ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শনিবার ২৮ জানুয়ারি ২০২৩ ১৪ মাঘ ১৪২৯
ই-পেপার শনিবার ২৮ জানুয়ারি ২০২৩
https://www.shomoyeralo.com/ad/Amin Mohammad City (Online AD).jpg

https://www.shomoyeralo.com/ad/780-90.jpg
হাশরের মাঠে সঙ্গী হবে কী?
আবদুর রশীদ
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০২২, ৩:৫৪ এএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 173

দুনিয়ায় দেখা যায়, সামান্য ভালোবাসার কারণে পিতামাতা তাদের সন্তানদের জন্য জীবন বাজি রাখেন। কাছের বা দূরের অনেকে অনেকের জন্য জীবনের ঝুঁকি নেয়। এমনও হয় যে, একজন অপরিচিতের ভালোবাসায় সিক্ত হতে হয় বিভিন্ন পরিস্থিতিতে। এই মহব্বতের কারণে কত ট্র্যাজেডি ঘটনার সূচনা হচ্ছে প্রতিনিয়ত। কিন্তু এই ভালোবাসা নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে হাশরের মাঠে। কখনো যে এই ভালোবাসার অস্তিত্ব ছিল তার কোনো প্রমাণ মিলবে না। ওই দিনের ভয়াবহ মুহূর্তের কথা পবিত্র কুরআনে এসেছে এভাবে, ‘কোনো মানুষ অন্যের বোঝা বহন করবে না’ (সুরা নাজম : ৩৮)। সেই দিন বোঝা বহন বলতে কোনো জিনিসপত্র নয়, বরং পাপ-পুণ্যের বোঝা। কারও পাপের ভার কেউ গ্রহণ করবে না এবং কারও পুণ্য কাউকে দেবে না। আর সেখানে হক আদায়ের সিস্টেম হলো পুণ্যের বিনিময়। কারও প্রতি কোনো আন্তরিকতা প্রকাশ পাবে না সেই দিন। শুধু নিজ নিজ কর্মপ্রতিফল নিয়ে চিন্তা-দুশ্চিন্তায় ব্যস্ত থাকবে। কতই-না ভয়াবহ হবে সেই দিন!

সেদিনের ভয়াবহতার বর্ণনা দিয়ে মহান আল্লাহ আরও বলেন, ‘না পিতা পুত্রের কোনো উপকারে আসবে এবং না পুত্র পিতার কোনো উপকারে লাগবে’ (সুরা লুকমান : ৩৩)। আরও বলেন, ‘সেদিন মানুষ পলায়ন করবে তার ভাই হতে; তার মাতা, পিতা, স্ত্রী ও সন্তান হতে। সেদিন তাদের প্রত্যেকের হবে এমন গুরুতর অবস্থা, যা তাকে সম্পূর্ণরূপে ব্যস্ত রাখবে’ (সুরা আবাসা : ৩৪-৩৭)। দুনিয়ায় কিছুক্ষণ চোখ বন্ধ করে ভেবে দেখুন, কেমন হবে সেদিনের সেই মুহূর্তটা, যখন সবচেয়ে প্রিয়জন পর্যন্ত মুখ ফিরিয়ে নেবে; এমনকি দেখলে পরিচয় না দিয়ে পলায়ন করবে? সেদিন কেউ তার বোঝা অন্যের ওপর চাপাতে চাইলে তা পূর্ণ হবে না। এমন কেউ সেখানে থাকবে না যে তার বোঝা বহন করবে। বন্ধুবান্ধব ও নিকটতম আত্মীয়রা সবাই সেদিন মুখ ফিরিয়ে নেবে।

দুনিয়ায় যেমন কাজেই ব্যস্ত থাকি না কেন, পরকালের জন্যও কিছু কাজ করা দরকার। হাদিসে বর্ণিত হয়েছে, হজরত ইকরামা (রা.) বলেন, সেদিন প্রতিবেশী প্রতিবেশীর পেছনে লেগে যাবে। সে আল্লাহ তায়ালার কাছে বলবে, ‘হে আল্লাহ! আপনি তাকে জিজ্ঞেস করুন, কেন সে আমার হতে তার দরজা বন্ধ করে দিয়েছিল?’ কাফের মুমিনের পেছনে লেগে যাবে এবং যে ইহসান সে দুনিয়ায় তার ওপর করেছিল, সে তাকে স্মরণ করিয়ে দেবে এবং বলবে, ‘আজ আমি তোমার মুখাপেক্ষী।’ মুমিনও তার জন্য সুপারিশ করবে এবং হতে পারে যে তার শাস্তিও কিছু কম হবে, যদিও জাহান্নাম হতে মুক্তি লাভ অসম্ভব। পিতা পুত্রকে তার প্রতি তার অনুগ্রহের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে বলবে, ‘হে আমার প্রিয় পুত্র! শর্ষে পরিমাণ পুণ্য আজ তুমি আমাকে দাও।’ পুত্র বলবে, ‘বাবা! আপনি জিনিস তো অল্পই চাচ্ছেন। কিন্তু যে ভয়ে আপনি ভীত রয়েছেন সেই ভয়ে আমিও ভীত রয়েছি। সুতরাং আজ তো আমি আপনাকে কিছুই দিতে পারছি না।’ তখন সে তার স্ত্রীর কাছে যাবে এবং বলবে, ‘দুনিয়ায় আমি তোমার প্রতি যে সদ্ব্যবহার করেছিলাম তা তো অজানা নেই?’ উত্তরে স্ত্রী বলবে, ‘আপনি ঠিক কথাই বলেছেন। কিন্তু এখন আপনার কথা কী?’ সে বলবে, ‘আজ আমি তোমার মুখাপেক্ষী। আমাকে একটি নেকি দিয়ে দাও, যাতে আমি আজ এই কঠিন আজাব হতে মুক্তি পেতে পারি।’ স্ত্রী জবাবে বলবে, ‘আপনার আবেদন ও চাহিদা তো খুবই হালকা বটে। কিন্তু যে ভয়ে আপনি রয়েছেন সে ভয় আমারও কোনো অংশে কম নয়। সুতরাং আজ তো আমি আপনার কোনো উপকার করতে পারব না।’ (তাফসিরে ইবনে কাসির)

হাশরের মাঠে সেদিন কিছু জায়গায় কেউ কাউকে স্মরণ করবে না। কেউ কাউকে চিনবেও না। চিনলেও স্বীকার করতে চাইবে না। পরিস্থিতির ভয়াবহতায় সবাই অন্যদের থেকে পালিয়ে বেড়াবে। হজরত আয়েশা (রা.) থেকে বর্ণিত, একদিন তিনি জাহান্নামের কথা স্মরণ করে কেঁদে ফেললেন। তখন রাসুল (সা.) জিজ্ঞেস করলেন, ‘তুমি কাঁদছ কেন?’ তিনি বললেন, ‘দোজখের আগুনের কথা স্মরণ হয়েছে, তাই কাঁদছি।’ 

কেয়ামতের দিন আপনি আপনার পরিবার-পরিজনকে স্মরণ করবেন কি?’ জবাবে রাসুল (সা.) বললেন, ‘হে আয়েশা, জেনে রাখো, তিনটি জায়গা এমন হবে যেখানে কেউ কাউকে স্মরণ করবে না-১. মিজানের কাছে যতক্ষণ না সে জেনে নেবে যে, তার আমলের পাল্লা ভারী রয়েছে নাকি হালকা? ২. আমলনামা পাওয়ার সময়, যখন তাকে বলা হবে, আরে অমুক! এই নাও তোমার আমলনামা এবং তা পড়ে দেখো। যে পর্যন্ত না সে জেনে নেবে যে, তা তাকে ডান হাতে দেওয়া হয়েছে নাকি পেছন থেকে বাম হাতে? ৩. পুলসিরাত যখন তা লোকের ধন-সম্পদকে বেড়ি বানানো হবে জাহান্নামের ওপর স্থাপন করা হবে।’ (আবু দাউদ : ৪৭৫৫)
অতএব সেদিনের একমাত্র সঙ্গী হতে পারে নিজেদের নেক আমলগুলো। আল্লাহর রহমতপ্রাপ্ত হলে সেই দিনের দুশ্চিন্তা আর জাহান্নামের শাস্তি থেকে মুক্তি মিলবে। তাই প্রকৃত বুদ্ধিমানরা কখনো দুনিয়ার ভালোবাসায় ডুবে না গিয়ে পরকালের সঞ্চয় জোগানোর কাজে বেশি ডুবে থাকে। আল্লাহ তায়ালা সবাইকে নেক আমল করার তওফিক দান করুন।

https://www.shomoyeralo.com/ad/Local-Portal_728-X-90 (3).gif

আরও সংবাদ   বিষয়:  হাশরের মাঠ  




https://www.shomoyeralo.com/ad/Google-News.jpg

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : shomoyeralo@gmail.com