ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শনিবার ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ৯ ফাল্গুন ১৪২৬
ই-পেপার শনিবার ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০

নির্বাচনে পাশে থাকার অঙ্গীকার
মেয়রপ্রার্থী আতিকের কাছে প্রত্যাশার কথা জানালেন ব্যবসায়ীরা
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ২৩ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:০০ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 29

আসন্ন ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে উত্তরের ক্ষমতাসীন দলের মেয়রপ্রার্থী আতিকুল ইসলামের প্রতি অকুণ্ঠ সমর্থন জানালেন পোশাক খাতের ব্যবসায়ীরা। নির্বাচনে আতিকুল ইসলামের পাশে থকারও অঙ্গীকার করেন তারা। সে সঙ্গে বাসযোগ্য ঢাকা গড়ে তুলতে অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে কী কী করা প্রয়োজন, ঢাকা উত্তরে ক্ষমতাসীন দলের মেয়রপ্রার্থী আতিকুল ইসলামের কাছে সে প্রত্যাশার কথা তুলে ধরেছেন পোশাক খাতের ব্যবসায়ীরা। আর ভোটের দিন ঘরে বসে না থেকে কেন্দ্রে চলে আসতে ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বিজিএমইএ’র সাবেক এই সভাপতি আতিক।
ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোটগ্রহণের ১০ দিন আগে মঙ্গলবার মহাখালীতে রাওয়া ক্লাবে ‘শহর নিয়ে ব্যবসায়ীদের প্রত্যাশা’ শীর্ষক মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়। বিজিএমইএ, বিকেএমইএ ও বিটিএমএ আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সাবেক মেয়র আনিসুল হকের স্ত্রী ও বিজিএমইএ’র বর্তমান সভাপতি রুবানা হক।
এক বছর আগে আনিসুল হকের শূন্য পদে আতিকুল যখন উপনির্বাচনে দাঁড়িয়েছিলেন; তখন একই স্থানে এ ধরনের অনুষ্ঠানে মিলেছিলেন এই ব্যবসায়ীরা। রুবানা হক বলেন, ব্যবসায়ী আর জনগণের সেবক দুটি ভিন্ন বিষয়। অল্পস্বল্প চেষ্টা করে পার পাওয়া যাবে না। মেয়র নির্বাচিত হলে আতিকের কাছে নারীর জন্য নিরাপদ শহর প্রতিষ্ঠার দাবি জানান রুবানা। পাশাপাশি বেদখল জায়গা ও জলাশয়গুলো উদ্ধার, ঢাকার বাতাসের মানোন্নয়নে কাজ করতে বলেন তিনি। অহেতুক তোষামোদী করে মেয়রপ্রার্থী আতিকের কাজে বিঘ্ন না ঘটাতে সবার প্রতি আহ্বান জানিয়ে রুবানা বলেন, জয়ের সেøাগানের সঙ্গে দাবির সেøাগানও তুলতে হবে। অল্প সময়ের মধ্যে অনেক কিছু বদলে দেওয়া যায় সেটা প্রমাণিত হয়েছে।
এফবিসিসিআই ও বিজিএমইএ’র সাবেক সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন বলেন, ব্যবসায়ী সমাজ আগামী দিনে সবক্ষেত্রে নেতৃত্ব দেবে। মেয়রপ্রার্থী আতিককে আগাম অভিনন্দন জানিয়ে তিনি বলেন, তিনি একজন রত্নগর্ভা মায়ের সস্তান। তার জয়ের জন্য যা যা করা দরকার ব্যবসায়ীদের করতে হবে।
অনুষ্ঠানে বিজিএমইএ’র সাবেক সভাপতি আনোয়ার-উল-আলম চৌধুরী পারভেজ বলেন, ব্যবসায়ী ও এই শহরের বাসিন্দা হিসেবে আমাদের প্রত্যাশা হচ্ছে ট্রাফিক পরিস্থিতির উন্নতি হচ্ছে কি না, শহরে হাঁটার ক্ষেত্রে নাগরিকরা নিরাপদ বোধ করছেন কি না এসব। এখনও বিদেশি ক্রেতারা এলে হোটেল থেকে বের হতে ভয় পান। এ পরিস্থিতির উন্নতি হচ্ছে কি না। নাগরিক হিসেবে এবং ব্যবসায়ী হিসেবে এগুলো আমাদের সমস্যা। মেয়রের কাছে আমরা এর সমাধান চাই। তিনি বলেন, আনিস ভাইয়ের সময় এসব সমস্যার সমাধানে মাস্টারপ্ল্যান নেওয়া হয়েছিল। বিগত নয় মাসের স্বল্প সময়ে আতিক ভাইও সেটা এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেছিলেন। মানুষকে জানার, বোঝার অসম্ভব আগ্রহ আছে তার।
সবার কথা শুনে আতিকুল ইসলাম বলেন, আপনারা সবাই যখন একেকজন আতিক হয়ে মাঠে নামবেন, তখন বড় বার্তা যাবে। প্রধানমন্ত্রী ব্যবসায়ীদের বেছে নিয়েছেন, আপনারা সবাই মাঠে নামেন।
মেয়রের দায়িত্ব নেওয়ার নয় দিনের মাথায় কুড়িলে বিশ^বিদ্যালয় ছাত্র আবরার সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হওয়ার প্রসঙ্গ তুলে ধরে তিনি বলেন, এরপর একে একে এসেছে বনানীর টাওয়ারের আগুন, গুলশান ডিসিসি মার্কেটের আগুন, এরপর এসেছে ডেঙ্গু। এ সবকিছু মোকাবেলা করতে গিয়ে ভালো একটা ওয়ার্মআপ হয়েছে। এই অভিজ্ঞতা দিয়ে আগামীতে জয়যুক্ত হলে পাঁচ বছরের টেস্ট খেলতে পারব।
সাবেক মেয়ার আনিসুল হকের নেওয়া ফ্রাঞ্চাইজির মাধ্যমে বাসসেবা, ইউলুপ সেবা ও এলইডি বাতি প্রকল্পের ফাইল তার মৃত্যুর পর গায়েব হয়ে গেছে দাবি করে আতিক বলেন, নির্বাচিত হলে ছয় মাসের মধ্যেই এসব প্রকল্প আবার দৃশ্যমান করবেন তিনি। আনিসুল হকের মৃত্যুর পর প্রধানমন্ত্রী বাসরুটের দায়িত্বটি দক্ষিণের মেয়র সাঈদ খোকনের কাছে দিলেও তিনি কাজটি ‘সঠিকভাবে করেননি’ বলে অভিযোগ করেন আতিকুল।
বিটিএমএ’র সভাপতি মোহাম্মদ আলী খোকন বলেন, যানজটমুক্ত শহর চাই। লেকগুলো নর্দমায় পরিণত হয়েছে, সেটা মশা উৎপাদনের কেন্দ্রে পরিণত হয়েছে। এসব সমস্যার সমাধান চাই।
সাবেক মেয়র আনিসুলের মতো আতিকুলকেও একজন উদ্যমী মানুষ অভিহিত করে তিনি বলেন, শহরটা নিরাপদ করতে হবে। আনিস ভাই গুলশান, বনানী ও নিকুঞ্জ এলাকায় সিসিটিভি স্থাপন করেছেন। ফলে সেখানে এখন আর গাড়ি চুরি হয় না। সারা ঢাকাকে সিসিটিভির আওতায় নিয়ে আসতে হবে।’
বিকেএমইএ’র ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোহাম্মদ হাতেম বলেন, আতিক ভাই আনিস ভাইয়ের অসমাপ্ত কাজগুলো এগিয়ে নেওয়ার মতোই যোগ্যতা রাখেন।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]