ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা বৃহস্পতিবার ২ জুলাই ২০২০ ১৮ আষাঢ় ১৪২৭
ই-পেপার বৃহস্পতিবার ২ জুলাই ২০২০

বিশকেকে পরস্পরকে এড়িয়ে চলছেন মোদি-ইমরান
সময়ের আলো ডেস্ক
প্রকাশ: শনিবার, ১৫ জুন, ২০১৯, ১২:০০ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 128

কিরগিজস্তানের বিশকেকে চলমান এসসিও (সাংহাই কোঅপারেশন অর্গানাইজেশন) সম্মেলনে ভারত ও পাকিস্তানের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের শীতলতা আরও জোরালোভাবে ধরা পড়েছে। এ সম্মেলনকে কেন্দ্র করে দুই দেশের প্রধানমন্ত্রীর মধ্যে একাধিকবার দেখা হলেও তাদের মধ্যে কথা হয়নি। একে অপরকে এড়িয়ে চলতে দেখা গেছে তাদের।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার এসসিও সামিটের মঞ্চে ইমরান খান ও নরেন্দ্র মোদির দেখা হলেও কথা হয়নি। এরপর বিশকেকে নৈশভোজের আসরে দেখা হলেও তাদের মধ্যে কুশল বিনিময় পর্যন্ত হয়নি। নৈশভোজের পর কনসার্টেও সামনের সারিতেই বসেছিলেন মোদি এবং ইমরান দুজনেই। তাদের মধ্যে ছিলেন অন্তত সাত দেশের রাষ্ট্রপ্রধান। বিশকেকের উদ্দেশে রওনা হওয়ার আগে ইমরান খান রুশ সংবাদসংস্থা স্পুটনিককে বলেন, ‘ভারত-পাকিস্তান সম্পর্ক তলানিতে এসে ঠেকেছে। এত খারাপ আগে কখনও হয়নি। তবে আমরা আশা করছি, ভারতের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী দু’দেশের সম্পর্ক ভালো করার চেষ্টা করবেন এবং কাশ্মির ইস্যু সমাধানের পথে আগাবেন।
কিন্তু পাকিস্তানের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় আলোচনার সম্ভাবনায় ফের পানি ঢেলে দিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদি। পাকিস্তান আগে সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে কার্যকর ব্যবস্থা নিক, তারপরই আলোচনা, বিসকেকে চীনের প্রধানমন্ত্রী শি জিনপিংকে এ কথাই জানিয়েছেন তিনি। ভারতের পররাষ্ট্র সচিব বিজয় গোখলে জানান, ভারতের প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, পাকিস্তানকে আগে সন্ত্রাসমুক্ত পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে। কিন্তু বর্তমানে সে ধরনের কিছুই হচ্ছে না। আশা করি, ইসলামাবাদ এ বিষয়ে কার্যকর পদক্ষেপ নেবে।

চীন পাকিস্তানের দীর্ঘদিনের কৌশলগত সহযোগী বলে পরিচিত। দেশটির অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পে বিপুল পরিমাণ বিনিয়োগ করছে চীনারা। এসসিও সম্মেলনে যোগ দেওয়া পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গেও চীনা প্রধানমন্ত্রীর দ্বিপক্ষীয় বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]