ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা বৃহস্পতিবার ৮ ডিসেম্বর ২০২২ ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
ই-পেপার বৃহস্পতিবার ৮ ডিসেম্বর ২০২২
https://www.shomoyeralo.com/ad/Amin Mohammad City (Online AD).jpg

সাড়ে ছয় কিলোমিটারে ৩ উপজেলার ভোগান্তি
হুমায়ুন কবীর ত্রিশাল (ময়মনসিংহ)
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ৩:৫৭ এএম আপডেট: ২৯.০৯.২০২২ ৪:০৩ এএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 106

সাড়ে ছয় কিলোমিটার দৈর্ঘ্যরে সড়কে জনগণের চার বছরের ভোগান্তি। ময়মনসিংহের ত্রিশাল-পোড়াবাড়ী সড়ক দেখে বোঝার উপায় নেই, এটি কোনো পিচঢালা সড়ক ছিল। জনভোগান্তির যেন শেষ নেই। সাধারণ জনগণের প্রশ্ন-এ থেকে তাদের মুক্তি মিলবে কবে?

জানা যায়, দীর্ঘ কয়েক বছরের ভোগান্তির পর ২০১৮-১৯ অর্থবছরের জুন মাস পর্যন্ত সময় নির্ধারণ করে প্রায় দেড় কোটি টাকা ব্যয়ে সড়কটির মেরামতকাজ করা হয়। মেরামত কাজ করে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান বিএম এন্টারপ্রাইজ। সড়কটির কাজ শেষ হতে না হতেই তৈরি হয়েছে অসংখ্য খানাখন্দ। সাড়ে ছয় কিলোমিটার দৈর্ঘ্যরে ত্রিশাল-পোড়াবাড়ী সড়কটি দিয়ে তিন উপজেলার যোগাযোগ। এই সড়ক দিয়ে পার্শ^বর্তী ভালুকা, ফুলবাড়িয়া, টাঙ্গাইলের মানুষ প্রতিনিয়ত যাতায়াত করে। এটি সবচেয়ে ব্যস্ততম একটি সড়ক। ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক থেকে শুরু হয়ে পৌর শহরের মাঝখান দিয়ে চলে গেছে। এ সড়কে পণ্য পরিবহনকাজে নিয়োজিত শত শত ভারী যানবাহন চলাচল করে। এ অঞ্চল দিয়ে মৎস্য খামারের মাছ পরিবহনের যানবাহনই বেশি চলে। রাস্তা বেহালের কারণে মাছ বাজারজাত করতে চরম ঝুঁকি পোহাতে হচ্ছে। বড় বড় খানাখন্দে গাড়ির চাকা আটকে বিকল হচ্ছে নিয়মিতই। খানাখন্দে ঝুঁকি নিয়ে চলতে গিয়ে প্রায়ই ঘটছে ছোট-বড় দুর্ঘটনা।

স্থানীয় এলাকাবাসী জানায়, আমরা অনেক বছর ধরেই এমন সড়কে চলাচল করছি। দীর্ঘ ভোগান্তির পর সড়কটি মেরামতের জন্য টেন্ডার হয়। এতে মনে আশা জাগে ভালোভাবে চলতে পারব। কিন্তু সড়কের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কোনোরকম রাস্তা সংস্কার করে। সংস্কার হওয়ার অল্প দিনের মধ্যেই সড়কে খানাখন্দের সৃষ্টি হয়ে আগের মতো রূপ নেয়। সড়কটি চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়লে আমরা স্থানীয়রাসহ প্রশাসন ইট, বালু ফেলে সাময়িক চলাচলের উপযোগী করে। কিন্তু বৃষ্টির পানি ও অতিরিক্ত যানবাহন ও মাছের গাড়ি চলাচলের কারণে কয়েক বছর ধরে বারবারই বেশ কয়েকটি জায়গায় খানাখন্দের সৃষ্টি হয়ে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।
 
স্থানীয় শরিফুল ইসলাম বলেন, ‘এ সড়কটি কয়েক বছর ধরেই চলাচলের অনুপযোগী। পায়ে চলাই কষ্টকর। আর সড়কে চলাচলকারী মালবাহী যানবাহন নিয়মিতই আটকে যায় এসব খানাখন্দে। নিয়মিতই ঘটছে দুর্ঘটনা, হতাহত হচ্ছে চলাচলকারী অনেক মানুষ। বড় বড় খানাখন্দে চাকা পড়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা আটকে থাকে মালবাহী যানবাহন। এতে সড়কে চলাচলকারী মানুষকেও বসে থাকতে হয়।’ সড়ক দিয়ে চলাচলকারী কলেজ শিক্ষার্থী রিয়া মনি, ইফতি, শারমিনসহ কয়েকজন বলেন, ‘এই সড়ক দিয়ে আমরা প্রতিদিন কলেজে যাতায়াত করি। আমাদের গাড়ি থেকে নেমে কাদায় অনেক সময় হাঁটতে হয়। আবার অনেক সময় খাদে গাড়ির চাকা আটকে বিকল হয়ে যায়।’

স্থানীয় রাশেদ আনাম, আরজু, মিন্টু, সাইফুল ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘গত কয়েক বছর ধরে রাস্তার এমন বেহাল দশা। দেখার যেন কেউ নেই। জনপ্রতিনিধিরা দেখেও দেখে না। তাদের তো সমস্যা নেই, শহরের সুন্দর রাস্তায় থাকে। যত ভোগান্তি আমাদের গ্রামের মানুষের। আমাদের কষ্টের কথা শোনার কেউ নেই। এ সড়কে মাঝেমধ্যে চলাচল বন্ধ হয়ে গেলে নিরুপায় হয়ে আমরা নিজেরাই খানাখন্দে ইট-বালু ফেলে কোনোরকম চলাচলের উপযোগী করি। আমাদের দাবি, সড়কটি নতুন করে সংস্কার করা হোক।’  উপজেলা প্রকৌশলী মো. মনিরুজ্জামান বলেন, ‘তিন কোটি ৯০ লাখ টাকা ব্যয়ে এ সড়কটি সংস্কারের জন্য টেন্ডার প্রক্রিয়া চলমান। সড়কটির টেন্ডার নিয়ে আমরা ফাইনাল স্টেজে রয়েছি, ঠিকাদারের কাগজপত্র যাচাই-বাছাই চলছে। আশা করছি, আক্টোবর মাসেই সড়কের কাজ শুরু হবে। তবে বৃষ্টির কারণে যে পয়েন্টগুলোতে খানাখন্দ রয়েছে লোক পাঠিয়ে দ্রুতই মেরামতের ব্যবস্থা করব।’


আরও সংবাদ   বিষয়:  ত্রিশাল-পোড়াবাড়ী সড়ক   ময়মনসিংহ  




https://www.shomoyeralo.com/ad/Google-News.jpg

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : shomoyeralo@gmail.com