ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শুক্রবার ৩ এপ্রিল ২০২০ ১৯ চৈত্র ১৪২৬
ই-পেপার শুক্রবার ৩ এপ্রিল ২০২০

ভেট্টোরিকে কাজে লাগানোর চেষ্টা!
ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১১:৪৪ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 10

ঢাকা টেস্ট শেষ, শেষ হয়েছে একটা দিন আগেই। টাইগার ক্রিকেটার এবং কোচিং স্টাফের সদস্যরা এখন বিশ্রামে। তবে ব্যতিক্রম ড্যানিয়েল ভেট্টোরি। বুধবারও কাজে ব্যস্ত দেখা গেল তাকে। টাইগারদের এই স্পিন কোচের সঙ্গে বিসিবির চুক্তিটা ১০০ দিনের। গুনে গুনে ১০০ দিনই বাংলাদেশের স্পিনারদের নিয়ে কাজ করবেন তিনি। প্রতিদিন পারিশ্রমিক হিসেবে তাকে দিতে হবে আড়াই হাজার ডলারেরও বেশি। বুঝতেই পারছেন তার সময়ের মূল্য কত! এমন ‘মহামূল্য’ একজন কোচকে খালি খালি বসিয়ে রেখে গাঁটের টাকা খরচ করবে কেন বিসিবি? সঙ্গত কারণেই পয়সা উসুল করতে কিউই কিংবদন্তিকে কাজে লাগানোর চেষ্টা চলছে।
ভেট্টোরিকে নিয়োগ দেওয়ার সময় বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেছিলেন, শুধু জাতীয় দল নয়, উঠতি এবং সম্ভাবনাময় স্পিনারদের নিয়েও কাজ করবেন নিউজিল্যান্ডের এই কিংবদন্তি। কিন্তু গত বছরের নভেম্বরে ভারত সফরে টিম বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ শুরু করা ভেট্টোরিকে এখন পর্যন্ত জাতীয় দলের বাইরে সেভাবে কাজে লাগাতে পারেনি বিসিবি। আয়োজন করা হয়নি কোনো স্পিন ক্যাম্প। চড়া পারিশ্রমিকে আনা স্পিন কোচের অনেকটা সময় পেরিয়ে যাচ্ছে কেবল ম্যাচ দিয়েই। ঢাকা টেস্ট চারদিনে শেষ হওয়ায় তাকে একটু কাজে লাগানোর ফুরসত মিলেছে।
সুযোগটা হাতছাড়া করেনি বিসিবি। জাতীয় দলের আশপাশে থাকা চার স্পিনারকে বুধবার পাঠিয়েছে ভেট্টোরির ক্লাসে। মিরপুরে তাদের সঙ্গে লম্বা সময়ই কাটিয়েছেন স্পিন কোচ। ইনডোরের পাশের নেটে ভেট্টোরির স্পিন ক্লাসে ছিলেন নাজমুল ইসলাম অপু, আমিনুল ইসলাম বিপ্লব, তানভির ইসলাম আর হাসান মুরাদ। হুট করেই সিদ্ধান্তটা নেওয়ায় বেশি স্পিনার পাওয়া যায়নি। অনেকেই আছেন ঢাকার বাইরে। জানা গেছে, আজ ভেট্টোরির এই স্পিন ক্লাসে যোগ দেবেন জাতীয় দল থেকে বাদপড়া আরেক বাঁহাতি স্পিনার সানজামুল ইসলাম। একটি টেস্ট আর তিনটি ওয়ানডেতেই থমকে আছে সানজামুলের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার। গত বছরের জানুয়ারিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে একমাত্র টেস্টটি খেলার পর আর সুযোগ পাননি তিনি।
নাজমুল অপু বাংলাদেশের হয়ে খেলেছেন তিন সংস্করণেই। তবে ২০১৮ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্টের পর আর সুযোগ পাননি বাঁহাতি এ স্পিনার। ভালো করতে পারেননি গত বিপিএলেও। টি-টোয়েন্টি দলে প্রায় নিয়মিত হয়ে ওঠা লেগস্পিনার বিপ্লবের সঙ্গে আগেও কাজ করেছেন ভেট্টোরি। মুরাদ আর তানভির সম্ভাবনাময় দুই স্পিনার। বাংলাদেশ যুব ক্রিকেট দলের হয়ে সম্প্রতি বিশ^কাপ জিতে এসেছেন মুরাদ। গত ঢাকা প্রিমিয়ার লিগেও এই বাঁহাতি স্পিনারের পারফরম্যান্স ছিল নজরকাড়া, ১৩ ম্যাচে নিয়েছিলেন ২২ উইকেট। ২৩ বছর বয়সি বাঁহাতি স্পিনার তানভির হাই পারফরম্যান্স দল, ইমার্জিং দলে খেলছেন নিয়মিতই। এই তরুণদের মাঝে দেশের ক্রিকেটের ভবিষ্যৎ দেখছে বিসিবি।
ঘষে মেজে তাদের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের জন্য প্রস্তুত করে তোলার দায়িত্বটাই আপাতত দেওয়া হয়েছে ভেট্টোরিকে। স্পিনারদের সঙ্গে প্রথম সেশন শেষে এই কিংবদন্তি জানালেন, আপাতত তিনি এই স্পিনারদের সামর্থ্যরে জায়গা পরখ করে দেখছেন, ‘ব্যাপারটি হলো বাংলাদেশের উঠতি স্পিনারদের সম্পর্কে একটু ধারণা নেওয়া। ওদের জানা। কয়েকজনকে আমি টিভিতে কিছুটা দেখেছি। এখানে আমার ভূমিকা শুধু আন্তর্জাতিক ক্রিকেটারদের নিয়ে নয়, তরুণদের সঙ্গেও কাজ করব।’ সঙ্গে যোগ করলেন, ‘ওরা আজকে ভালো বোলিং করেছে। তবে নেটে বল করা আর ম্যাচে বল করা পুরো ভিন্ন ব্যাপার। এখানে ওদের সঙ্গে কাজ করে ম্যাচে দেখতে হবে ওরা কেমন করে, সেটিই গুরুত্বপূর্ণ।’
বাংলাদেশের স্পিনারদের প্রতিভায় সন্তুষ্ট ভেট্টোরি, ‘আমি খুবই ভাগ্যবান যে আমি বেশ কিছু তরুণ প্রতিভাবান স্পিনারের সঙ্গে কাজ করার সুযোগ পেয়েছি। ওদের প্রতিভা জাতীয় দলের স্পিনারদের মতোই। এই যে নাঈম হাসান, সে তো দুই বছর আগে অনূর্ধ্ব-১৯ দলের স্পিনার ছিল! এই দুই বছরে সে নিজেকে আরও পরিণত করেছে। তরুণ বোলারদের বেশিরভাগই জানে কীভাবে পারফরম করতে হয়। আমার কাজটা হচ্ছে তাদের বোঝানো এই কাজটা কতটা ভালোভাবে করতে পারবে।’








সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]