ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা বৃহস্পতিবার ৮ ডিসেম্বর ২০২২ ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
ই-পেপার বৃহস্পতিবার ৮ ডিসেম্বর ২০২২
https://www.shomoyeralo.com/ad/Amin Mohammad City (Online AD).jpg

রাজশাহী বিভাগে ৩৭ মামলায় বিএনপির ১০ হাজার নেতাকর্মী আসামি
রাজশাহী ব্যুরো, রাজশাহী
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ২৪ নভেম্বর, ২০২২, ১২:৪৬ এএম আপডেট: ২৪.১১.২০২২ ৫:৪৩ এএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 101

আগামী ৩ ডিসেম্বর রাজশাহীতে অনুষ্ঠিত হবে বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশ। এরই মধ্যে রাজশাহী বিভাগের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলায় বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ৩৭টি মামলায় প্রায় ১০ হাজার নেতাকর্মীকে আসামি করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে বিএনপির শীর্ষ স্থানীয় নেতারা।

তাদের অভিযোগ, আগামী ৩ ডিসেম্বরের রাজশাহী বিভাগীয় গণসমাবেশে বিএনপির জনস্রোত ঠেকাতেই বিভাগের ৮ জেলায় গত তিন দিনে ৭৫ জন বিএনপি নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং প্রায় ১০ হাজার নেতাকর্মীর নামে গায়েবী মামলা দায়ের করেছে সরকার দলীয় প্রশাসন। বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও রাজশাহী সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র মিজানুর রহমান মিনু এ অভিযোগ তোলেন।

তিনি বলেন, সরকার জোর করে ক্ষমতা ধরে রেখেছে। ক্ষমতা হারানোর ভয়ে এবং দেশের নিষ্পেষিত মানুষের জনরোষ ঢাকবার জন্য তারা রাজশাহী বিভাগের বিএনপির নেতাকর্মীদের এ আন্দোলনকে ঠেকাতে চাইছে। সরকার ও সরকার দলীয় প্রশাসন জানে- রাজশাহীর মাটি, বিএনপির ঘাটি। তাই তারা রাজশাহীর বিভাগীয় এ গণসমাবেশকে পণ্ড করতেই এধরনের হয়রানিমূলক মামলা দিচ্ছে।

এ ব্যাপারে কথা হয় বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদারের সাথে। তিনি বলেন, রাজশাহী বিভাগের বগুড়ায় ছয় মামলায় ১৯ জনকে, জয়পুরহাটে দুই মামলায় ১২ জন, নওগাঁয় ছয় মামলায় ১৪ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৫ মামলায় ২২ জন, রাজশাহীতে চার মামলায় দুইজন, নাটোরে ৫ মামলায় তিন জন, সিরাজগঞ্জে ৩ মামলায় তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

তিনি বলেন, আগের সমাবেশগুলোতে ধর্মঘট, গাড়ি-ঘোড়া লঞ্চ চলাচল বন্ধ করেছিলো। তবে কোনভাবেই লোকসমাগম ঠেকাতে পারছিলো না। এবার রাজশাহীর গণসমাবেশে লোকসমাগম ঠেকাতে সরকার নতুন আইটেম গ্রেপ্তার ও মামলা চালু করেছে। গায়েবি মামলা দিয়ে গ্রেফতার করা হচ্ছে। বিএনপি নেতাকর্মীদের নামে পুলিশ সরাসরি বিস্ফোরক, অস্ত্র, নাশকতার মামলা দিচ্ছে। গত তিনদিনে রাজশাহী বিভাগে জেলায় বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ৩৭টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এসব মামলায় অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে অন্তত ১০ হাজার। বিএনপির যে নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হচ্ছে, তাকেই এসব মামলায় গ্রেফতার দেখানো হচ্ছে।

এ পর্যন্ত ৭৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এসব মামলা ও গ্রেফতার করে নেতাকর্মীদের এলাকা ছাড়া করা হচ্ছে। যারা এলাকায় থাকছেন তাদেরও গ্রেফতার করা হচ্ছে। এভাবে নেতাকর্মীদের হয়রানি ও গ্রেফতার করেও আগামী ৩ ডিসেম্বরের গণসমাবেশ সরকার বন্ধ করতে পারবে না। বরং গণসমাবেশ আরও ভালো হবে, সফল হবে বলে দাবি বিএনপির এ নেতার।  

এদিকে বুধবার রাজশাহী পুলিশ লাইনসে মাদক ও সন্ত্রাস নির্মূল শীর্ষক এক সভায় বাংলাদেশ পুলিশের আইজি চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন বলেছেন, দেশে আবারো কেউ অরাজকতা ও আগুন সন্ত্রাস সৃষ্টির চেষ্টা করলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। অতীতের মতো আবারো তাদের দমন করা হবে।

পুলিশের আইপিজির এমন মন্তব্যের প্রেক্ষিতে বিএনপির উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনু বলেন, মূলত প্রশাসনের গুটি কয়েকলোক সরকারের সমর্থন করছে। যারা এমন কাজ করছেন তারা সরকার দলীয় লোক বলেই আমরা মনে করি। তারা জনগণের সেবা না করে সরকারের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করছেন বলেও মন্তব্য করেন তিনি।




https://www.shomoyeralo.com/ad/Google-News.jpg

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : shomoyeralo@gmail.com