ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা মঙ্গলবার ১৮ জানুয়ারি ২০২২ ৪ মাঘ ১৪২৮
ই-পেপার মঙ্গলবার ১৮ জানুয়ারি ২০২২
http://www.shomoyeralo.com/ad/Amin Mohammad City (Online AD).jpg

ভৈরবে বাল্যবিয়ে দিতে গিয়ে জরিমানা গুনলেন মা ও দাদী
রাজীবুল হাসান, ভৈরব (কিশোরগঞ্জ)
প্রকাশ: শুক্রবার, ১৪ জানুয়ারি, ২০২২, ১০:৪৫ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 162

ভৈরবে ১২ বছর বয়সের মিতু বেগম নামের এক কিশোরীকে বাল্যবিয়ে দিতে গিয়ে জরিমানা গুনলেন কিশোরীর মা ও দাদী। তারা হলেন, মা শেফালি বেগম, দাদী খোদেজা বেগম। 

শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় পৌর শহরের আমলাপাড়ার এলাকার হাকিম মিয়ার বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, কিশোরীর বাবা মানিক মিয়া পৌর শহরের আমলাপাড়ার হাকিম মিয়ার বাড়িতে ভাড়া বাসায় থাকেন। কিশোরী মিতুকে জোর করে পৌর শহরের নিউটাউন বালুর মাঠ সংলগ্ন এলাকার ভাড়াটিয়া সোহাগ মিয়া নামের এক মধ্য বয়সী লোকের সাথে নগদ বিশ হাজার টাকা যৌতুক দিয়ে বিয়ে ঠিক করেন কিশোরীর মা শেফালি বেগম। 

কিন্তু সেই বিয়েতে রাজি ছিলো না পরিবারের বাকী সদস্যরা। কিশোরীর ছোটবোন ও বড় ভাই উপজেলা মহিলা বিষয়ক অধিদফতরের  কিশোর-কিশোরী ক্লাব স্থাপন প্রকল্পের জেন্ডার প্রোমোটার হৃদয় খানম ও  আব্দুল্লাহ আল মামুনকে মুঠোফোনে বিষয়টি জানায়। তারা তাৎক্ষণিক উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো.জুলহাস হোসেন সৌরভকে অবগত করলে ঘটনাস্থল গিয়ে এর সত্যতা পান । পরে স্থানীয় কাউন্সিলর মো.শিমুলের সহায়তায় জানতে পারে ১২ বছর বয়সের এক কিশোরীকে জোর করে তার মতের বিরুদ্ধে মধ্য বয়সী সোহাগ নামের এক লোকের সঙ্গে যৌতুক দেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে । কিশোরীর মতের বাহিরে জোর করে বাল্যবিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করায় কিশোরীর মা ও দাদীকে নগদ ৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

এ বিষয়ে সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো.জুলহাস হোসেন সৌরভ বলেন, বাল্যবিবাহ ও কিশোরীর মতের বাহিরে গিয়ে মা ও দাদী জোর করে মধ্যবয়সী লোকের সঙ্গে বিয়ে দেওয়ার সময় ঘটনাস্থলে গিয়ে বিয়ে বন্ধ করি। এই ঘটনায় অভিযুক্ত মা ও দাদীকে নগদ ৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ডসহ মুছলেকা দিয়ে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। 

/এসএ




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]