ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শনিবার ২৮ মার্চ ২০২০ ১৩ চৈত্র ১৪২৬
ই-পেপার শনিবার ২৮ মার্চ ২০২০

কিশোরগঞ্জ অর্থনৈতিক অঞ্চল
পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা ছাড়াই চলছে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ
পাকুন্দিয়া (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১১:১২ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 6

পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না রেখেই কিশোরগঞ্জ অর্থনৈতিক অঞ্চলে (কেইজি) সীমানা প্রাচীর নির্মাণকাজ চলছে। এতে ক্ষুব্ধ জেলার পাকুন্দিয়া উপজেলার ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাবাসী। তাদের দেওয়া আপত্তি সংক্রান্ত আবেদনপত্র পেয়ে বুধবার পাকুন্দিয়া উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নাহিদ হাসান এলাকা পরিদর্শন করেছেন।
জানা গেছে, পাকুন্দিয়ায় কিশোরগঞ্জ অর্থনৈতিক অঞ্চল (কেইজি) কর্তৃক বিশাল এলাকার পানি যাওয়ার রাস্তা; সরকারি খালের কালভার্ট ভেঙে মাটি ভরাট করে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ চলছে। এতে উজানের শালঙ্কা, বিশুহাটি, জুনাইল, জৈত্রা, মাসিমপুর, পাঁচলগোটা, মাইজহাটি ও পুলেরঘাট উপশহরের পানি নিষ্কাশন বন্ধ হয়ে যাবে। উল্লিখিত খালটি ছাড়া পানি নিষ্কাশনের আর কোনো রাস্তা নেই। এ ছাড়া পানি নিষ্কাশন বন্ধের কারণে বৃহৎ অঞ্চলের শত শত একর জমি জলাবদ্ধ হয়ে ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এ ব্যাপারে এলাকাবাসীর পক্ষে এএকএম আবু তাহের বর্ষা মৌসুমের আগেই পানি উন্নয়ন বোর্ডের মতামত নিয়ে জরুরিভিত্তিতে পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা, ইউনিয়ন পরিষদের কালভার্ট ভাঙার
যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমোদন ছিল কিনা, থাকলে অতি শিগগিরই কালভার্টটি পুনর্নির্মাণ করে খালের মুখটি খুলে দেওয়া, ম্যাপ অনুযায়ী সরকারি সার্ভেয়ার দিয়ে সীমানা নির্ধারণ করে কাজ করার দাবি জানিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর আবেদন করেছেন। এরই প্রেক্ষিতে পাকুন্দিয়া উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নাহিদ হাসান আবেদনে উল্লিখিত স্থানগুলো ঘুরে ঘুরে দেখেন। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপপ্রকৌশলী শামসুর রহমান, পাকুন্দিয়া উপজেলার ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল্লাহ আল-মামুন, এসএই আনিসুর রহমান, সার্ভেয়ার আউয়াল হোসেন। এ ছাড়া পাটুয়াভাঙ্গা ইউপি চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা মো. শাহাব উদ্দিনসহ অবসরপ্রাপ্ত সেনাসদস্য একেএম আবু তাহের, অবসরপ্রাপ্ত বিডিআর সদস্য জামাল উদ্দিন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। পরে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বলেন, কিশোরগঞ্জ অর্থনৈতিক অঞ্চলের (কেইজি) কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করে ম্যাপ দেখে কিভাবে পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা নেওয়া যায় সেই সিদ্ধান্ত করা হবে। অত্র অঞ্চলের কৃষক ও সর্ব সাধারণ যেন ক্ষতিগ্রস্ত না হয় তা দেখা হবে।






সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]