ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শনিবার ৬ জুন ২০২০ ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
ই-পেপার শনিবার ৬ জুন ২০২০

পোশাক ব্যবহারে সতর্কতা
মো. গোলাম দস্তগীর
প্রকাশ: বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১১:১৭ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 27

পোশাক মানুষের ভূষণ ও লজ্জা নিবারণের উপকরণ। পোশাকে মানুষের রুচি ও স্বভাবের প্রকাশ ঘটে। ভালো ও উত্তম পোশাক অনেক সময় মন্দ কাজ থেকে বিরত রাখে। আবার অনেক পোশাক এমন আছেÑ যাতে পরিধানকারী নিজেও যেকোনো পাপকর্ম সহজেই করতে পারে, তেমনি অন্যদেরও পাপকর্মে প্রলুব্ধ করে। তাই পোশাক-পরিচ্ছদের ব্যাপারে সতর্কতা কাম্য।
ইসলামে মানবজীবনের প্রতিটি বিষয়ের বিধান রয়েছে। পোশাকের ব্যাপারেও ইসলামের সুন্দর বিধান রয়েছে। ব্যক্তিজীবনে সুন্নতসম্মত পোশাক পরিধান করা। সন্তানদেরও সুন্নতসম্মত পোশাকে অভ্যস্ত করা। কারণ ছোটবেলায় মানুষ যে পোশাকে অভ্যস্ত হবে, পুরো জীবন সে প্রভাব নিয়েই অতিবাহিত হবে। বিশেষত মেয়েদের পোশাক যেন হয় শালীন ও শরিয়তসম্মত। আশ্চর্য হতে হয়, অনেক অভিভাবক ইচ্ছা করেই যেন নিজের মেয়েকে আপত্তিকর পোশাক পরিয়ে শহরের অলি-গলিতে, মার্কেটে, শপে ঘুরে বেড়ানোর সুযোগ দেন! অথচ এই মেয়ের মা-বাবা ধর্মকর্ম করছেন, নামাজ পড়ছেন, হজও করছেন, কিন্তু ইসলামের পোশাক ও পর্দার বিধান যেন জানেনই না! জানলেও যেন মানতে হয় না!
অথচ আল্লাহ বলছেন, ‘হে নবী! আপনি ঈমানদার নারীদেরকে বলুন, তারা যেন তাদের দৃষ্টিকে অবনত রাখে এবং তাদের যৌন অঙ্গের হেফাজত করে। তারা যেন যা সাধারণত প্রকাশমান, তা ছাড়া তাদের সৌন্দর্য প্রদর্শন না করে। তারা যেন তাদের মাথার ওড়না বুকের ওপর ফেলে রাখে। তারা যেন তাদের স্বামী, পিতা, শ^শুর, পুত্র, স্বামীর পুত্র, ভাই, ভাতিজা, ভগ্নিপুত্র, অধিকারভুক্ত বাদী, যৌনকামনামুক্ত পুরুষ ও বালক; যারা নারীদের গোপন অঙ্গ সম্পর্কে অজ্ঞ, তাদের ব্যতীত অন্য কারও কাছে তাদের সৌন্দর্য প্রকাশ না করে। তারা যেন তাদের গোপন সাজসজ্জা প্রকাশ করার জন্য দর্পভরে পদচারণা না করে। হে মুমিনগণ! তোমরা সবাই আল্লাহর সামনে তওবা কর, যাতে তোমরা সফলকাম হও।’ (সুরা নুর : ৩১)
আল্লাহ আরও বলেছেন, ‘হে নবী! আপনি আপনার পত্নীগণকে ও কন্যাগণকে এবং মুমিনদের স্ত্রীগণকে বলুন, তারা যেন তাদের চাদরের কিছু অংশ নিজেদের ওপর টেনে নেয়। এতে তাদেরকে চেনা সহজ হবে। ফলে তাদেরকে উত্ত্যক্ত করা হবে না। আল্লাহ ক্ষমাশীল ও পরম দয়ালু।’ (সুরা আহজাব : ৫৯)। এই আয়াতের ব্যাখ্যায় হজরত আবদুল্লাহ ইবনে আব্বাস (রা.) বলেছেন, ‘আল্লাহ তায়ালা মুমিন নারীদেরকে আদেশ করেছেন, যখন তারা কোনো প্রয়োজনে ঘর থেকে বের হবে তখন যেন মাথার ওপর থেকে ওড়না বা চাদর টেনে নিজের মুখমণ্ডল আবৃত করে রাখে। আর (চলাফেরার সুবিধার্থে) শুধু এক চোখ খোলা রাখে।’ (ফাতহুল বারি : ৮/১১৪)
পোশাক-পরিচ্ছদের ক্ষেত্রে নিজেরা যেমন কোরআন-হাদিসের নির্দেশনা মেনে চলা, তেমনি অধীনস্থ ও সন্তানদের ক্ষেত্রে পরামর্শ ও উপদেশ দেওয়া। সাধ্যমতো ব্যবস্থাপনাও করা। হজরত আমর ইবনে আস (রা.)-এর একজন পুত্রের নাম আব্দুল্লাহ (রা.)। তিনি বলেন, একবার আমি ‘উসফুর’ (ছোট ধরনের লাল বর্ণের ফুল গাছ) দ্বারা রাঙানো এক জোড়া পোশাক পরিধান করেছিলাম। নবীজি (সা.) তখন আমাকে দেখে বললেন, এগুলো হচ্ছে অমুসলিমদের পোশাক। অতএব তুমি এসব পরিধান কর না।’ (মুসলিম : ২০৭৭; নাসায়ি : ৫৩১৬)। এ থেকে বুঝে আসে সন্তানদের পোশাক-পরিচ্ছেদের ব্যাপারে অভিভাবকদের সতর্কতা অবলম্বন জরুরি।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]