ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শনিবার ২৯ জানুয়ারি ২০২২ ১৪ মাঘ ১৪২৮
ই-পেপার শনিবার ২৯ জানুয়ারি ২০২২
http://www.shomoyeralo.com/ad/Amin Mohammad City (Online AD).jpg

যেভাবে বাংলাদেশে এলো ৭ কোটির বেশি জাল রুপি
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: রোববার, ২৮ নভেম্বর, ২০২১, ২:৪৯ এএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 117

রাজধানীতে বিশেষ অভিযান চালিয়ে ৭ কোটি ৩৫ লাখ ভারতীয় জাল রুপিসহ দুজনকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) গুলশান বিভাগ। শুক্রবার রাজধানীর খিলক্ষেত ও ডেমরা থানা এলাকায় সন্ধ্যা থেকে রাত পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে। তারা হলো- ফাতেমা আক্তার অপি ও শেখ মো. আবু তালেব।

পুলিশ বলছে, পাকিস্তানি নাগরিকদের মাধ্যমে পাকিস্তান থেকে আমদানি করা মার্বেল পাথরের ৫০০টি বস্তার মধ্যে ৯৫টি বস্তায় করে ভারতীয় রুপিগুলো আনা হয়। এসব মুদ্রা শ্রীলঙ্কা হয়ে বাংলাদেশে আনা হয়। শনিবার দুপুরে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে গুলশান বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) মো. আসাদুজ্জামান বলেন, খিলক্ষেতের বনরূপা আবাসিক এলাকার মেইন গেটের সামনে একজন নারী ভারতীয় জাল রুপিসহ অবস্থান করছে এমন তথ্য পায় খিলক্ষেত থানা পুলিশ। তার ভিত্তিতে সেখানে অভিযান চালিয়ে ফাতেমা আক্তার অপিকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তার কাছ থেকে ৫০ হাজার ভারতীয় জাল রুপি উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতার ফাতেমার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে দক্ষিণখান থানার পণ্ডিতপাড়া এলাকায় তার নিজ বাসা থেকে আরও ৭ কোটি ৩৪ লাখ ৫০ হাজার ভারতীয় জাল রুপি উদ্ধার করা হয়। পরে তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ডেমরা থানার সারুলিয়া এলাকা থেকে জালিয়াতি চক্রের অপর সদস্য শেখ মো. আবু তালেবকে গ্রেফতার করা হয়।

ডিসি গুলশান বলেন, গ্রেফতার ফাতেমা আক্তার অপি আন্তর্জাতিক সংঘবদ্ধ ভারতীয় জাল মুদ্রা পাচারকারী চক্রের সক্রিয় সদস্য। তিনি দীর্ঘদিন পাকিস্তান থেকে আন্তর্জাতিক চক্রের মাধ্যমে ভারতীয় জাল মুদ্রা কৌশলে সংগ্রহ করে দেশীয় চক্রের অন্য ব্যক্তিদের মাধ্যমে বিক্রিসহ ভারতে পাচার করতেন।

আসাদুজ্জামান বলেন, গ্রেফতারকৃত তালেব পাকিস্তানি নাগরিক সুলতান ও শফির মাধ্যমে পাকিস্তান থেকে আমদানি করা মার্বেল পাথরের ৫০০টি বস্তার মধ্যে গোলাপি সুতা দিয়ে চিহ্নিত ৯৫টি বস্তার মধ্যে সুকৌশলে ওই ভারতীয় জাল মুদ্রা শ্রীলঙ্কা হয়ে বাংলাদেশে নিয়ে আসেন। গ্রেফতার ফাতেমা আক্তার অপির বিরুদ্ধে মতিঝিল থানায় আগেও জাল টাকার ব্যবসা করার মামলা ছিল। এই ঘটনায় খিলক্ষেত থানায় একটি মামলা হয়েছে। 




http://www.shomoyeralo.com/ad/BD Sports News.gif

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]