ই-পেপার বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
বৃহস্পতিবার ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

বার্ন ইউনিটে ভর্তি স্ত্রী
মাদকাসক্ত বাবার দেওয়া আগুনে মারা গেল ২ শিশু
প্রকাশ: বুধবার, ২৯ নভেম্বর, ২০২৩, ৭:২৩ এএম  (ভিজিট : ৩০৮)
লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার বশিকপুরে বসতঘরে মাদকাসক্ত বাবার দেওয়া আগুনে পুড়ে আয়েশা আক্তার (৭) ও আবদুর রহিম (৩) নামে দুই শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় দগ্ধ হয়ে গুরুতর আহত হন ওই শিশু দুটির মা সুমাইয়া আক্তার (৩৫)। তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। মঙ্গলবার ভোরে বশিকপুর ইউনিয়নের পুরান চতল্লা বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় জড়িত নিহত শিশু দুটির বাবা কামাল হোসেনকে আটক করেছে পুলিশ। তাকে বিকালে আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে। কামাল ওই বাড়ির মৃত আমিন উল্যার ছেলে। তিনি পেশায় অটোরিকশা চালক।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, স্ত্রী ও দুই সন্তানকে ঘুমন্ত অবস্থায় বসতঘরে রেখে ভোরে ওই ঘরে আগুন ধরিয়ে দেন কামাল হোসেন। এ সময় দগ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায় শিশুকন্যা আয়েশা আক্তার। পরে স্থানীয়রা অগ্নিদগ্ধ মা সুমাইয়া আক্তার ও ছেলে আবদুর রহিমকে উদ্ধার করে প্রথমে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাদের উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে পাঠানো হয়। 

সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুপুরে মারা যায় শিশু আবদুর রহমান। ঘটনার পর মাদকাসক্ত কামাল হোসেন নিজেই এ ঘটনা ঘটিয়েছেন বলে স্থানীয়দের কাছে স্বীকার করেন। এদিকে ঘটনাস্থল থেকে দুপুরে নিহত শিশুকন্যা আয়েশা আক্তারের মৃতদেহ উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায় পুলিশ।

বশিকপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহফুজুর রহমান জানান, অটোরিকশা চালক কামাল হোসেনের সঙ্গে তার স্ত্রীর পারিবারিক কলহ চলছিল। স্ত্রী এবং দুই সন্তানকে নিয়ে একটি সেমিপাকা টিনশেড ঘরে বসবাস করত সে। ভোরে নিজ বসতঘরে আগুন লাগিয়ে এ নৃশংস ঘটনা ঘটিয়েছে। অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় স্ত্রী সুমাইয়া এবং শিশুপুত্র আবদুর রহমানকে প্রথমে জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরে সেখান থেকে ইউনিয়ন পরিষদের ‘স্বপ্নযাত্রা’ অ্যাম্বুলেন্সে করে ঢাকা মেডিকেলের বার্ন ইউনিটে পাঠালে দুপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় শিশু আবদুর রহমান। তার মায়ের অবস্থাও আশঙ্কাজনক।

এদিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজে থাকা সুমাইয়ার চাচাতো ভাই মো. শাহ আলম মোবাইল ফোনে জানান, মঙ্গলবার দুপুর দেড়টার দিকে চিকিৎসাধীন আবদুর রহমানের মৃত্যু হয়েছে। তার মা সুমাইয়া আক্তারকে সেখানে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তার শরীরের ৫০ শতাংশ পুড়ে গেছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার আনোয়ার হোসেন জানান, ভোরের দিকে আহত মা ও ছেলেকে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। তাদের ঢাকায় রেফার্ড করা হয়েছে। শিশু আয়েশার মৃতদেহের ময়নাতদন্ত করা হয়েছে।

চন্দ্রগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মফিজ উদ্দিন বলেন, পারিবারিক কলহের জেরে কামাল তার বসতঘরে পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। 

এতে দুই শিশুসন্তান নিহত হয়। এ ঘটনায় কামাল হোসেনকে আটক করা হয়েছে। তদন্ত করে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সময়ের আলো/আরএস/ 




এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ


https://www.shomoyeralo.com/ad/1698385080Google-News-Update.jpg

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫ | ই-মেইল : shomoyeralo@gmail.com
close