ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা মঙ্গলবার ১৮ জানুয়ারি ২০২২ ৪ মাঘ ১৪২৮
ই-পেপার মঙ্গলবার ১৮ জানুয়ারি ২০২২
http://www.shomoyeralo.com/ad/Amin Mohammad City (Online AD).jpg

আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবস
নোয়াকের আলোচনা সভা ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালন
প্রথম গ্লোবাল ডিজএবিলিটি সামিট ২০১৮ এর প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের দাবি
সময়ের আলো অনলাইন
প্রকাশ: রোববার, ৫ ডিসেম্বর, ২০২১, ৯:৫৯ পিএম আপডেট: ০৫.১২.২০২১ ১০:৪৪ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 186

প্রথম গ্লোবাল ডিজএবিলিটি সামিট ২০১৮-এর প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের দাবিতে পাঁচটি জেলার প্রতিবন্ধী ব্যক্তি ও তাদের সংগঠনের সমন্বয়ে গঠিত ন্যাশনাল ওপিডি এডভাইজারি কমিটি (নোয়াক) আলোচনা সভা ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে। রোববার (৫ ডিসেম্বর) রাজধানীর বনানীর হোটেল লরিয়েলয়ে ‘গ্লোবাল ডিজএবিলিটি সামিট ২০১৮ এর প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন ও বর্তমান অগ্রাধিকার’ শীর্ষক এ আলোচনা সভা ও প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অধিকার বাস্তবায়নের দাবিতে কর্মসূচি পালিত হয়। 

নোয়াকের উদ্যোগে ২৩তম জাতীয় ও ৩০তম আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী ব্যক্তি দিবস উপলক্ষ্যে এ আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন যুগ্মসচিব ড. মো. আনোয়ার উল্ল্যাহ এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ডিজ্যাবিলিটি এলায়েন্স অন এসডিজিস বাংলাদেশের কনভেনার অমৃতা রেজিনা রোজারিও।

অনুষ্ঠানে সভাপতত্বি করনে নোয়াকের সভাপতি মহুয়া পাল। আলোচক ছিলেন প্যানেল সদস্য আশরাফুন নাহার মিষ্টি, ডাউন সিনড্রোম সোসাইটি অব বাংলাদেশের চেয়ারম্যান সরদার এ. রাজ্জাক এবং এসডিএসএলের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য হাসিবা হাসান জয়া। 

স্বাগতবক্তব্য পাঠ করেন শ্রবণ প্রতিবন্ধী নারী সানজিদা হক র্স্বনা, ধারণাপত্র পাঠ করেন ডাউন সিনড্রোম নারী জান্নাতুল নাঈম সুমাইয়া এবং সঞ্চালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন শারিরিক প্রতিবন্ধী নারী ফিরোজা খাতুন।

উল্লেখ্য যে, ২০১৮ সালের জুলাই মাসে লন্ডনে প্রথম গ্লোবাল ডিজএবিলিটি সামিট অনুষ্ঠিত হয়। বৈষম্য ও অপবাদ, একিভূত শিক্ষা, অর্থনৈতিক ক্ষমতায়ন ও প্রযুক্তি- এই চারটি বিষয়কে প্রতিপাদ্য করে পুরো সম্মেলনটি অনুষ্ঠিত হয় । এ সামিটে ৬৭ টি দেশ থেকে ১২০০ ডেলিগেট অংশগ্রহণ করেন। মোট ১৭১ টি সরকারি সংস্থা, দাতাগোষ্ঠী, প্রাইভেট সংস্থা, ওপিডি ও সিএসও প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জন্য অন্তর্ভূক্তিমূলক উন্নয়ন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ৯৬৮ টি অঙ্গীকার করেন। বাংলাদেশ থেকেও এ সম্মেলনে সরকারি ও বেসরকারি সংস্থার প্রতিনিধিগণ অংশগ্রহণ করেন এবং গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার ৮টি অঙ্গীকার করেন। 

একটি গবেষণায় দেখা গিয়েছে ২০১৮ সালে অনুষ্ঠিত সামিটের দুবছরের মধ্যে ২৫% অঙ্গীকার পুরোপুরি বাস্তবায়িত হয়েছে, ৬২% বাস্তবায়ন চলমান আছে, ১০% এর ক্ষেত্রে বিলম্বিত পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে, ২% এর ক্ষেত্রে কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়নি এবং অবশিষ্ট ১% এর বিষয়ে কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি ।

আলোচনা সভায় প্রতিবন্ধী ব্যক্তিগণ বলেন ২০১৮ সালের সামিটের দেয়া প্রতিশ্রুতিগুলো থেকে বাংলাদেশে অনেকগুলো প্রতিশ্রুতিগুলো অদ্যাবধী বাস্তবায়িত হয়নি। আলোচকগণ গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার কতৃক প্রদত্ত প্রতিশ্রুতিগুলোর পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়নের দাবি জানান।

 প্রধান অতিথি বলেন যে, প্রতিবন্ধী জনগোষ্ঠির জীবনমান উন্নয়নে সরকারী ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে এক যোগে কাজ করতে হবে। তিনি তার বক্তব্যে সরকার ও ডিপিও গুলো সমন্বিত হয়ে কাজ করার উপর গুরুত্বারোপ করেন।

বিশেষ অথিতি অমৃতা রোজারিও প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের সঠিক সংখ্যা নিরুপন, একীভূত ও কর্মসংস্থানের উপর জোর দেন। তিনি আরো বলেন আমরা প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের কর্মসংস্থানের অনুপস্থিতি ১.২ বিলিয়ন জিডিপি থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

কর্মসূচি পালনে আর্থিক সহযোগিতা প্রদান করে সাইটসেভার্স/এডিডি ইন্টারন্যাশনাল এবং কারিগরি সহযোগিতা প্রদান করে সাইটসেভার্স/এডিডি ইন্টারন্যাশনাল এবং ইন্টারন্যাশনাল ডিজএবিলিটি এলায়েন্স (আইডিএ)। সার্বিক সহযোগিতা প্রদান করে ডাউন সিনড্রোম সোসাইটি অব বাংলাদেশ (ডিএসএসবি), ব্লাইন্ড এডুকেশন এন্ড রিহেবিলিটেশন ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন (বারডো),  সোসাইটি অব দ্য ডেফ এন্ড সাইন ল্যাঙ্গুয়েজ ইউজার্স (এসডিএসএল) এবং মুক্তির সংগ্রাম প্রতিবন্ধী উন্নয়ন সংস্থা (এমএসপিইউএস)।

/আরএ


আরও সংবাদ   বিষয়:  আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবস   ন্যাশনাল ওপিডি এডভাইজারি কমিটি   নোয়াক  




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]