ই-পেপার শনিবার ২৫ জানুয়ারি ২০২০ ১০ মাঘ ১৪২৬
ই-পেপার শনিবার ২৫ জানুয়ারি ২০২০

নবজাতক রেখে পালাল মা : দত্তক নিতে ভিড়
কামরুজ্জামান হারুন চাঁদপুর
প্রকাশ: সোমবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১২:০০ এএম আপডেট: ০৯.১২.২০১৯ ১২:২১ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 119

চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে ১৪ দিনের এক নবজাতককে রেখে পালিয়ে গেছে মা। ৫ ডিসেম্বর দুপুরে হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডে নবজাতকটিকে ফেলে যাওয়া হয়। এ খবর পেয়ে রোববার পর্যন্ত শিশুটিকে প্রায় অর্ধশত মানুষ দত্তক নেওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছে। চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালের শিশু বিশেষজ্ঞ ডা. আব্দুল আজিজ জানান, বর্তমানে শিশুটির চিকিৎসা চলছে। তার দেখভাল করছেন চাঁদপুর সদর মডেল থানায় কর্মরত বিল্লাল হোসেনের নিঃসন্তান স্ত্রী।
দত্তক নিতে আগ্রহী বিল্লাল হোসেন জানান, দু’সপ্তাহ আগে আমার স্ত্রী যমজ সন্তানের জন্ম দেয়। কিন্তু দুটি সন্তানই ভ‚মিষ্ঠ হওয়ার পর মারা যায়। এমন পরিস্থিতিতে একজন মা নবজাতককে রেখে চলে গেছে, এ সংবাদ পেয়ে আমরা হাসপাতালে ছুটে আসি। এরই মধ্যে আমার স্ত্রী শিশুটিকে বুকের দুধ খাওয়াতে শুরু করেছে। শিশুটিকে দত্তক নেওয়ার জন্য আবেদন করা হয়েছে। এ ব্যাপারে চাঁদপুর মডেল থানার এসআই রাশেদুজ্জামান জানান, ‌হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বিষয়টি ওসি নাসিম উদ্দিনকে জানায়।
তিনি চাঁদপুর সমাজসেবা অধিদফতরকে বিষয়টি অবগত করেন। তারপর আমি এবং সমাজসেবা অধিদফতরের লোকজন ঘটনার সত্যতা জানতে পারি। চাঁদপুর সমাজসেবা অধিদফতরের কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম জানান, ‌‌শিশুটির অভিভাবক খোঁজা হচ্ছে। তবে কোনো অভিভাবক খুঁজে পাওয়া যায়নি। বাচ্চাটি অসুস্থ ছিল। তার চিকিৎসা চলছে। জেলা শিশুকল্যাণ বোর্ড থেকে যে সিদ্ধান্ত দেওয়া হবে, সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি জানান, রোববার পর্যন্ত প্রায় ৫০ জন শিশুটিকে দত্তক নিতে চেয়েছে; কিন্তু এভাবে দত্তক দেওয়ার নিয়ম নেই। দত্তক নিতে হয় আদালতের মাধ্যমে।
চাঁদপুর সরকারি হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. সুজাউদ্দৌলা রুবেল জানান, ওই নারী চাঁদপুর সদরের শাহতলি গ্রামের নাম-ঠিকানা ব্যবহার করে হাসপাতালে ভর্তি হলেও সেখানে এ ঠিকানায় কাউকে খুঁজে পাওয়া যায়নি।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]