ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা মঙ্গলবার ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ১১ ফাল্গুন ১৪২৬
ই-পেপার মঙ্গলবার ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০

মুশফিক-মার্শালের দিনটা নাঈমেরও
ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশ: শনিবার, ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:০০ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 9

নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা থাকায় পাকিস্তান সফরে বাংলাদেশ দলের সঙ্গী হননি মুশফিকুর রহিম। এই কিপার-ব্যাটসম্যান নিজেকে ব্যস্ত রেখেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগে (বিসিএল)। তবে আগের রাউন্ডগুলোতে সেভাবে জ্বলে উঠতে পারেননি। ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়ে সিরিজ যখন সমাগত, তখন উত্তরাঞ্চলের হয়ে খেললেন ১৪০ রানের অনবদ্য এক ইনিংস, জানিয়ে দিলেন আসন্ন সিরিজের জন্য তিনি প্রস্তুত। মুশফিকের মতো বিসিএলের তৃতীয় রাউন্ডে সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন মধ্যাঞ্চলের মার্শাল আইয়ুবও। পূর্বাঞ্চলের অফস্পিনার নাঈম হাসান নিয়েছেন ৮ উইকেট।
রাওয়ালপিন্ডি টেস্টে নাঈম ছিলেন একাদশের বাইরে। ঘরোয়া ক্রিকেটে ফিরে আলো ছড়িয়ে তিনি জানিয়ে দিলেন, পাকিস্তানি ব্যাটসম্যানদের জন্য তিনি তৈরিই ছিলেন। পাকিস্তানফেরত দুই ব্যাটসম্যান সাইফ হাসান আর নাজমুল হোসেন শান্ত ছিলেন নিজেদের ছায়া হয়ে। ব্যর্থ হয়েছেন চোট কাটিয়ে বিসিএলের তৃতীয় রাউন্ড দিয়েই মাঠে ফেরা মেহেদী হাসান মিরাজ আর মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। ব্যাট করতে নেমে দুজনেই আউট হয়েছেন রানের খাতা খোলার আগেই। মুশফিক আর মার্শাল বাদে তৃতীয় রাউন্ডের প্রথম দিনটা সব ব্যাটসম্যানেরই দুঃস্বপ্নের মতো কেটেছে।
কক্সবাজারের শেখ কামাল আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে নাঈমের ঘূর্ণিতে নাকাল হয়েছে উত্তরাঞ্চলের ব্যাটসম্যানরা। সেখানে উজ্জ্বল ব্যতিক্রম ছিলেন মুশফিক। প্রথম শ্রেণির ক্যারিয়ারে তার একাদশ সেঞ্চুরির সুবাদেই অলআউট হওয়ার আগে ২৭২ রান তুলতে পারে উত্তরাঞ্চল। জবাব দিতে নেমে ৩ রান তুলতেই দুই উইকেট হারিয়েছে পূর্বাঞ্চল। শেখ কামাল স্টেডিয়ামসংলগ্ন একাডেমি মাঠে মার্শালের ২০তম সেঞ্চুরির পরও অলআউট হওয়ার আগে ২৩৫ রানের বেশি তুলতে পারেনি মধ্যাঞ্চল। জবাব দিতে নেমে ২ উইকেটে ২৯ রান নিয়ে দিনের খেলা শেষ করেছে দক্ষিণাঞ্চল।
টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরু থেকেই নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারায় মধ্যাঞ্চল। ১ রান করে তৃতীয় ওভারেই ফেরেন সাইফ, অষ্টম ওভারে ফেরার আগে শান্ত করতে পারেন ৮ রান। আবদুল মজিদ, রকিবুল হাসান আর শুভাগত হোম ব্যর্থ হলেও লেজের ব্যাটসম্যানদের সঙ্গী করে মধ্যাঞ্চলকে টেনেছেন মার্শাল। ১২টি চার আর ২টি ছক্কায় ১৬৮ বলে ১১৬ রানের ইনিংস খেলেছেন এই ডানহাতি। দলের পক্ষে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩০ রান করেছেন মোস্তাফিজুর রহমান। ২১ রান এসেছে জাবিদ হোসেনের ব্যাট থেকে। এদিন বল হাতে পাওয়া দক্ষিণাঞ্চলের সব বোলারই উইকেট শিকার করেছেন। তবে ৭৮ রানে ৩ উইকেট নিয়ে সব থেকে সফল ছিলেন অফস্পিনার মেহেদী হাসান।
অপর ম্যাচে পূর্বাঞ্চলের অফস্পিনার নাঈমের ঘূর্ণিতে রীতিমতো নাকাল হয়েছেন উত্তরাঞ্চলের ব্যাটসম্যানরা। মুশফিক ওভাবে দাঁড়িয়ে না গেলে কী হতো কে জানে! ১৬টি চার আর একটি ছক্কায় ১৫৭ বলে ১৪০ রানের ইনিংস উপহার দিয়েছেন বাংলাদেশের ক্রিকেটের ‘মিস্টার ডিপেন্ডেবল’। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩১ রান করেছেন দলপতি নাঈম। ওপেনার রনি তালুকদার ২৮ আর সানজামুল ইসলাম ২৯ রান করেন। এরপর আর বলার অপেক্ষা রাখে না, উত্তরাঞ্চলের পুরো ইনিংসটাই আবর্তিত হয়েছে নবম ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হওয়া মুশফিকের ব্যাটে। তাকে বোল্ড করেন হাসান মাহমুদ। ৫০ রানে ২ উইকেট নেওয়া ডানহাতি পেসার বোল্ড করেন আরিফুল হককেও। উত্তরাঞ্চলের বাকি ৮ ব্যাটসম্যানকেই আউট করেছেন নাঈম। ইনিংসে ৮ উইকেট পাওয়া এবারই অবশ্য প্রথম নয় এই অফস্পিনারের।





সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]