ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা বৃহস্পতিবার ৯ জুলাই ২০২০ ২৫ আষাঢ় ১৪২৭
ই-পেপার বৃহস্পতিবার ৯ জুলাই ২০২০

দুর্যোগকালীন জরুরি উদ্ধার ত্রাণ ও চিকিৎসা সহায়তা
বুলবুল ‘মোকাবেলায়’ প্রস্তুত সশস্ত্র বাহিনী
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: রোববার, ১০ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০০ এএম আপডেট: ১০.১১.২০১৯ ৮:১১ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 159

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ সৃষ্ট পরিস্থিতি মোকাবেলায় সশস্ত্র বাহিনী শনিবার সংশ্লিষ্ট এলাকায় বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহণ করেছে। এর মধ্যে সাতক্ষীরায় সেনা মোতায়েন, সব সেনানিবাস, ঘাঁটি, জাহাজ ও হেলিকপ্টার প্রস্তুত রাখা হয়েছে। আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতরের (আইএসপিআর) পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আব্দুল্লাহ ইবনে জায়েদ এ তথ্য জানান।

আইএসপিআর পরিচালক বলেন, ৭ নভেম্বর থেকে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের পরিস্থিতি মনিটরিংয়ের জন্য সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের তত্ত্বাবধানে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে ‘প্রধানমন্ত্রীর দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সমন্বয় ও ত্রাণ তৎপরতা মনিটরিং সেল’ সার্বক্ষণিকভাবে সচল রয়েছে। অন্যদিকে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসনের অনুরোধে যশোর থেকে সেনাবাহিনীর ১২০ সদস্যের একটি উদ্ধারকারী দল প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দল ও যানবাহন নিয়ে সাতক্ষীরার শ্যামনগরের উদ্দেশে যাত্রা করেছে।

তারা প্রাথমিকভাবে স্থানীয় জনগণকে আশ্রয়কেন্দ্রে স্থানান্তরে সহায়তা করবেন। সেনাবাহিনীর সব ফরমেশন কর্তৃক স্থানীয় সিভিল প্রশাসনের সঙ্গে নিবিড় যোগাযোগ রক্ষা করছে এবং যেকোনো প্রয়োজনে সহায়তা করার জন্য প্রস্তুত রয়েছে। সেনাবাহিনী সদস্যরা ছোট ছোট দলে বিভক্ত হয়ে প্রয়োজনীয় উদ্ধার সামগ্রী নিয়ে প্রস্তুত রয়েছেন। এ ছাড়া সেনাবাহিনী কর্তৃক দুর্যোগ পরবর্তী সহায়তার জন্য  ওষুধ সামগ্রী, খাবার পানি ও শুকনো খাবার জরুরি প্রয়োজনে বিতরণের জন্য প্রস্তুত রাখা হয়েছে। এ সংক্রান্ত যোগাযোগের জন্য ২৪ ঘণ্টা মনিটরিং সেল চালু রয়েছে। একই সঙ্গে সেনাবাহিনীর বিভিন্ন ব্রিগেড ডিভিশনসমূহ যেকোনো জরুরি সহায়তার জন্য বেসরকারি প্রশাসনের সঙ্গে নিরবিচ্ছিন্ন যোগাযোগ অক্ষুণ্ন রেখেছে। এ ছাড়া বলপূর্বক বাস্তুচ্যুত মিয়ানমারের নাগরিকদের ক্যাম্পের ক্ষয়ক্ষতি রোধে জরুরি সহায়তার জন্য মহড়া অনুষ্ঠিত হয়েছে।

নৌবাহিনীর প্রস্তুতি নিয়ে আব্দুল্লাহ ইবনে জায়েদ বলেন, ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের জন্য বাংলাদেশ নৌবাহিনীর ২৭টি জাহাজ নিরাপদ স্থানে স্থানান্তর করা হয়েছে। নৌবাহিনীর পাঁচটি জাহাজ (বিএনএস কর্ণফুলী, তিস্তা, পদ্মা ও এলসিভিপি ০১১, ০১৩) দুর্যোগ পরবর্তী বিভিন্ন কার্যক্রমে অংশগ্রহণের জন্য প্রস্তুত রয়েছে। নৌবাহিনীর চারটি কন্টিনজেন্ট ও অনেকগুলো চিকিৎসা সহায়তাকারী দল মোতায়েনের জন্য প্রস্তুত রয়েছে। এ ছাড়া নৌবাহিনী তিন স্তরবিশিষ্ট উদ্ধার তৎপরতা পরিকল্পনা প্রণয়ন করেছে। একই সঙ্গে ঢাকা, চট্টগ্রাম ও খুলনা এলাকায় স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে নিবিড় যোগাযোগ রক্ষা করছে। স্থানীয় প্রশাসনের অনুরোধে স্থানীয় জনসাধারণকে প্রয়োজনীয় সাহায্য ও নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নেওয়ার লক্ষ্যে খুলনা নৌঅঞ্চল থেকে সাতক্ষীরায় একটি কন্টিনজেন্ট মোতায়েন করা হয়েছে। জরুরি পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য চট্টগ্রাম নৌঅঞ্চলে ১০০ জন সদস্যের কন্টিনজেন্ট প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

বিমানবাহিনীর প্রস্তুতি প্রসঙ্গে আইএসপিআর পরিচালক বলেন, বিমানবাহিনী সদর দফতরে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের পরিস্থিতি মনিটরিংয়ের জন্য সার্বক্ষণিকভাবে মনিটরিং সেল সচল করা হয়েছে। বিমানবাহিনী সব এয়ার ক্রাফট দুর্যোগ পরবর্তী রেকি ও যেকোনো জরুরি মিশনের জন্য প্রস্তুত রাখা হয়েছে। শনিবার বিমানবাহিনীর একটি অগ্রগামী দুর্যোগ মোকাবেলা দল বরিশালের উদ্দেশে রওনা করে।





এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]