ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা বৃহস্পতিবার ৮ ডিসেম্বর ২০২২ ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
ই-পেপার বৃহস্পতিবার ৮ ডিসেম্বর ২০২২
https://www.shomoyeralo.com/ad/Amin Mohammad City (Online AD).jpg

হবিগঞ্জে বাড়ছে চোখ ওঠা রোগের প্রাদুর্ভাব, মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি
হবিগঞ্জ প্রতিনিধি
প্রকাশ: বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ১০:১৬ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 107

হবিগঞ্জে চোখ ওঠা রোগের প্রকোপ বাড়ছে। প্রায় প্রতিটি ঘরেই কেউ না কেউ এ রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি। চিকিৎসকরা বলছেন, গরমে আর বর্ষায় চোখ ওঠার প্রকোপ বাড়ে। চিকিৎসা বিজ্ঞানে এটিকে কনজাংটিভাইটিস বা কনজাংটিভার বলা হয়। তবে স্থানীয়ভাবে এ সমস্যাটি চোখ ওঠা নামেই পরিচিত। রোগটি ছোঁয়াচে। ফলে দ্রুত অন্যদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে।

বুধবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সরজমিনে হবিগঞ্জ আদালত পাড়া ঘুরে দেখা যায়, বিচারপ্রার্থী থেকে শুরু করে আইনজীবী এমনকি বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা কর্মচারী পর্যন্ত চোখ ওঠা রোখে আক্রান্ত।  

শহরের বিভিন্ন মার্কেটেও একই অবস্থা। ক্রেতা-বিক্রেতা, পথচারী, রিকশা, টমটম, সিএনজি চালক কেউ কেউ কালো চশমা পড়েছেন আবার অনেকেই চোখ ওঠায় আক্রান্ত হয়ে চশমা ছাড়াই রয়েছেন। 

হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত এক সপ্তাহ যাবত জরুরি বিভাগে আসা ১০০ জন রোগীর মধ্যে ৪৫ জনই চোখ ওঠা রোগী ছিলেন।

হাসাপাতালে সামনে নিউ আল আমিন ফার্মেসীর সত্ত্বাধিকারী পাবেল খান চৌধুরী বলেন, চোখ ওঠা রোগীর  ড্রপ বিক্রি চাহিদা বেড়েছে। এতে আক্রান্ত ব্যক্তিরা চিকিৎসকের পরামর্শ না নিয়েই চোখের ড্রপ ও অ্যান্টিহিস্টামিন ওষুধ সেবন করছেন। এসব ওষুধ সেবন করে অনেকেই দুই তিন দিনের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন। আবার কেউ ৫-৭ দিন। তবে চোখ ওঠা রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিরা রোগটি ছোঁয়াচে জেনেও তারা তাদের প্রাত্যহিক কাজ করে যাচ্ছেন। মেলামেশা করছেন সবার সঙ্গেই।

নূরে মদিনা মাদরাসার শিক্ষক মাওলানা রেজওয়ানুল ইসলাম বলেন, মাদরাসার ছাত্র কেউ চোখ ওঠা রোগে আক্রান্ত হলে আমরা ছুটির ব্যবস্থা করে দেই।
বানিয়াচং উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. শামীমা আক্তার বলেন, চোখ ওঠা রোগ ভাইরাস জনিত তাই জনসমাগম এড়িয়ে চলাই উত্তম। করোনা রোধে যে যে স্বাস্থ্য বিধি বলা হয়েছে এগুলো মেনে চললেই চোখ ওঠা থেকে রেহাই পাওয়া সহজ।  

ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মুখলিছুর রহমান উজ্জল বলেন, চোখ ওঠা ছোঁয়াচে রোগ। পরিবারের একজনের থেকে অন্যজনের হতে পারে। সুতরাং এসব ক্ষেত্রে রোগ প্রতিরোধের জন্য চোখ পরিষ্কার রাখা, ঘরের বাইরে বের হলে সানগ্লাস ব্যবহার করা ইত্যাদি। উদ্বিগ্ন হবার কিছু নেই ২-৩ দিনের মধ্যে ভালো হয়ে যায় চোখ ওঠা রোগ।

/ডিএফ




https://www.shomoyeralo.com/ad/Google-News.jpg

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : shomoyeralo@gmail.com