ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শনিবার ৩ ডিসেম্বর ২০২২ ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
ই-পেপার শনিবার ৩ ডিসেম্বর ২০২২
https://www.shomoyeralo.com/ad/Amin Mohammad City (Online AD).jpg

প্রযুক্তির ছোঁয়া দেশের ক্রীড়াঙ্গনেও
অনিক দাস ও আসমাউল মুত্তাকিন
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ৭ এপ্রিল, ২০২২, ২:৩৩ পিএম আপডেট: ১৭.০৪.২০২২ ৭:০৩ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 787

সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে ক্রীড়া ইভেন্টগুলোতে যোগ হচ্ছে নিত্যনতুন সব প্রযুক্তি। সাঁতারের জন্য বিশেষ ধরনের কস্টিউম, মেসি-রোনালদোদের উপযোগী বুট, শারীরিক গঠন কিংবা খেলার ধরনের সঙ্গে সাদৃশ্য রেখে ক্রিকেটারদের জন্য ব্যাট তৈরি, এমনি অসংখ্য বিষয় বিজ্ঞানীদের গবেষণাগার থেকে উঠে এসেছে খেলার মাঠে। ভুলভ্রান্তি দূর করতে দিনকে দিনই মাঠে বাড়ছে প্রযুক্তির ব্যবহার। খেলার কাঠামোতেও প্রযুক্তির জয়জয়কার। 

বৈশ্বিক রেসে টিকে থাকতে খেলাধুলাকে সর্বোচ্চ প্রাধান্য দেওয়াটা এখন সময়ের দাবি। কেননা অনেক ক্ষেত্রেই স্পোর্টস হয়ে ওঠে দেশের সবচেয়ে বড় পরিচয়। আর তাই খেলাধুলার উন্নয়নে প্রযুক্তির ব্যবহারের দায়িত্ব নেয় রাষ্ট্র। এর ব্যতিক্রম নয় আমাদের লাল-সবুজের বাংলাদেশ। ক্রীড়াপ্রিয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে গড়া ‘ডিজিটাল বাংলাদেশে’ প্রযুক্তির ছোঁয়া লেগেছে দেশের ক্রীড়াঙ্গনেও। বৈশ্বিক মানদণ্ডে আমাদের ক্রীড়াঙ্গন প্রযুক্তির ব্যবহারে কতটা এগিয়ে কিংবা পিছিয়ে সেটা অন্য প্রসঙ্গ। তবে আমাদের দেশের মূলধারার খেলাধুলাতে প্রযুক্তির ছোঁয়া যে ভালোভাবেই লেগেছে তা বলাই বাহুল্য। 

কমতি নেই ক্রিকেটে
বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) এখন ৯০০ কোটি টাকার মালিক। কয়েক মাস আগে সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেছেন এমনটা। দুই দশকের পথচলায় কেবল আর্থিক কাঠামো দাঁড় করায়নি বিসিবি, কমতি রাখেনি দেশের ক্রিকেটেও। যখন যেমন প্রযুক্তি, কোচ, বিনিয়োগ প্রয়োজন পড়ছে, তাৎক্ষণিক পূরণ হচ্ছে সেই চাহিদা। তা ছাড়া পূর্বাচলে নির্মিত হচ্ছে ‘দ্য বোট : শেখ হাসিনা ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়াম’। অত্যাধুনিক এই মাঠ দেশের ক্রিকেটাঙ্গনে বড় ছাপ ফেলবেÑ এমনটাই প্রত্যাশা এদেশের ক্রিকেটপ্রেমীদের। 

নতুন সাজে ফুটবল স্টেডিয়াম
হারিয়ে যাওয়া জৌলুস ফিরিয়ে আনতে মরিয়া দেশের ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। এরই প্রেক্ষিতে কর্মযজ্ঞ চলছে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে। ৯৮ কোটি টাকার সংস্কার কাজের পর নতুন রূপ পাবে ফুটবল স্টেডিয়াম এবং প্রথমবারের মতো যোগ হবে ডোপ টেস্ট রুম। তাতে মাঠে লড়াইয়ে নামার আগে স্টেডিয়ামেই খেলোয়াড়দের ডোপ টেস্ট করানো সম্ভব হবে। প্রযুক্তির ব্যবহারে কমবে খেলোয়াড়দের ভোগান্তিও। কারণ এখনও আন্তর্জাতিক ম্যাচে নামার আগে অন্য কোথাও মেডিকেল টেস্ট করতে হতো আমাদের ফুটবলারদের।

আশার আলো বসুন্ধরা কিংস
ফুটবল বাঁচিয়ে রাখে ক্লাবগুলো। ইউরোপিয়ান পেশাদার ফুটবল এর বাস্তব উদাহরণ। বাংলাদেশে এই দৃষ্টান্ত স্থাপনে আশার আলো দেখিয়েছে বসুন্ধরা কিংস। ঐহিত্যবাহী ক্লাব আবাহনী ও মোহামেডান যেটা পারেনি, সেটাই করে দেখিয়েছে তারা। বাংলাদেশে প্রথম ক্লাব হিসেবে নিজস্ব হোম ভেন্যু বানিয়েছে বসুন্ধরা কিংস। ইউরোপিয়ান ধাঁচে ক্রীড়া কমপ্লেক্স তৈরি করা হয়েছে। সেখানে আধুনিক ড্রেসিংরুমের পাশাপাশি রয়েছে ম্যাসাজ রুম, আইসরুম। সাত স্তরবিশিষ্ট মাঠের ওপরের ভাগে লাগানো হয়েছে দেশি দূর্বাঘাস, যা এতদিন বাংলাদেশের কোনো স্টেডিয়ামে ছিল না। এখানে ২ হাজার ৫০০ ভোল্টের ফ্লাডলাইটের বিশেষত্ব হলোÑ মাঠে ক্ষুদ্র হতে ক্ষুদ্রতর বস্তুও দেখা যাবে খালি চোখে!

সাইফ স্পোর্টিংয়ের উপহার জিপিএস
ফুটবলকে আধুনিক করতে চেষ্টার ত্রুটি রাখছে না সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব। তারা দেশের ফুটবলকে উপহার দিয়েছে জিপিএস। এটি কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার একটি সফটওয়্যার। এই প্রযুক্তি একটি দলের বিশ্লেষণ, খেলার ধরনের তুলনামূলক অবস্থা এবং খেলা পরিবর্তনের সেট-প্লে বিশ্লেষণ করে থাকে। জিপিএস বলে দিতে পারবে বিপক্ষ দল কীভাবে আচরণ করছে, করবে এবং খেলবে। তা ছাড়া এটা অনুশীলনে ফুটবলারদের গতি-ফিটনেস লেভেল পরিমাপ করে দেয়। জানা যায়, কার শারীরিক শক্তি কত, কে কেমন দ্রুত দৌড়ায়, কতটা জায়গা কাভার করে এবং খেলোয়াড়দের টেকনিক মুভমেন্ট ও মাথা-হাত-পায়ের মুভমেন্টও নির্ণয় করে দেয়। এমন প্রযুক্তি জাতীয় ফুটবল দল না পেলেও জিপিএসের সুফল ভোগ করছে সাইফ স্পোর্টিংয়ের ফুটবলাররা। আর সেটাও ২০১৮ সাল থেকে।

বয়স চুরি ঠেকাতে বোনটেস্ট স্ক্যানার
দুই মৌসুম পর পর্দা ওঠার অপেক্ষায় তরুণ ফুটবলারদের মঞ্চ পাইওনিয়ার লিগ। টুর্নামেন্টে অংশ নেবে ৬০-এর বেশি ক্লাব। প্রতিযোগীদের বয়স হতে হবে ১৫ বা এর নিচে। কিন্তু আগের আসরগুলোতে বয়স চুরির অভিযোগ উঠেছে অসংখ্যবার। এমন বিতর্ক থেকে মুক্তি পেতে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে) নিয়ে এসেছে বোনটেস্ট স্ক্যানার। এই প্রযুক্তির সাহায্যে বয়স চুরি ঠেকাতে চায় বাফুফে, জানিয়েছেন গোপালগঞ্জ স্কাইলার্ক ফুটবল ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক রকিবুল ইসলাম। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বয়সভিত্তিক লিগে এই প্রযুক্তি ব্যবহার করলেও বাংলাদেশে এটা নতুন সংযোজন।

প্রযুক্তি এখন হকির বিচারক
আম্পায়ারের ভুল সিদ্ধান্তের বলি হওয়াটা হকিতে খুবই পরিচিত দৃশ্য। তবে খেলোয়াড়রা এখন সহজেই আম্পায়ারের সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ জানাতে পারেন। এটা সম্ভব হয়েছে ডিসিশন রিভিউ সিস্টেমের (ডিআরএস) কারণে। যদিও এটা নিয়ে কম-বেশি বিতর্ক রয়েছে হকির দুনিয়ায়। তবে পদ্ধতিটি সম্পূর্ণ প্রযুক্তিনির্ভর হওয়ায় এর পক্ষেই সমর্থন বেশি। হক-আই, হটস্পট ও স্নিকোমিটার, তিনটি পদ্ধতি ব্যবহার হয় ডিআরএসে। তবে বাংলাদেশ হকি প্রিমিয়ার লিগে ব্যবহার করা হচ্ছে হক-আই ও স্নিকোমিটার।

অ্যারচারিতে আসবে ভিডিও অ্যানালাইসিস
অনেক অভাবকে সঙ্গী করেই এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ অ্যারচারি ফেডারেশন। কম সুযোগ-সুবিধা নিয়েও রোমান সানা ও দিয়া সিদ্দিকীদের উন্নতি চোখে লাগার মতো। তাই অ্যারচারদের প্রশিক্ষণেও প্রযুক্তির সন্নিবেশ ঘটানোর ভাবনায় ফেডারেশন। এরই প্রেক্ষিতে বড় দেশগুলোর সঙ্গে তাল মিলিয়ে ভিডিও অ্যানালাইসিস সিস্টেম ব্যবহার করবে বাংলাদেশ। যদিও এই প্রযুক্তি দেশে আসতে কিছুটা সময় লাগবে বলে জানিয়েছেন অ্যারচারি ফেডারেশনের কর্তাব্যক্তিরা।

শুটিংয়ে ইলেকট্রনিক টার্গেট বোর্ড
দেশের অন্য খেলাধুলার মতো শুটিংয়েও হয়েছে আধুনিকায়ন। এই অঙ্গনে যুক্ত হয়েছে নতুন ইলেকট্রনিক টার্গেট বোর্ড। এর আগে শুটিং ব্যবহার করা হতো পেপার টার্গেট বোর্ড। আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারের ফলে ভুলভ্রান্তি দূর করতে পারে শুটাররা।

ভলিবলে ডিজিটাল বোর্ড
বাংলাদেশের ভলিবলে এখন ব্যবহার করা হয় ডিজিটাল বোর্ড। এর আগে কাঠের তৈরি বোর্ড ব্যবহার করা হতো। সেটা ছিল এনালগ। তবে বিশ্বের অন্য দেশের ন্যায় বাংলাদেশে এখন ডিজিটাল বোর্ড। পাশাপাশি যোগ হয়েছে আধুনিক নেটও।

লেখকদ্বয় ক্রীড়া সাংবাদিক


আরও সংবাদ   বিষয়:  প্রযুক্তি   ক্রীড়াঙ্গন  




https://www.shomoyeralo.com/ad/Google-News.jpg

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : shomoyeralo@gmail.com