে। আন্দোলন তো আর রাতারাতি চূড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছে না। গণতান্ত্রিক দলকে সবদিক বিবেচনা করে কর্মসূচি গ্রহণ করতে হয়। এখন আমরা কঠিন সময় পার করছি। সবকিছুই মাথায় রেখে কাজ করতে হচ্ছে। আর দলের সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স সময়ের আলোকে বলেন, সরকারের অবস্থা পর্যবেক্ষণ করে আন্দোলন ঠিক করা হবে। সরকার খালেদা জিয়ার ব্যাপারে মানবিক সিদ্ধান্ত নিলে আমাদের আন্দোলন সে অনুযায়ীই হবে। তিনি আরও জানান, এ বছরের মধ্যে দলের সাংগঠনিক সব কমিটি দেওয়ার কথা থাকলেও তা সম্ভব হচ্ছে না। কারণ চলমান ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন। প্রশাসন নির্বাচনের কারণে বিএনপিকে কর্মিসভা করতে দিচ্ছে না।

ঢাকা মহানগর বিএনপির দক্ষিণের আহ্বায়ক আব্দুস সালাম বলেন, আন্দোলন ধরে রাখার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা করবে দল। মহানগর বিএনপি সেভাবে প্রস্তুত হচ্ছে। সরকার খালেদা জিয়ার উন্নত চিকিৎসায় বাধা দিলে আরও কঠিন কর্মসূচি দেওয়া হবে। বিএনপিদলীয় ছাড়াও সংসদে তাদের এমপিরাও কথার যুদ্ধ চালিয়ে যাবেন। সংসদ থেকে পদত্যাগের হুমকিও দিয়ে রেখেছেন। একদফা দাবিতে সংসদের সামনের সড়কে মানববন্ধন করেছেন বিএনপির এমপিরা। আবারও জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে তাদের নেত্রীর মুক্তির জন্য দাঁড়ানোর কথা রয়েছে।


আরও সংবাদ   বিষয়:  বিএনপি  




এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ


সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]