ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা রোববার ৫ ডিসেম্বর ২০২১ ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
ই-পেপার রোববার ৫ ডিসেম্বর ২০২১

পিইসি, জেএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল আজ
বই উৎসবের প্রতীকী উদ্বোধন আজ
নিজস্ব প্রতিবেক
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১২:০০ এএম আপডেট: ৩১.১২.২০১৯ ১২:৩১ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 65

বছরের শেষ দিন আজ মঙ্গলবার চলতি বছরের পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণির পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হবে। প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি), ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী, জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষার ফলের অপেক্ষায় থাকা অর্ধকোটিরও বেশি শিশু-কিশোরের অপেক্ষার অবসান হচ্ছে।
রেওয়াজ অনুযায়ী, সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণির ফলের সার-সংক্ষেপ তুলে দেবেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি ও প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন। পরে সচিবালয়ে বেলা সাড়ে ১১টায় জেএসসি ও জেডিসি এবং দুপুর ১টায় প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষার ফলাফলের বিস্তারিত তুলে ধরবেন তারা।
শিক্ষা বোর্ডগুলোর ওয়েবসাইট (িি.িবফঁপধঃরড়হনড়ধৎফৎবংঁষঃং.মড়া.নফ) ছাড়াও সংশ্লিষ্ট বোর্ডের ওয়েবসাইট থেকে জেএসসি ও জেডিসির ফল জানা যাবে। যেকোনো মোবাইল মেসেজ অপশনে গিয়ে ঔঝঈ/ঔউঈ<ংঢ়ধপব>বোর্ডের নামের প্রথম তিন অক্ষর <ংঢ়ধপব>জড়ষষ ঘড়<ংঢ়ধপব>২০১৯ লিখে ১৬২২২ নম্বরে এসএমএস পাঠিয়ে জানা যাবে।
প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর (িি.িফঢ়ব.মড়া.নফ) এবং টেলিটকের ওয়েবসাইট (যঃঃঢ়://ফঢ়ব.ঃবষবঃধষশ.পড়স.নফ) থেকে প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি সমাপনীর ফল জানা যাবে। এ ছাড়া ফলাফল জানতে যেকোনো মোবাইল মেসেজ অপশনে গিয়ে উচঊ<ংঢ়ধপব>থানা/উপজেলার কোড নম্বর<ংঢ়ধপব>জড়ষষ ঘড়<ংঢ়ধপব>২০১৯ লিখে ১৬২২২ নম্বরে এসএমএস পাঠিয়ে জানা যাবে। ইবতেদায়ির ফলের জন্য ঊইঞ<ংঢ়ধপব>থানা/উপজেলার কোড নম্বর<ংঢ়ধপব>জড়ষষ ঘড়<ংঢ়ধপব>২০১৯ লিখে ১৬২২২ নম্বরে এসএমএস পাঠিয়ে জানা যাবে। এই এসএমএস লেখার সময় সরকারি অথবা রেজিস্টার্ড বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ঊগওঝ কোড নম্বরের প্রথম পাঁচ সংখ্যা উপজেলা/থানা কোড হিসেবে ব্যবহার করতে হবে। যা প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের ওয়েবসাইট, সংশ্লিষ্ট জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস, উপজেলা/থানা শিক্ষা অফিস ও প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে জানা যাবে।
উল্লেখ্য, প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি সমাপনীতে এবার ২৯ লাখ ৩ হাজার ৬৩৮ জন এবং জেএসসি ও জেডিসিতে ২৬ লাখ ৬১ হাজার ৬৮২ শিক্ষার্থী অংশ নিয়েছে।
বই উৎসবের প্রতীকী উদ্বোধন : ২০২০ শিক্ষাবর্ষের বিনামূল্যের পাঠ্যবইয়ের প্রতীকী উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তবে দেশব্যাপী পাঠ্যপুস্তক উৎসব হবে নতুন বছরের প্রথম দিন। প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরের (মাদ্রাসা, কারিগরিসহ) সোয়া চার কোটি শিক্ষার্থীর মধ্যে বিনামূল্যে বিতরণের জন্য ৩৫ কোটি সাড়ে ৩১ লাখ বই বিতরণ করা হবে। বিনামূল্যে বই দিতে এ বছর সরকারের খরচ হয়েছে প্রায় এক হাজার কোটি টাকা।
২০১০ সাল থেকে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরের সব শিক্ষার্থীকে বিনামূল্যে নতুন পাঠ্যবই দেওয়া শুরু করে সরকার। এরপর ধারাবাহিকভাবে শিক্ষার্থীদের বছরের শুরুতে উৎসব করে বিনামূল্যে বই দেওয়া হচ্ছে। ২০২০ শিক্ষাবর্ষের বছরের প্রথম দিনে শিক্ষার্থীদের হাতে তুলে দেওয়া হবে নতুন বই।
শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়েছে, পাঠ্যপুস্তকের কেন্দ্রীয় উৎসবের জন্য পৃথকভাবে মঞ্চ তৈরি করেছে দুই মন্ত্রণালয়। মাধ্যমিক স্তরের বই বিতরণ উৎসব হবে এবার রাজধানীর বাইরে সাভারে। সাভার অধরচন্দ্র সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মূল অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি ও মহিবুল হাসান চৌধুরী। অন্যদিকে প্রাথমিকের কেন্দ্রীয় পাঠ্যবই উৎসব হবে বিগত বছরগুলোর মতোই ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন এখানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন।





সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড
এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]