ই-পেপার শনিবার ২৫ জানুয়ারি ২০২০ ১০ মাঘ ১৪২৬
ই-পেপার শনিবার ২৫ জানুয়ারি ২০২০

রাজবাড়ীতে রেলের শত শত  একর জমি বেদখল
বাদ যায়নি স্টাফ কোয়ার্টারও
রাজবাড়ী প্রতিনিধি
প্রকাশ: রোববার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১২:০০ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 25

রেলের শহর হিসেবে খ্যাত রাজবাড়ী। এক সময় এখানে রেলওয়ের রমরমা অবস্থান থাকলেও এখন রয়েছে নাজুক অবস্থায়। এখানে বেদখলে রয়েছে বাংলাদেশ রেলওয়ের শত শত একর জমি ও স্টাফ কোয়ার্টার। রেলওয়ের কিছু কর্মকর্তা-কর্মচারীর যোগসাজশে দিনের পর দিন এসব সম্পত্তি দখল করেছে প্রভাবশালী কিছু ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান। দখলকৃত জমির কোথাও মার্কেট, কোথাও বাজার আবার কোথাও বস্তি গড়ে উঠেছে। বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও সংগঠনের কার্যালয়ও রয়েছে রেলওয়ের জমিতে।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, রাজবাড়ীতে রেলওয়ের জমির পরিমাণ প্রায় ১ হাজার ৭০৩ একর। এর মধ্যে রেললাইন, স্টেশন, ব্রিজ, বিভিন্ন কোয়ার্টার ও স্থাপনাসহ অপারেশনাল জমির পরিমাণ ১ হাজার ৪০ একর। নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে প্রায় ৯১ একর জমি। আর জেলা প্রশাসনের আওতায় রয়েছে প্রায় ১৫ একর জমি। বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে ব্যবসা এবং বিভিন্ন কারণে লাইসেন্স বা লিজ দেওয়া হয়েছে ১ দশমিক ২৬ একর জমি। এর বাইরে মৎস্য ও কৃষিসহ অন্যান্য কাজে ব্যবহৃত প্রায় সবই রয়েছে অবৈধ দখলে। বেদখল হয়ে যাওয়া এই বিপুল পরিমাণ জমির মূল্য শত কোটি টাকা।
অন্যদিকে রাজবাড়ীতে রেলওয়ের ৪৬৫টি স্টাফ কোয়ার্টারের মধ্যে ৩৪৬টি কোয়ার্টার অবৈধভাবে ব্যবহার করছে সাধারণ মানুষ। আবার এসব কোয়ার্টারের মধ্যে কেউ কেউ একাধিক কোয়ার্টার দখল করে ভাড়া দিয়ে পুরো টাকাই ভরছে নিজের পকেটে।
রাজবাড়ী রেলওয়ের ঊর্ধ্বতন উপ-সহকারী প্রকৌশলী হাফিজুল রহমান জানান, তাদের লোকবল কম। অবৈধ স্টাফ কোয়ার্টার উচ্ছেদের জন্য একাধিকবার অভিযান চালানো হয়েছে; কিন্তু দখলমুক্ত করা যাচ্ছে না। তবে সরকার এসব কোয়ার্টার ভেঙে ফেলে নতুন করে বহুতল ভবন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
রাজবাড়ী রেলওয়ের ফিল্ড কানুনগো সাজ্জাদ হোসেন জানান, ইতোমধ্যে আমরা কালুখালী উপজেলায় রেলওয়ের অবৈধ জমি উদ্ধারের কাজ শুরু করেছি। পর্যায়ক্রমে রাজবাড়ীতেও শুরু হবে।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]