ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা  বুধবার ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ৬ ফাল্গুন ১৪২৬
ই-পেপার  বুধবার ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০

কার হাতে উঠবে শিরোপা
ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশ: রোববার, ১৪ জুলাই, ২০১৯, ১১:০২ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 106

ওয়ানডে ক্রিকেট দলে কত সংখ্যক তারকা খেলোয়াড় প্রয়োজন? ক্রিকেট বিশ্বের শক্তিধর ভারত, অস্ট্রেলিয়া কিংবা ইংল্যান্ডের দল দেখে বলতেই পারেন, ছয় বা সাতজন। তবে এই ত্রয়ীর এক দলই কিন্তু নিশ্চিত করতে পেরেছে ফাইনাল, ইংল্যান্ড। অপর দল নিউজিল্যান্ড। তাদের দলে তারকা কয়জন? উত্তর দিতে ভাবতে হবে আপনাকে। তারকা তো আছে কয়েকজন, তবে ছন্দে কজনে! সংখ্যাটা মাত্র ১, কেন উইলিয়ামসন। যার কাঁধে চেপেই শিরোপার লড়াইয়ে কিউইরা, দেখছে ইতিহাস গড়ার স্বপ্ন। একই স্বপ্ন দেখছেন ইংলিশরাও।
কাকতালীয়ভাবেই এবারের বিশ্বকাপ এমন দুই ফাইনালিস্ট পেয়েছে যাদের এখন পর্যন্ত ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় এই মঞ্চে শিরোপা উঁচিয়ে ধরার সৌভাগ্য হয়নি। লন্ডনের লর্ডসে দীর্ঘ ৪৪ বছরের সেই আক্ষেপ ঘোচানোর লড়াইয়ে মুখোমুখি হবে ইংল্যান্ড-নিউজিল্যান্ড আর স্বপ্নপূরণের লড়াইয়ে মুখোমুখি হবে উইয়ন মরগান-উইলিয়ামসন। যে স্বপ্ন আগলেই তিন বছর ধরে এগিয়েছেন কিউই অধিনায়ক। ইংলিশ অধিনায়কের পথচলাটা আরও লম্বা। বিশ্বকাপ জয় স্বপ্নের বীজটা মরগান বুনেছিলেন আসরটির ২০১৫ সংস্করণের পরই।
২০১৪ সালে ১৯ ডিসেম্বর অ্যালিস্টার কুককে অধিনায়কের পদ থেকে সরিয়ে দায়িত্ব দেওয়া হয় মরগানকে। আশায় বুক বেঁধে পরের বছর বিশ্বকাপ মিশন শুরু করেন তিনি। কিন্তু ইংল্যান্ডের বিদায় নিশ্চিত হতে গ্রæপপর্বেই। একরাশ হতাশার মধ্য দিয়েই শুরু হয় মরগানের নতুন অধ্যায়। কিন্তু হাল ছাড়েননি তিনি, আস্থা হারায়নি ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)। দেশের মাটিতে আয়োজিত ২০১৯ বিশ্বকাপকে সামনেই তারা সাজান জাতীয় দলের চার বছরের রোডম্যাপ। ফলাফল, আজ শিরোপার লড়াইয়ে নামছে স্বাগতিকরা।
২০১৫ বিশ্বকাপের পর থেকে উইলিয়ামসনের গল্পটাও অনেকটা মরগানের মতো। ওই আসরে ফাইনালে হারের পরের বছর ব্রেন্ডন ম্যাককালাম অবসরে গেলে কিউইদের তিন ফরম্যাটের অধিনায়কের গুরুদায়িত্ব তুলে দেওয়া হয় উইলিয়ামসনের হাতে। এরপরই ক্রিকেটের মেগা ইভেন্টকে সামনে রেখে দল গোছানো শুরু তার। ফলাফল, ব্যাক-টু-ব্যাক ফাইনালে নিউজিল্যান্ড। তবে নেতৃত্বে সমানে সমান হলেও পারফরম্যান্সের দিক থেকে মরগানের চেয়ে ঢের এগিয়ে উইলিয়ামসন। এর প্রমাণটা বিশ্বকাপের চলতি আসরেই বিরাজমান।
শুধু নেতৃত্বগুণেই নয়, বিশ্বকাপে ব্যাট হাতেও দলের ত্রাণকর্তা উইলিয়ামসন। লিগপর্বে নিউজিল্যান্ডের পাঁচ জয়ের চারটিরই নায়ক উইলিয়ামসন ৮ ম্যাচে ৫৪৮ রানে রয়েছেন সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারী তালিকার পাঁচে। এ তালিকার ১৭তম স্থানে মরগান। ইংলিশ অধিনায়ক উইলিয়ামসনের চেয়ে এক ম্যাচ বেশি খেললেও করতে পেরেছেন ৩৬২ রান। তবে রানের সংখ্যায় পার্থক্য সামনে এনে কাউকে এগিয়ে-পিছিয়ে রাখছেন না ড্যানিয়েল ভেট্টোরি। তার মতে, এই দুই অধিনায়কই সেরা অধিনায়ক এবারের বিশ্বকাপে।
নিউজিল্যান্ডের এই কিংবদন্তি বলেন, ‘ফাইনালে থাকাটাই সবচেয়ে আনন্দের বিষয়। এর মানে প্রতিযোগিতায় আপনি সত্যিই অসাধারণ ছিলেন এবং এতেই আপনি উদযাপন করতে পারেন। উইয়ন মরগান এবং কেন উইলিয়ামসন যেভাবে ম্যাচে নেতৃত্ব দিয়েছে তা আসলেই দারুণ। যখন প্রতিপক্ষের প্রতি তাদের সম্মান দেখবেন এবং দেখবেন কীভাবে তারা খেলছে, আপনি বলতেই পারেন তারা আত্মবিশ্বাসী। দারুণ দুই নেতাকে ভালো একটি সুযোগ এটি (বিশ্বকাপ)।’
অস্ট্রেলিয়ার সাবেক ক্রিকেটার স্টিভ ওয়াহ তো বলতে বাধ্য হলেন, আজ লর্ডন ফাইনালে জয়ের প্রধান অস্ত্র অধিনায়করাই। তাই মরগান আর উইলিয়ামসনকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, ‘আপনাকে যতটা সম্ভব শান্ত এবং স্বাভাবিক থাকার চেষ্টা করতে হবে। কারণ আপনি অধিনায়ক, এক বিশ্বকাপ ফাইনাল আপনার জীবনকে ব্যাখ্যা করতে পারবে। তবে আপনাকে একইভাবে প্রস্তুত হতে হবে যেমন প্রস্তুতি আগের ম্যাচের নিয়েছেন, সুযোগের জন্য অতিমাত্রায় উত্তেজিত হওয়া যাবে না। অধিনায়কের প্রধান কাজ হলো, শান্ত এবং নির্ভার থাকা।’
তাই এখন দেখার অপেক্ষা, গ্রেটদের পরামর্শ আর নিজেদের অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে সফলতার দেখা পান কোন অধিনায়ক। কার হাতে ওঠে শিরোপাÑ মরগান না উইলিয়ামসনের!




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]