ই-পেপার শনিবার ১৮ জানুয়ারি ২০২০ ৪ মাঘ ১৪২৬
ই-পেপার শনিবার ১৮ জানুয়ারি ২০২০

মুশফিকের অপেক্ষা ফুরোবে আজ?
ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশ: শুক্রবার, ১৭ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:০০ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 1

বিপিএল আসে, বিপিএল যায়। দল বদলায় মুশফিকুর রহিমের, কিন্তু ভাগ্য বদলায় না। কোনো এক অভিশাপ যেন তাড়া করে ফিরছে তাকে! যেবার যে দলে নাম লিখিয়েছেন, সেই দল চ‚ড়ান্ত লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারেনি। তবে এবারের দৃশ্যপট খানিকটা ভিন্ন। অতীতের ধারাবাহিকতায় এবারও দল বদলে গেছে মুশফিকের, সেই সঙ্গে এবার বদলেছে ভাগ্যও। প্রথমবারের মতো তার দল ফাইনাল খেলতে যাচ্ছে। তাতে ঘুচেছে একটা অপেক্ষা। এবার আরেকটা অপেক্ষা ঘুচানোর পালা, শাপমোচনের পালা।
অনেকদিন ধরেই মিডিয়াকে এড়িয়ে চলছেন মুশফিক। এর মধ্যে আবার বিসিবি সভাপতি জানিয়েছেন, জাতীয় দলের সঙ্গে পাকিস্তান সফর করবেন না এই কিপার-ব্যাটসম্যান। পাকিস্তান যাওয়া না হওয়ার প্রশ্নে সরাসরি ‘না’ বলে দিয়েছেন তিনি। কি কারণে ‘না’ বলেছেন, মুশফিকের থেকে সেই ব্যাখ্যা এখনও পাওয়া যায়নি। আপাতত সেই ব্যাখ্যাটা দিতে চান না বলেই কি না কে জানে, সংবাদমাধ্যমকে একপ্রকার এড়িয়েই চলছেন তিনি! বৃহস্পতিবার বঙ্গবন্ধু বিপিএলের ফাইনালপূর্ব আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনেও কথা বলেননি খুলনা টাইগার্স দলপতি।
দলের সঙ্গে এসে দীর্ঘক্ষণ অনুশীলন করেছেন একাডেমি মাঠে। টিম হোটেলে ফিরে যাওয়ার আগে ট্রফি উন্মোচন অনুষ্ঠানে হাজির হন, অংশ নেন ফটোসেশনে। মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে ওই ফটোসেশন শেষ হওয়ার পরই সবাইকে অবাক করে দিয়ে মুশফিক হাঁটা দেন ড্রেসিংরুমের পথে। এই কিপার-ব্যাটসম্যানের মুখে তখনও চওড়া হাসি ছিল। তার মুখে হাসি দেখা গেছে গোটা অনুষ্ঠানেই। যখন প্রতিপক্ষ রাজশাহী রয়্যালসের অধিনায়ক আন্দ্রে রাসেলের সঙ্গে সোনালি ট্রফিটা উন্মোচন করলেন, মুশফিকের মুখ থেকে তখন বেড়িয়ে এলো ‘ওয়াও’ শব্দটা। চোখে খেলে গেল অন্যরকম এক আভা। বিপিএলে এমন অভিজ্ঞতা যে তার এবারই প্রথম।
আগের ছয়টি বিপিএলে ভিন্ন ভিন্ন ছয়টি ফ্র্যাঞ্চাইজির হয়ে খেলেছেন মুশফিক। তিনবার শেষ চারে থাকলেও কোনোবারই তার দল ফাইনাল পর্যন্ত যেতে পারেনি। প্রতিটি বিপিএল মুশফিকের কেটেছে একরাশ হতাশায়। হতাশাটা দিনকে দিন বেড়েই চলছিল। মাশরাফি বিন মর্তুজা, সাকিব আল হাসানের পর তামিম ইকবালও আরাধ্য ট্রফিটা উচিয়ে ধরেছেন, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ বাদে জাতীয় দলের সিনিয়র পাঁচ সদস্যের মধ্যে মুশফিকই কেবল সেটা পারেননি। মাহমুদউল্লাহর তবু ফাইনাল খেলার সুযোগ হয়েছে, মুশফিকের সেটাও হয়নি এতদিন।
এই আক্ষেপ আর অপেক্ষাটা ঘুচে গেছে। মুশফিক এখন শিরোপা উচিয়ে উৎসব করার অপেক্ষাটা ঘুচানোর অপেক্ষায়। সতীর্থরাও খুব করে চাইছেন, অপেক্ষাটা ঘুচে যাক এবার। সবার কথার ভাবার্থ এমনÑ বিপিএলের কাছে একটা শিরোপা এতদিনে পাওনা হয়ে গেছে মুশফিকের। দলের তরুণ অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজ যেমন বললেন, ‘আমার মনে হয়, এটা মুশফিক ভাইয়ের জন্য একটা বড় সুযোগ এবং বড় পাওয়া হবে যদি আমরা চ্যাম্পিয়ন হতে পারি। (সিনিয়রদের) সবাই কিন্তু কম-বেশি চ্যাম্পিয়ন হয়েছে, মুশফিক ভাই এখন পর্যন্ত হয়নি।’
এই বিপিএলে খুলনার অপ্রতিরোধ্য হয়ে ওঠার পেছনে বড় অবদান মুশফিকের। ১৩ ম্যাচে ৪৭০ রান করে তিনি কেবল খুলনার নন, এই বিপিএলেই এখন পর্যন্ত সর্বাধিক রান সংগ্রাহক। শুধু এই বিপিএল নয়, সব বিপিএল মিলিয়েই মুশফিক রানের হিসেবে সবার থেকে এগিয়ে। ২ হাজার ২৫৩ রান তার। আজ রানের সংখ্যাটা যতটা সম্ভব বাড়িয়ে নিতে চাইবেন মুশফিক। গোটা বিপিএলে যেভাবে সামনে থেকে দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন সেভাবে নেতৃত্ব দিয়েই শিরোপার উৎসবে মাতার সুযোগটা নিশ্চয় হারাতে চাইবে না তিনি। তবেই না অপেক্ষাটা ফুরোবে।





সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]