ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১৪ আশ্বিন ১৪২৭
ই-পেপার মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

কাঠগড়ায় লাহোরের উইকেট
ক্রীড়া ডেস্ক
প্রকাশ: রোববার, ২৬ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:০০ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 13

টি-টোয়েন্টি মানেই চার-ছক্কার উন্মাদনা; গ্যালারিতে আছড়ে পড়বে বল আর দর্শকরাও উপভোগ করবে ক্রিকেটের ছোট ফরম্যাট। কিন্তু লাহোরের গাদ্দাফির স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ-পাকিস্তানের সিরিজে নেই উপভোগের সেই রসদ। মন্থর উইকেটে বাউন্ডারি হাঁকাতে রীতিমতো ঘাম ঝরাতে হচ্ছে দুদলকে। এতে পাকিস্তানের সাবেক দুই অধিনায়ক ইনজামাম উল হক এবং রশিদ লতিফ কাঠগড়ায় তুলেছেন গাদ্দাফি স্টেডিয়ামের উইকেটকে। নিজ দেশের উইকেটের মান নিয়ে সমালোচনায় মেতেছেন পাকিস্তানের কিংবদন্তি পেসার শোয়েব আখতারও।
লাহোরের উইকেট বরাবরই কিছুটা মন্থর। কিন্তু চলমান সিরিজে সেটা একটু বেশিই চোখে পড়ছে। প্রমাণ মিলেছে বাংলাদেশ-পাকিস্তানের প্রথম ম্যাচে। প্রথমে ব্যাটিং করে নির্ধারিত ২০ ওভারে টাইগাররা ৫ উইকেট হারালেও সর্বসাকুল্যে পায় ১৪১ রানের সংগ্রহ। যা তাড়া করতে নেমে হিমশিম খেতে হয় স্বাগতিকদেরও। জয়ের বন্দরে পৌঁছাতে খেলতে হয় ১৯.৩ ওভার। শনিবার দ্বিতীয় ম্যাচে তো আরও ৫ রান কমেই থেমেছে বাংলাদেশ। অথচ সিরিজ শুরুর আগে আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে পাকিস্তানের অধিনায়ক বাবর আজম বলেছিলেন, জয়ের জন্য প্রয়োজন হতে পারে ১৮০-১৯০ রান।
প্রত্যাশিত উইকেট না পাওয়ায় লাহোরে রানখড়ায় ভুগছে দুদল। যা ভালোভাবেই নজরে পড়েছে ইনজামামের। তাই কিউরেটরদের আরও ভালো মানের পিচ বানানোর আহ্বান সাবেক প্রধান নির্বাচক। তার ভাষ্য ছিল ঠিক এমন, ‘এটা কোনো দিক থেকেই আমার কাছ টি-টোয়েন্টি ম্যাচের মতো লাগেনি। কিউরেটরদের ভালো মানের পিচ বানানোর অনুরোধ করছি। টি-টোয়েন্টি ম্যাচে মানুষ চার-ছক্কা দেখতে আসে। পিচ অনেক কঠিন ছিল এমনকি ১৪২ রানও অনেক বড় লক্ষ মনে হচ্ছিল।’
ক্রিকেট পাকিস্তানকে উদ্দেশ্য করে ইউটিউব ভিডিওতে ইনজামাম আরও বলেন, ‘আমাদের এমন উইকেট প্রয়োজন যেখানে গড়ে ১৯০ বা ২০০ রান হবে। তাহলেই আমাদের ব্যাটসম্যানরা বড় রান তাড়ায় অভ্যস্ত হতে পারবে। একই ভাবে এটি আমাদের বোলারদের সাহায্য করবে। শিখতে পারবে কীভাবে ফ্লাট উইকেটে ব্যাটসম্যানদের থামিয়ে রাখতে হয়। অস্ট্রেলিয়া টি-টোয়েন্টি ম্যাচগুলোর জন্য ফ্লাট ট্র্যাক তৈরি করে যেখানে বড় সংগ্রহ স্বাভাবিক বিষয়। আমাদেরও এমনটা অনুসরণ করা প্রয়োজন।’
লতিফের পরামর্শ পাকিস্তান সুপার লিগের (পিএসএল) আগে পিচের মান বাড়ানো উচিত। সাবেক অধিনায়ক বলেন, ‘শীতে ভালো পিচ বানানো কঠিন। পিএসএল দরজায় কড়া নাড়ছে এবং মনে হচ্ছে, ওই আসরেও পিচগুলোর একই আচরণ দেখা যাবে। যদি পিসিবি (পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড) কঠোর চেষ্টা করে, তারা এমন পিচ বানাতে পারবে যেখানে গড়ে ১৬০ বা ১৭০ রান হওয়া সম্ভব। ২০০ রানের পিচ আমরা চাচ্ছি না, তবে আধুনিক ক্রিকেটে টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ১৪০ রান খুবই কম স্কোর।’
এদিকে প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচের পর গাদ্দাফি স্টেডিয়ামের উইকেটের সমালোচনায় শোয়েব আখতার বলেন, ‘জিতলেও ঠিক মজা পাইনি। কারণ উইকেট বানানোর ক্ষেত্রে পাকিস্তান ভুল থেকে শিক্ষা নেয়নি। এ ম্যাচের উইকেট শতভাগ নিম্নমানের। মানুষ বড় ইনিংস দেখতে চায়। অনেক রান দেখতে চায়। কিন্তু এখানে বোলাররা গতি পাচ্ছে না। ব্যাটসম্যানের ব্যাটে বল যাচ্ছে না। গতি, বাউন্সের কিছুই নেই। ১৫ বছর আগে যখন মুলতান, পেশোয়ার বা লাহোরে খেলতাম, তখনও উইকেট এমন ছিল। এখন পরিবর্তন দরকার। না হলে ক্রিকেটে দর্শকের আগ্রহ কমে যাবে।’











সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]