ই-পেপার বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

২২ বছর পর কুলাউড়াবাসী পেলো আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ২৮ নভেম্বর, ২০২৩, ৩:৩৮ পিএম  (ভিজিট : ৫৭৬)
২০০১ সালের অষ্টম সংসদ নির্বাচনের পর থেকে মৌলভীবাজার-২ (কুলাউড়া উপজেলা) আসনে আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী দেয়নি। ২০০৮, ২০১৪ ও ২০১৮ সালের নির্বাচনে মহাজোটের শরিক বিভিন্ন দলের প্রার্থীকে এ আসনটি ছেড়ে দেওয়া হয়। দলীয় প্রার্থী না থাকায় তখন আওয়ামী লীগের স্থানীয় নেতা-কর্মীদের মধ্যে চাপা ক্ষোভ ছিল।

তবে, আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এ আসনে দলীয় প্রার্থী দেওয়া হয়েছে। দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল প্রথম বারের মতো এ আসনে মনোনয়ন পেয়েছেন। রোববার (২৬ নভেম্বর) বিকেলে ঢাকায় বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলীয় মনোনীত প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করেন.দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

শফিউল আলম চৌধুরীর বাড়ি কুলাউড়া উপজেলার রাউৎগাঁও ইউনিয়নের কৌলা গ্রামে। দলীয় সূত্রে জানা গেছে,  ২০০১ সালের নির্বাচনে মৌলভীবাজার-২ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ছিলেন, দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমেদ। ওই নির্বাচনে তিনি বিএনপির 'বিদ্রোহী' প্রার্থী এম এম শাহীনের কাছে হেরে যান। এর পর থেকে সেখানে আর দলীয় প্রার্থী দেয়নি আওয়ামী লীগ। 

২০০৮ সালে নবম সংসদ নির্বাচনে এ আসনে মহাজোটের শরিক জাতীয় পার্টির প্রার্থী নওয়াব আলী আব্বাস খান লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে লড়ে বিজয়ী হন।  ২০১৪ সালে দশম সংসদ নির্বাচনেও এ আসনে মহাজোটের শরিক জাতীয় পার্টির প্রার্থী ছিলেন, মহিবুল কাদির চৌধুরী। ওই নির্বাচনে আওয়ামী লীগের ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী আবদুল মতিন বিজয়ী হন। ২০১৮ সালের নির্বাচনে মহাজোটের শরিক বিকল্পধারা বাংলাদেশের প্রার্থী বিএনপির সাবেক নেতা এম এম শাহীনকে এ আসনে মনোনয়ন দেওয়া হয়। তিনি নৌকা প্রতীক নিয়ে লড়েন। ওই নির্বাচনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী হিসেবে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে আওয়ামী লীগের সাবেক নেতা সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমদ জয়ী হন।

দলীয় মনোনয়ন পাওয়ায় প্রতিক্রিয়ায় শফিউল আলম চৌধুরী গতকাল রোববার (২৬ নভেম্বর) সন্ধ্যায় মুঠোফোনে বলেন, 'এটা আমার জীবনের অনেক বড় প্রাপ্তি। নেত্রীর (প্রধানমন্ত্রী) কাছে কতৃজ্ঞ। দলের আদর্শ মেনে জনকল্যাণে  কাজ করতে চাই। সবার দোয়া-সহযোগিতা চাই।'

এ দিকে শফিউল ছাড়াও এবার কুলাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম, সহ-সভাপতি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ কে এম সফি আহমদ, আতাউর রহমান শামীম, কামাল হাসান, ডা: রুকন উদ্দিন আহমদ, সাধারণ সম্পাদক আ স ম কামরুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কুলাউড়া পৌরসভার মেয়র সিপার উদ্দিন আহমদ এবং কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের অর্থ ও পরিকল্পনা উপ-কমিটির সদস্য এম সাদরুল আহমেদ খান এ আসনে দলীয় মনোনয়ন চান।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ স ম কামরুল ইসলাম মুঠোফোনে বলেন, 'দীর্ঘ দিন পর এ আসনে দলীয় প্রার্থী পেলাম। সবাই খুশি। এবার আমিসহ দলের অনেকেই মনোনয়ন চেয়েছি। নেত্রীর সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত। নেত্রী যাকে মনোনয়ন দিয়েছেন, তাঁর পক্ষে সবাই মিলে কাজ করব। নৌকাকে জয়ী করব।' 


সময়ের আলো/এএ/




এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ


https://www.shomoyeralo.com/ad/1698385080Google-News-Update.jpg

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫ | ই-মেইল : shomoyeralo@gmail.com
close