ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শনিবার ৬ জুন ২০২০ ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
ই-পেপার শনিবার ৬ জুন ২০২০

পায়ে হেঁটে হজযাত্রা
ইংল্যান্ড থেকে মক্কার পথে ফরিদ
ইসলামের আলো ডেস্ক
প্রকাশ: শুক্রবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১০:৩৯ পিএম আপডেট: ২৮.০২.২০২০ ৪:৩৮ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 60

ইংল্যান্ড থেকে পায়ে হেঁটেই মক্কার পথে রওয়ানা করেছেন চল্লিশ বছর বয়সি এক ব্রিটিশ মুসলিম। নামÑ ফরিদ ফাইদি। ‘শান্তির জন্য হাঁটা’ সেøাগান নিয়ে মুসলিম তরুণ ও যুবসমাজকে অনুপ্রাণিত করার লক্ষে ইংল্যান্ড থেকে মক্কার পথে রওয়ানা দিয়েছেন তিনি। মক্কায় পৌঁছে তিনি ২০২০ সালে পবিত্র হজ পালন করবেন।ফরিদ যাত্রা শুরু করেন ২০১৯ সালের ৩ নভেম্বর। শুরুতে ইচ্ছা ছিল দীর্ঘ এ পথ সাইকেলে পাড়ি দেবেন। পরে সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে পায়ে হেঁটেই রওয়ানা দেন। ইতোমধ্যে প্রায় চার হাজার কিলোমিটার (২৪৮৫ মাইল) পথ পাড়ি দিয়ে বর্তমানে তিনি তুরস্কের ইস্তানবুলে অবস্থান করছেন। চলতি বছরের জুলাই মাস নাগাদ পবিত্র ভ‚মি মক্কায় পৌঁছার পরিকল্পনা রয়েছে তার। তাকে আরও ২ হাজার ৭শ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিতে হবে।
প্রতিদিন প্রায় ৬০ কিলোমিটার রাস্তা পায়ে হেঁটে পাড়ি দেন এই তরুণ। এ পথ পাড়ি দেওয়াকে মহান আল্লাহর একান্ত অনুগ্রহ মনে করেন ফাইদি। যাত্রাপথে তিনি প্রচÐ বৃষ্টি, তুষার ও ঠান্ডা পানি অতিক্রম করে মক্কার উদ্দেশ্যে এগিয়ে চলেছেন। বিশ^ব্যাপী যত ক্যানসার রোগী আছে তাদের জন্য তার এ ভ্রমণ অনুপ্রেরণা যোগাবে বলে মনে করেন তিনি। কেননা ফরিদ নিজে কিডনি ক্যানসারে আক্রান্ত। একটি কিডনি দিয়ে চলছে তার জীবন।
তুরস্কের জনপ্রিয় পত্রিকা ডেইলি সাবাহ তাকে নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। সেখানে ফাইদি বলেন, ‘মুসলিম উম্মাহর অনেক বড় আশা এবং আকাক্সক্ষাগুলোর অন্যতম হলোÑ পবিত্র হজ পালন। আমি অসুস্থ হয়েও হজ পালনের ইচ্ছা করেছি। আমি রীতিমতো উদগ্রীব হয়ে আছি মক্কায় পৌঁছতে। আমি চাই বিশ^ব্যাপী ইসলামের শিক্ষা শান্তির বার্তা ছড়িয়ে দিতে। একজন মুসলমান হিসেবে আমি মনে করি, প্রত্যেক মুসলিম এক একজন রাষ্ট্রদূত। মুসলমানদের প্রতিনিধিত্ব করা সবার দায়িত্ব ও কর্তব্য। আমি সেটাই পালন করার চেষ্টা করছি মাত্র।’
শুধু এই মৌসুমে নয়, ভবিষ্যতেও তিনি পায়ে হেঁটে মক্কা ভ্রমণের ইচ্ছা রয়েছে তারা। তার ভাষায়, ‘আমার এক স্প্যানিশ বন্ধু আছে। সে বছর দুই আগে প্যারিস থেকে পায়ে হেঁটে পবিত্র নগরী মক্কায় গিয়েছিল। তাদের আরেকজন চাইনিজ বন্ধু রয়েছে, সে প্যারিসে বড় হয়েছেন এবং ইসলাম গ্রহণ করেছেন। তারা আগামী বছর একত্রে পবিত্র মক্কা নগরী ভ্রমণের পরিকল্পনা করেছে। হতে পারে তা পায়ে হেঁটে কিংবা বাইসাইকেলে। আমিও ওই দলে থাকছিÑ ইনশাল্লাহ।’
ফাইদি মনে করেন, অনেকেই তো প্লেনে কিংবা জাহাজে মক্কা যান। কিন্তু বিভিন্ন দেশ ও অঞ্চলের তরুণদের পায়ে হেঁটে কিংবা সাইকেলে মক্কা ভ্রমণ করা উচিত। এর ফলে যাত্রাপথে দীর্ঘ এলাকা জুড়ে ইসলাম ও মুসলমানের শান্তির বার্তা তুলে ধরা যায়। এটা বিভিন্ন ধর্মাবলম্বীর কাছে পৌঁছার সহজ একটি মাধ্যমও বটে।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]