ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শনিবার ২৮ জানুয়ারি ২০২৩ ১৪ মাঘ ১৪২৯
ই-পেপার শনিবার ২৮ জানুয়ারি ২০২৩
https://www.shomoyeralo.com/ad/Amin Mohammad City (Online AD).jpg

https://www.shomoyeralo.com/ad/780-90.jpg
তেজগাঁওয়ের অলিগলিতে বিশ্বকাপ
আবদুল হালিম
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০২২, ৯:২১ এএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 92

কাতারে বিশ্বকাপ মঞ্চ কাঁপাচ্ছে আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল, ফ্রান্স-ইংল্যান্ড। ঘটনা-দুর্ঘটনায় মোড়া কাতার বিশ্বকাপ নিয়ে অন্যরকম এক যুদ্ধ চলছে জনপ্রিয় দলগুলোর সমর্থকদের মধ্যে। এরই ধারাবাহিকতা বাংলাদেশেও তৈরি হয়েছে ছোটবড় বেশি কিছু বিশ্বকাপ মঞ্চ। তেমনি বিশ্বকাপ মঞ্চ তৈরি হয়েছে তেজগাঁওয়ের অলিগলিতে। যেখানে তর্কে তর্কে উদযাপিত হয় বিশ্বকাপ ফুটবল।

বাংলাদেশে সবচেয়ে জনপ্রিয় দুই দলের নাম আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিল। দুই দলই গ্রুপ পর্বে এক ম্যাচ করে হারলেও শেষ পর্যন্ত গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে স্থান করে নেয় ১৬ দলের নক আউট পর্বে। যদি উভয় দল নিজেদের সর্বোচ্চটা উজাড় করে দেয়, তবে সেমিফাইনালে মুখোমুখি হতে হবে। সেই আশাতে বুক বাঁধছে উভয় দলের সমর্থকগোষ্ঠী। ব্যতিক্রম ঘটেনি তেজগাঁওয়ের আয়োজনেও। তবে এখানে ছিল এক ভিন্ন আবহ। প্রতি সারি ভিন্ন দেশের পতাকার মধ্যে উজ্জ্বল হয়েছিল বাংলাদেশের পতাকা। যেখানে অধিকাংশ স্থানেই দখল করে নিয়েছি বিদেশি পছন্দের দলের পতাকা। সেখানে হয়তো ছোট করে স্থান পেয়েছে বাংলাদেশের পতাকা। তার বদলে ব্যতিক্রমী আয়োজন এখানে।

এ প্রসঙ্গে আয়োজকদের কাছে জানতে চাইলে বলেন, আসলে ফুটবল বিশ্বকাপের মূল পর্বে আমরা কখনোই বাংলাদেশকে পাইনি। এ কারণেই দেশে সবাই ভিন্ন ভিন্ন দেশকে সমর্থন করছে। বিষয়টি নিয়ে তর্ক-বিতর্ক রয়েছে। কিন্তু সমর্থন করা দোষের কিছু নয়। তবে বাংলাদেশের নাগরিক হিসেবে ভিন্ন দেশের পতাকার পাশাপাশি বাংলাদেশের পতাকা যেন সবখানে থাকে তা নিশ্চিত করতে চেয়েছি আমরা। বিশেষ কোনো চিন্তা থেকে কাজটি করা হয়নি। আসলে নিজেদের মধ্যে আলোচনা করেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া।

আয়োজকদের একজন আলামিন। এলাকার সবাই মিলে এই আয়োজন করেছেন বলে জানান তিনি। সেই সঙ্গে ছিল আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের সহায়তা। আয়োজনে সব দলের সমর্থকরাই অংশ নিচ্ছে বলে জানান তিনি। আলামিন বলেন, এখানে স্থায়ীভাবে একটি প্রজেক্টর কিনে নিয়েছি আমরা। প্রতিদিনই খেলা দেখানো হয়। তবে ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা ম্যাচে সবচেয়ে বেশি ভিড় থাকে। তর্কও চলে সমর্থকদের মধ্যে।

সিদ্ধেশ্বরী কলেজে স্নাতক তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী খালেদ খান জিতু। তেজগাঁও এ প্রজেক্টরের মাধ্যমে খেলা দেখার ব্যবস্থা করা আয়োজকদের একজন তিনি। ব্যক্তিগতভাবে আর্জেন্টিনার সমর্থক হলেও তিনি আশা করেন সেমিফাইনাল পর্যন্ত খেলবে ব্রাজিল। সময়ের আলোর সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, আসলে বিশ্বকাপের আসল মজা তো এই তর্কে। ব্রাজিল সমর্থক বন্ধু, বড় ভাই বা ছোট ভাইরা বলছে পাঁচবার বিশ্বকাপ জয়ের কারণে তারা ব্রাজিলের সমর্থক। ব্রাজিলকে ফুটবলের জনক হিসেবেও বলতে চায় অনেকে। এবার ব্রাজিল হেক্সা জয় করবে বলে দৃঢ় আত্মবিশ্বাসী তারা। সেই সঙ্গে আর্জেন্টিনা নিয়ে সমালোচনা তো আছেই।

আর্জেন্টিনাকে নিয়ে সমালোচনার জবাব দেন কীভাবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আসলে বোঝার বয়স থেকে মেসির খেলা দেখছি। মেসিকে অনেক ভালোবাসি। তার জন্যই আর্জেন্টিনার সমর্থক। আর কোনো কাপ বা কিছুর লোভে ব্রাজিল সমর্থকদের মতো দল সমর্থন করতে চাই না। ভালো ফুটবল খেলে বলেই আর্জেন্টিনার সমর্থন করি। এবার তারা কাপ জিতুক বা না জিতুক।

সেখানে উপস্থিত ব্রাজিল সমর্থকরাও অবশ্য পিছপা হয়নি এমন কথায়। তাদের ভাষ্য মতে, ব্রাজিল এবার নিজেদের সেরা অবস্থান প্রমাণ করেই নক আউট পর্বে গিয়েছে। গ্রুপ পর্বে শেষ ম্যাচটিকে তারা পরীক্ষার জন্য ব্যবহার করেছে। আর কিছু নয়। তবে নক আউটের প্রতিটি ম্যাচে নিজেদের সর্বোচ্চ শক্তি প্রদর্শন করবে বলে জানান তারা।

প্রতিদিন এই এলাকায় তিনটি প্রজেক্টরের মাধ্যমে খেলা দেখানো হয়। সেখানে ১৫০০ থেকে ২০০০ মানুষ নিয়মিত খেলা উপভোগ করে। যান্ত্রিক জীবনের গতি থেকে মুক্তি পেতে ফুটবল মাঠে বলের গতিতে দৃষ্টি নিবন্ধ করে তারা।

নক আউট পর্বে ব্রাজিলের প্রথম প্রতিপক্ষ দক্ষিণ কোরিয়া। কোয়ার্টার ফাইনালে তারা আরেক এশিয়ার দল জাপান অথবা ইউরোপের দল ক্রোয়েশিয়ার মুখোমুখি হবে। এই দুই পরীক্ষা পার হতে পারলেই মিলবে সেমিফাইনালের টিকেট। অন্যদিকে আর্জেন্টিনার সামনে কঠিন প্রতিপক্ষ নেদারল্যান্ডস। অবশ্য ইউরোপের এই দলটির বিপক্ষেও বেশ সহজেই আর্জেন্টিনা জয়ী হবে বলে আশাবাদী দলটির সমর্থকগোষ্ঠী। 

https://www.shomoyeralo.com/ad/Local-Portal_728-X-90 (3).gif



https://www.shomoyeralo.com/ad/Google-News.jpg

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : shomoyeralo@gmail.com