ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা  বুধবার ১ এপ্রিল ২০২০ ১৭ চৈত্র ১৪২৬
ই-পেপার  বুধবার ১ এপ্রিল ২০২০

এসআই জাহিদসহ পাঁচ জনের সর্বোচ্চ শাস্তি চায় বাদী পক্ষ
আদালত প্রতিবেদক
প্রকাশ: বুধবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৯:২৫ পিএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 49

থানায় নিয়ে জনি নামের এক যুবকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগে তৎকালীন পল্লবী থানার এসআই জাহিদুর রহমান জাহিদসহ পাঁচ জনের বিরুদ্ধে করা মামলায় সর্বোচ্চ সাজা যাবজ্জীবন কারাদন্ডের দাবি করেছেন বাদী পক্ষ।

বুধবার এ মামলায় বাদী ও আসামি পক্ষের যুক্তি উপস্থাপানের জন্য দিন ধার্য ছিল। এদিন ঢাকার মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশের আদালতে বাদীপক্ষের আইনজীবী মশিউর রহমান এবং আবু তৈয়ব যুক্তি উপস্থাপন শেষে এ সাজা দাবি করেন। পাশাপাশি তারা আদালতে দুই লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দাবি করেন।

অপরদিকে বাদীপক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে আসামিপক্ষে যুক্তি উপস্থাপন শুরু করেন আইনজীবী ফারুক আহাম্মদ। তবে এদিন আসামি পক্ষে যক্তি উপস্থাপন শেষ না হওয়ায় আদালত বৃহস্পতিবার অবশিষ্ট যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের দিন ধার্য করেন।

মামলাটিতে এসআই জাহিদুর রহমান জাহিদ ও পুলিশের সোর্স মিন্টু কারাগারে আছেন। একই থানার এসআই কামরুজ্জামান মিন্টু এবং পুলিশের সোর্স রাশেদ ও সুমন জামিনে আছেন।

এদিন এসআই কামরুজ্জামান মিন্টু ও সুমন আদালতে হাজির না হওয়ায় আদালত তাদের জামিন বাতিল করে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। অপরদিকে এসআই রাশেদুল ইসলাম আদালতে হাজির ছিলেন।

মামলার আরজি থেকে জানা যায়, ২০১৪ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি মিরপুর ১১ নম্বর সেক্টরে সাদেকের ছেলের বিয়ে বাড়িতে গায়ে হলুদের অনুষ্ঠান হচ্ছিল। সেখানে পুলিশের সোর্স সুমন উপস্থিত হয়ে মেয়েদের সঙ্গে আশালীন আচরণ করে। ওই
বাড়ির বাসিন্দা জনি ও রনি নামের দুই ভাই সুমনকে বুঝিয়ে স্থান ত্যাগে বাধ্য করে। পরের দিন সুমন এসে আবার আগের মতো আচরণ করতে থাকে। তখন জনি ও তার ভাই তাকে চলে যেতে বললে সুমন পুলিশকে ফোন করে তাদের ধরে নিয়ে যায়। তাদের নিয়ে যাওয়ার সময় এলাকার লোকজন ধাওয়া করলে পুলিশ গুলি ছুঁড়তে ছুঁড়তে চলে যায়।

পরবর্তীতে তাদেরকে থানায় নিয়ে অমানবিক নির্যাতন করে। এতে দুজন গুরুতর আহত হলে তাদের ন্যাশনাল মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। জনির অবস্থা আশঙ্কাজনক হলে হাসপাতালের চিকিৎসকরা তাকে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে পাঠান। ঢাকা মেডিকেলে নেয়া হলে সেখান কর্তব্যরত চিকিৎসকরা জনিকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ঘটনায় ৭ আগস্ট জনির ছোট ভাই ইমতিয়াজ হোসেন রনি ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতে পল্লবী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিয়াউর রহমানসহ আটজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।




এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]