ই-পেপার শনিবার ২৫ জানুয়ারি ২০২০ ১০ মাঘ ১৪২৬
ই-পেপার শনিবার ২৫ জানুয়ারি ২০২০

ভৈরবে ৪ বছরের শিশু ধর্ষণের অভিযোগ
ভৈরব (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি
প্রকাশ: রোববার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১০:১৭ এএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 467

ভৈরবে ৪ বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। অভিযুক্ত ব্যক্তি উপজেলার কালিকাপ্রসাদ এলাকার কুমিরমানা গ্রামের আল আমিন মিয়ার ছেলে শাকিল। শুক্রবার রাতে এ ঘটনাটি ঘটে।

ধর্ষণের শিকার শিশুটি বর্তমানে কিশোরগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এ ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত শাকিল পলাতক।

শিশুর পরিবারের সূত্রে জানা যায়, বাড়ির আঙ্গিনায় চলছিল ওয়াজ-মাহফিল। স্বভাবতই বসেছিল খেলনা, খাবার, কসমেটিক্সসহ হরেক রকমের দোকান। বাড়ির উঠোনে বসা এসব দোকান দেখতে যায় চার বছর বয়সী ছোট্ট রিয়া (ছদ্মনাম)। শিশু রিয়াকে একা পেয়ে খারাপ নজর পড়ে একই এলাকার শাকিল (২০) নামে এক বখাটের। খাবার কিনে দেওয়ার কথা বলে শিশু রিয়াকে অনুষ্ঠানস্থল থেকে কিছুটা দূরে নিয়ে যায় শাকিল। পরে খাবার না পেয়ে শিশু মেয়েটি ফিরে আসতে চাইলে জোরপূর্বক কোলে তুলে পাশের কলা বাগানে নিয়ে শিশুটিকে ধর্ষণ করে বখাটে শাকিল।

এসময় ধর্ষণের শিকার শিশুটি চিৎকার-চেচামেচি করলেও ওয়াজ-মাহফিলে ব্যবহৃত মাইকের বিকট শব্দের কারণে তার চিৎকার শুনতে পায়নি কেউ। পরবর্তীতে ধর্ষণের শিকার শিশু মেয়েটি ঘটনার পর রক্তাক্ত শরীর নিয়ে বখাটে শাকিলের নানু খোদেজা বেগমের কাছে বিচার দিতে গেলে তিনি বিচার করবেন বলে আশ্বাস দেন।

খবর পেয়ে ভুক্তভোগীর পরিবার তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় ভৈরব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিকভাবে ধর্ষণের আলামত পেয়ে পুলিশে খবর দেয়।

পরে ভৈরব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ শাহীন হাসপাতালে পৌঁছে উন্নত চিকিৎসার জন্য ভুক্তভোগীকে কিশোরগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করেন। পরবর্তীতে ঘটনা জানাজানি হলে এলাকার কয়েকজন মিলে ওই বখাটে শাকিলকে আটক করেন। পরে বখাটের নানা গোলাপ মিয়া এসে তাৎক্ষণিক তার নাতি শাকিলকে ছাড়িয়ে নিয়ে যায় এবং এবিষয়ে বাড়াবাড়ি না করার জন্য ভুক্তভোগীর পরিবারকে হুমকি দিয়ে যায়।

এছাড়াও ঘটনার পরদিন শনিবার সকাল আটটার দিকে অভিযুক্তের নানা গোলাপ মিয়া রাম দা হাতে নিয়ে ভুক্তভোগীর বসতঘর কুপিয়েছেন বলে অভিযোগ করেন ভুক্তভোগীর চাচা।

এবিষয়ে ভৈরব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিক্যাল অফিসার ডাঃ এ জেড এম ফরহাদ জানান, ধর্ষণের প্রাথমিক আলমাত পাওয়া গেছে। আমরা টেস্টের জন্য আলামত সংগ্রহ করেছি এবং রোগীকে উন্নত চিকিৎসার জন্য পুলিশি পাহারায় কিশোরগঞ্জ সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

ভৈরব থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ শাহীন জানান, ঘটনার খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক হাসপাতালে যাই এবং বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও উন্নত চিকিৎসার জন্য রোগীকে কিশোরগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করি। এ ঘটনার সাথে জড়িত ব্যক্তিকে দ্রুত গ্রেপ্তার করে আইনের মাধ্যমে বিচারের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান তিনি।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]