ই-পেপার মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪
মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪

পেঁয়াজ মরিচে নাকাল মানুষ, পণ্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে কঠোর পদক্ষেপ নিন
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ৯ জুলাই, ২০২৪, ৩:৪৪ এএম আপডেট: ০৯.০৭.২০২৪ ৩:৪৫ এএম  (ভিজিট : ১৩৫)
দেশে বেশ কিছুদিন ধরে নিত্যপণ্যের দাম অস্বাভাবিকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রতিদিন বাড়ছে নিত্যপণ্যের দাম। দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে নিম্নআয়ের মানুষের জীবন ওষ্ঠাগত। দ্রব্যমূল্য লাগামহীন বাড়ার ফলে দেশের অধিকাংশ  মানুষ তাদের প্রয়োজনীয় চাহিদা মেটাতে হিমশিম খাছে। দ্রব্যমূল্য ক্রমান্বয়ে সাধারণ মানুষের ধরাছোঁয়ার বাইরে চলে যাচ্ছে।

পেঁয়াজ একটি অতিপ্রয়োজনীয় নিত্যপণ্য। কিছুদিন আগেও এই পণ্যটি বিক্রি হয়েছে প্রতি কেজি ৬০ থেকে ৭০ টাকা। ক’দিনে দাম যেন লাগামছাড়া হয়ে গেছে। গত রোববার পেঁয়াজের দাম ১২০ টাকায় গিয়ে ঠেকেছে। আগামীতে সব নিত্যপণ্যের দাম আরও বাড়বে বলে ধারণা করা হচ্ছে। বলা হচ্ছে, অদৃশ্য হাতের কারসাজিতে পেঁয়াজের দাম শুধুই বাড়ছে। কাঁচামরিচের কেজি এখন ২৮০ থেকে ৩০০ টাকা। দামের কারণে ভোক্তারা এখন অল্প পরিমাণ কাঁচামরিচ কিনছেন। কিছুদিন আগেও কাঁচামরিচ বিক্রি হয়েছে ২০০ থেকে ২৫০ টাকায়।

টিসিবি (ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ) স্বীকার করেছে, বর্তমানে পেঁয়াজের দাম সর্বনিম্ন ১০০ থেকে ১১০ টাকা। ব্যবসায়ীরা বলছেন, পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি পাওয়ার মূল কারণ প্রাকৃতিক দুর্যোগ। এর ফলে বাজারে পেঁয়াজের সরবরাহ কিছুটা কমে গেছে। কাঁচামরিচের ক্ষেত্রেও একই বচন চাউর করা হচ্ছে।

নিত্যপণ্যের বাজারে অস্বাভাবিক পরিস্থিতি রোধকল্পে সরকার বিভিন্ন সময় বিভিন্ন নিত্যপণ্যের দাম বেঁধে দিয়েও তা মোটেই নিয়ন্ত্রণ করা যায়নি। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বেঁধে দেওয়া দাম কার্যকর করতে মাঠপর্যায়ে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর ছাড়া সংশ্লিষ্ট অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের উল্লেখযোগ্য তৎপরতা দেখা যায় না। বাজার বিশ্লেষকরা বলছেন, বাজারের ওপর সংশ্লিষ্টদের নিয়ন্ত্রণ নেই।

রান্নায় নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য পেঁয়াজ ও মরিচ। কিন্তু এই পেঁয়াজ মরিচের দাম যখন সাধারণের নাগালের বাইরে চলে যায়, তখন বিপাকে পড়েন ভোক্তারা। নিত্যপণ্যের দাম নিয়ে একশ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ী অস্বাভাবিক আচরণ করছে। কোনোভাবেই এসব ব্যবসায়ীকে নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না। প্রয়োজনে এ সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে আরও কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া  উচিত। নিত্যপণ্যের লাগামছাড়া দাম দেশের মানুষকে কষ্ট দিচ্ছে। অথচ এসব খাদ্যপণ্যের অধিকাংশই উৎপন্ন হয় আমাদের দেশে।

মুনাফাখোর বাজার সিন্ডিকেট নানা অপকৌশলে দ্রব্যমূল্য শুধু অসহনীয় পর্যায়েই নিয়ে যাচ্ছে না, বাজারে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করে জনগণকে অতিষ্ঠ করে তুলছে। এ অবস্থায় সাধারণ মানুষের কষ্টের কথা ভেবে বাজার নিয়ন্ত্রণ ও চাহিদা মোতাবেক পণ্যের সরবরাহ নিশ্চিত করা একান্ত জরুরি। একই সঙ্গে মজুতদারি সিন্ডিকেটগুলোকে  আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া না হলে আগামী দিনে বাজার পরিস্থিতি আরও অস্বস্তিকর হওয়ার সমূহ আশঙ্কা রয়েছে। 

সংশ্লিষ্টরা নিত্যপণ্যের মূল্য নিয়ন্ত্রণে কঠোর পদক্ষেপ নেবেন-এটাই আমাদের প্রত্যাশা।

সময়ের আলো/জিকে




https://www.shomoyeralo.com/ad/1698385080Google-News-Update.jpg

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫ | ই-মেইল : shomoyeralo@gmail.com
close